top of page

এক এক করে গ্রুপ থেকে বের করা হল বিজেপি কর্মীদের, ক্ষোভ চাঁচলে

হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ থেকে কর্মীদের বের করে দেওয়া নিয়ে কোন্দল বিজেপির অন্দরে। দলের কর্মীদের কণ্ঠরোধের চেষ্টা করা হচ্ছে বলে দাবি করেছেন ওই কর্মীরা। পুরোপুরি সাংগঠনিক সিদ্ধান্ত বলে দাবি করেছেন অভিযুক্ত বিজেপি নেতা। বিষয়টি খতিয়ে দেখছেন বিজেপির উত্তর মালদার জেলা সভাপতি।


দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, নেতাকর্মীদের সাথে যোগাযোগ স্থাপন করার জন্য এবং গুরুত্বপূর্ণ তথ্য শেয়ার করার জন্য চাঁচল বিধানসভা কেন্দ্রের একটি হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ তৈরি করা হয়েছিল। গতকাল সেই গ্রুপ থেকে একের পর এক নেতা-কর্মীদের বের করে দেওয়া হয়। এরপরেই নেতা-কর্মীদের মধ্যে ক্ষোভ দেখা যায়। বিক্ষুব্ধ নেতাদের অভিযোগ, আসল বিজেপি কর্মীদের কণ্ঠরোধ করার চেষ্টা করা হচ্ছে। চাঁচল ১২ নম্বর জেলাপরিষদের মণ্ডল সম্পাদক শমীক পাণ্ডে জানান, গতকাল রাতে দেখলাম একজন পদাধিকারী, মৃগাঙ্ক দাস ওই গ্রুপ থেকে একের পর এক বিজেপি কর্মীদের রিমুভ করছেন। আমরা সংগঠনের একটি ভূমিকা পালন করছি, সেটা কারো কারও পছন্দ নাও হতে পারে। তাই হয়তো কণ্ঠরোধ করার চেষ্টা করা হচ্ছে। পুরো বিষয়টি লিখিতভাবে জেলা সভাপতিকে জানাব। বিজেপি নেতা মৃগাঙ্ক দাসের দাবি, এটা সাংগঠনিক সিদ্ধান্ত।


উত্তর মালদা সাংগঠনিক জেলার বিজেপির সাধারণ সম্পাদক রতন দাস জানান,

গ্রুপে যারা ছিলেন তাঁদের অনেকেই অন্য দলে চলে গেছেন। তাই সংগঠনকে ঢেলে সাজাতে বিজেপির কার্যকর্তাদের নিয়ে নতুন গ্রুপ তৈরি করা হবে।


উত্তর মালদা সাংগঠনিক জেলার বিজেপি সভাপতি উজ্জ্বল দত্ত জানান, এরকম কোনও বিষয় তাঁর জানা নেই। বিষয়টি তিনি খবর নিয়ে দেখবেন।




আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page