top of page

৪৯০ হিসাব কষে মিলল ৪৭২, উচ্চমাধ্যমিকের রেজাল্ট নিয়ে কাউন্সিলে পরীক্ষার্থী

উচ্চমাধ্যমিকের ফলাফলে সংসদের ভুলের দাবি করে কাউন্সিলে আবেদন পরীক্ষার্থীর। স্কুল কর্তৃপক্ষের দাবি, ওই পরীক্ষার্থীকে রিভিউ করতে বলা হলেও সে তাতে রাজি হয়নি। কেউ ব্যক্তিগতভাবে কাউন্সিলে আবেদন করলে তাতে স্কুল কর্তৃপক্ষের কোনও হাত নেই।


উল্লেখ্য, গতকাল বিকেলে উচ্চমাধ্যমিকের ফল প্রকাশিত হয়েছে। চাঁচল সিদ্ধেশ্বরী ইন্সটিটিউশনের এক পরীক্ষার্থী ইফতেসাম হাসনাত পেয়েছেন ৪৭২ নম্বর। তার মাধ্যমিক ও টেস্ট পরীক্ষার ফল ঠিকমতো মূল্যায়ন করা হয়নি বলে অভিযোগ তার। হাসনাত জানায়, প্রকাশিত ফল অনুযায়ী আমি ৪৭২ পেয়েছি। কিন্তু তাতে কিছু ভুল রয়েছে। মাধ্যমিক ও একাদশ শ্রেণির ফল অনুযায়ী কাউন্সিল নির্ধারিত মূল্যায়নে আমার ৪৯০ নম্বর হওয়া উচিত ছিল। আমি কাউন্সিলের নিয়ম মেনে একাধিকবার এই ফলাফলের হিসাব করেছি। এমনকি অঙ্কের শিক্ষকও হিসেব করেছেন। স্বাভাবিকভাবেই এনিয়ে আমার মন খারাপ হয়ে গিয়েছে। আজ আমি বিষয়টি নিয়ে স্কুলে যোগাযোগ করি। প্রধান শিক্ষকের পরামর্শে আমি এনিয়ে কাউন্সিলে আবেদনপত্র পাঠাচ্ছি। আমি রিভিউ করতে চাই না। তবে হিসাব ঠিক করতে কাউন্সিলের কাছে আবেদন জানাচ্ছি। পরীক্ষা হলে আমার আশা ছিল, আমার ফল আরও ভালো হবে।



চাঁচল সিদ্ধেশ্বরী ইন্সটিটিউশনের প্রধান শিক্ষক আশরাফুল হক জানান, বিষয়টি স্কুল কর্তৃপক্ষের নয়। স্কুলের কাজ সংসদের মার্কশিট ছাত্রছাত্রীদের হাতে তুলে দেওয়া। ওই পরীক্ষার্থীকে রিভিউ করতে বলা হয়েছে। কিন্তু ওই পরীক্ষার্থী রিভিউ করতে চাইছে না। তবে কেউ ব্যক্তিগতভাবে কাউন্সিলে চিঠি পাঠাতেই পারে, তাতে স্কুলের কোনও ভূমিকা থাকে না।




আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

Comentários


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page