top of page

বিদ্যুৎ পরিসেবা নিয়ে গ্রামবাসীদের ক্ষোভ চাঁচলে

তীব্র দাবদাহে বিদ্যুৎ পরিসেবা নিয়ে অতিষ্ঠ গ্রামবাসী। এরই মধ্যে ট্রান্সফরমার খুলে নেওয়ার অভিযোগে ক্ষোভ গ্রামবাসীদের। গ্রামবাসীদের বুঝতে ভুল হওয়ায় এই সমস্যা হয়েছে বলে দাবি বিদ্যুৎ দফতরের ডিভিশনাল ম্যানেজারের। ঘটনাটি চাঁচল-১ নম্বর ব্লকের দক্ষিণ নদীসিক গ্রামের।


বিদ্যুৎ পরিসেবা নিয়ে বিক্ষোভ। সংবাদচিত্র।

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, দিনের বেশিরভাগ সময় ইলেকট্রিক থাকছে না। যে সময়ে ইলেকট্রিক থাকছে, সেই সময়েও ভোল্টেজ থাকছে না। আজ ওই গ্রামের বিকল ট্রান্সফরমার খুলতে যান বিদ্যুৎ দপ্তরের কর্মীরা। কেন ট্রান্সফরমার খোলা হচ্ছে, কোন দফতরের কর্মী কাজ করছেন এসব প্রশ্নের জবাব না মেলায় গ্রামবাসীদের সন্দেহ হয়। এরপরেই ভুয়ো কর্মী সন্দেহে কর্মীদের আটকে রাখেন গ্রামবাসীদের একাংশ। চলতে থাকে বিক্ষোভ। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যায় চাঁচল থানার পুলিশ। পুলিশ বিদ্যুৎ দফতরের সঙ্গে যোগাযোগ করে জানতে পারে, ওই কর্মীরা বিদ্যুৎ দফতরের ঠিকাদারের অধীনে কাজ করে। পুলিশি হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।


স্থানীয় বাসিন্দা আনিসুর রহমান জানান,

এই গরমের মধ্যে সঠিকভাবে বিদ্যুৎ পরিসেবা পাচ্ছি না। বেশিরভাগ সময় ইলেকট্রিক থাকছে না। থাকলেও ভোল্টেজ থাকছে না। সন্ধ্যাবেলা ছেলেমেয়েরা পড়াশোনা করতে পারছে না। গ্রামের একটি ট্রান্সফরমার দীর্ঘদিন ধরে বিকল হয়ে রয়েছে। আজ ৪ জন সেই ট্রান্সফরমার খুলতে আসে। তা নিয়েই গ্রামবাসীরা ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন।

বিদ্যুৎ দফতরের ডিভিশনাল ম্যানেজার জানান,

ওই গ্রামে অন্য ট্রান্সফরমার থেকে বিদ্যুতের লাইন গিয়েছে। যেটি খুলে নেওয়ার জন্য কর্মী পাঠানো হয়েছিল সেটি বিকল। আজ ভুল বোঝাবুঝির জন্য একটা সমস্যা তৈরি হয়েছে। সাত দিনের মধ্যে বিকল হওয়া ট্রান্সফরমারও ঠিক করা হবে।

আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page