top of page

তন্ত্র সাধনা সন্দেহে অত্যাচার, অবশেষে প্রৌঢ়ের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার

তন্ত্র সাধনার সন্দেহে এক প্রৌঢ়কে মলমূত্র খাওয়ানোর অভিযোগ উঠেছিল গ্রামবাসীদের একাংশের বিরুদ্ধে। কিন্তু তাতেও ক্ষোভ মেটেনি এরপরেও ওই প্রৌঢ়কে হুমকি দেওয়া হত বলে অভিযোগ। অবশেষে গতকাল বাড়ির পাশে গাছ থেকে ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হল ওই প্রৌঢ়ের। এই ঘটনায় ১০ গ্রামবাসীর বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন ওই প্রৌঢ়র স্ত্রী। ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে চাঁচল-১ নম্বর ব্লকের ভগবানপুর গ্রামপঞ্চায়েতের বর্মন পাড়ায়।


মৃত প্রৌঢ়ের নাম জয়দেব বর্মন (৬০)। জয়দেববাবু কৃষিকাজ করতেন। স্ত্রী ছবিরানি বর্মন গৃহবধূ। তাঁদের তিন মেয়ের মধ্যে বড়ো মেয়ের বিয়ে হয়েছে। আগামী ১৮ এপ্রিল মেজো মেয়ের বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। পরিবারের অভিযোগ, গ্রামবাসীদের একাংশ বেশ কিছুদিন ধরে জয়দেববাবুকে তান্ত্রিক বলে সন্দেহ করত। ২০২২ সালে এনিয়ে জয়দেববাবুকে মারধর করা হয়। ব্যাপক ঝামেলা হয়েছিল সেই সময়। সম্প্রতি গ্রামের এক মেয়ের অসুস্থতার কারণে এলাকাবাসীর মনে ফের কুসংস্কার চাড়া দেয়। গত ২৬ মার্চ জয়দেববাবুকে গ্রামের লোকজন বাড়ি থেকে বের করে নিয়ে যায়। তাঁকে মলমূত্র খাওয়ানো হয়। এতে জয়দেববাবু ভেঙে পড়েছিলেন।


প্রতীকী ছবি।

জয়দেববাবুর মেয়ে পুরবী বর্মন জানান, এলাকার এক মেয়ের অসুস্থতার জন্য বাবাকে দায়ী করে গত ২৬ মার্চ বাবাকে গ্রামের মানুষজন বাড়ি থেকে বের করে নিয়ে যায়৷ ওরা বাবাকে মল-মুত্র খাওয়ায়৷ এতে বাবা ভেঙে পড়েন৷ গতকাল বাড়ির পাশের গাছে বাবার ঝুলন্ত দেহ দেখি৷ বাবা কখনও আত্মহত্যা করতে পারে না৷ এখন ভয় হচ্ছে, মা, কাকা, আমাদের কী হবে? ওরা আমাদের হুমকি দিচ্ছে৷ বাড়িঘর জ্বালিয়ে দেবে বলছে৷ গতকাল রাতে আমরা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছি৷


আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক কর

Commentaires


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page