top of page

বিদায় বেলায় স্বামীর বাড়ি যেতে অস্বীকার নববধূর, বিয়ের মঞ্চে পুলিশ

বিয়ের পর স্বামীর বাড়ি যেতে অস্বীকার নববধূর। অভিযোগ, পণ নিয়ে শ্বশুরবাড়ির লোকজন দুর্ব্যবহার করেছেন। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছে ছেলের পরিবারের লোকজন। গোটা ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে পুরাতন মালদায়।


মেয়ের বিদায়ের সময় ছেলের বাবা টিভি কোথায় জানতে চান


পরিবার সূত্রে জানা গেছে, পুরাতন মালদার খয়রাতি পাড়ায় নিশীথ কুণ্ডুর সঙ্গে বিয়ে ঠিক হয়েছিল ওই যুবতির। গত পরশু বিয়ের পর গতকাল বাসিবিয়ে হয়। এরপরে বিদায়বেলায় ঘটে বিপত্তি। অভিযোগ, ওই যুবতির পরিবারের লোকজন বিয়েতে নগদ ২ লক্ষ টাকা, ১২ ভরি সোনা, মোটরবাইক সহ একাধিক আসবাবপত্র যৌতুক দিয়েছিলেন। অষ্টমঙ্গলায় মেয়েকে টিভি যৌতুক দেওয়া কথা ছিল। মেয়ের বিদায়ের সময় ছেলের বাবা টিভি কোথায় জানতে চান। মেয়ের পরিবারের লোকজন অষ্টমঙ্গলায় সেই টিভি দেওয়ার কথা বলেন। এরপরেই মেয়ের পরিবারের লোকজনকে ধাক্কাধাক্কির পাশাপাশি নববধূকে বাড়িতে নিয়ে যেতে অস্বীকার করে ছেলের বাড়ির লোকজন। সমস্ত ঘটনা জানতে পেরে মেয়েও শ্বশুরবাড়ি যেতে অস্বীকার করে৷ সাফ জানিয়ে দেয়, শ্বশুরবাড়িতে তার নিরাপত্তা থাকবে না৷ সে বরের সঙ্গে ঘর করবে না৷


টিভি ছাড়া বউ যাবে না শ্বশুরবাড়ি


মেয়ের এক আত্মীয়ের অভিযোগ, বিদায়ের মুহূর্তে ছেলের বাবা মেয়ের বাবাকে ফোন করে যৌতুকে (#Dowry) টিভি নেই কেন তা জানতে চায়। এরপরেই ছেলের বাবা মেয়ে নিয়ে যেতে অস্বীকার করে৷ মেয়েকে শ্বশুরবাড়ি নিয়ে যাওয়ার অনুরোধে ছেলের বাবার পা ধরলে সে বাড়ির মেয়েদেরও লাথি মারে৷ পুলিশে খবর দেওয়া হলে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পৌছয়। পরে পুলিশের সামনে তাঁরা মেয়েকে নিয়ে যেতে চায়। তবে সমস্ত ঘটনা দেখে মেয়ে নিজেই শ্বশুরবাড়ি যেতে রাজি হয়নি।



মেয়ে পক্ষের সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছে ছেলের পরিবারের লোকজন। তাঁদের দাবি, ছেলের জামাইয়ের সঙ্গে পাত্রীপক্ষের ঝামেলা হয়েছিল৷ তখন ছেলের বাবা মেয়ের বাবার কাছে অপমান করার প্রতিবাদ করেন। এনিয়ে দু’জনের মধ্যে ঝামেলা হয়৷ বিয়েতে ছেলের বাড়ি থেকে পণে দাবি জানানো হয়নি। উলটে ওরা ছেলেকে ঘর জামাই করে রাখতে চেয়েছিল।

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page