top of page

মহানন্দায় ভেসে এল মা ও শিশুকন্যার নিথর দেহ

গতকালই মহানন্দা নদী থেকে এক শিশুকন্যার মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছিল। সেই ঘটনার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে মহানন্দা নদী থেকে মহিলার মৃতদেহ উদ্ধারকে ঘিরে তীব্র চাঞ্চল্য চাঁচলের আশাপুর এলাকায়। নদী থেকে মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজ এবং হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।



পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, গতকাল মহানন্দপুরের নদী তীরবর্তী এলাকা থেকে ভেসে আসতে দেখা যায় একটি শিশুকন্যার দেহ। স্থানীয়রা দেহটি উদ্ধার করে থানায় খবর দেয় চাঁচল থানায়। তবে সেই মুহূর্তে মৃত শিশুর কোনো পরিচয় পাওয়া যায়নি। ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই চাঁচলের আশাপুর মহানন্দা নদীর ঘাট থেকে ওই শিশুকন্যার মায়ের মৃতদেহ উদ্ধার হল। মৃত মহিলার নাম প্রিয়া পারভিন (২৩) ও মৃত শিশুকন্যাটির নাম সেমি পারভিন (৩)। পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, চার বছর আগে উত্তর দিনাজপুর জেলার ইটাহার ব্লকের গরাহার গ্রামের মোহাম্মদ সামিউল্লাহ রাজের নামে এক যুবকের সাথে বিয়ে হয় প্রিয়ার। অভিযোগ, বিয়ের পর থেকে পণের জন্য ওই মৃত গৃহবধূর ওপর অত্যাচার চালাত তাঁর স্বামী। একমাস আগে সামিউল্লাহকে ছয় লক্ষ টাকা দেন মৃতার দাদু খলিল মাহমুদ। পরিবারের অভিযোগ, পণের দাবিতেই প্রিয়া ও তাঁর মেয়েকে খুন করা হয়েছে।


অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে চাঁচল থানার পুলিশ।




আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page