top of page

ঘরের ভেতর থেকে রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার, খুনের অভিযোগ পরিবারের

ঘরের ভেতর থেকে খেলনা বিক্রেতার রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে পুরাতন মালদার সাহাপুর গ্রামপঞ্চায়েতের রশিলাদহ বাগানপাড়া এলাকায়। মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়ে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে মালদা থানার পুলিশ।


মৃত ব্যক্তির নাম নেপাল মণ্ডল (৪২)৷ নেপালবাবু বিভিন্ন মেলাতে গিয়ে খেলনা বিক্রি করতেন। পারিবারিক বিবাদের জেরে তাঁর স্ত্রী মৌসুমি মণ্ডল তিন মেয়ে নিয়ে ভাড়া বাড়িতে থাকতেন। জানা গিয়েছে, গত বৃহস্পতিবার নেপালবাবুর বাড়িতে চুরির ঘটনা ঘটে৷ ঘরের যাবতীয় সামগ্রী নিয়ে যায় চোরের দল৷ এই ঘটনায় একজনকে নাকি ধরেও ফেলেন নেপালবাবুরা৷ এনিয়ে গ্রামে সালিশি সভাও বসে৷ অভিযোগ, মীমাংসা না হওয়ায়, নেপালবাবু মালদা থানায় চুরির লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন৷ পুলিশ অভিযোগ দায়ের করা নিয়ে অভিযুক্তদের সঙ্গে ঝামেলা চলছিল নেপালবাবুর। এরপর থেকেই তাঁকে নাকি নেপালবাবুকে ফোনে খুনের হুমকি দেওয়া হচ্ছিল৷


প্রতীতী ছবি।

নেপালবাবুর স্ত্রী মৌসুমিদেবী জানান,

সকাল আটটা নাগাদ ফোনে জানতে পারি স্বামীকে খুন করা হয়েছে। এসে দেখি, গলায় মশারির ফাঁস, মুখে বালিশ চাপা দেওয়া। নাক-মুখ থেকে রক্ত বেড়িয়ে বালিশে লেগে রয়েছে। গত পরশু রাতে স্বামী ফোনে জানিয়েছিল, ফোনে খুনের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু কে বা কারা সেই হুমকি দিচ্ছে, তা বলেনি৷ কিছুদিন আগে বাড়িতে চুরি হয়৷ ঘরের টিভি, গ্যাস সিলিন্ডার, মিক্সার, তিন ভরি সোনার গয়না, নগদ ২৫ হাজার টাকা নিয়ে যায় চোরেরা৷ ওই ঘটনা নিয়ে দুই বন্ধুর সঙ্গে ওর ঝামেলা হয়েছিল৷ আমার মনে হচ্ছে ওই বন্ধুরা খুনের ঘটনায় জড়িত রয়েছে৷

আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page