top of page

রাস্তায় নকল ছড়িয়ে অবরোধ পরীক্ষার্থীদের, স্তম্ভিত সবাই

উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় নকল করতে বাধা দিয়েছিলেন পরীক্ষকরা। তারই প্রতিবাদে রাস্তায় নকল ছড়িয়ে অবরোধ পরীক্ষার্থীদের। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ। ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে রতুয়ায়।


জানা গিয়েছে, রতুয়া হাই মাদ্রাসায় সিট পড়েছিল ভাদো বিএসবি হাইস্কুল এবং ভালুকা রাইমোহন মোহিনীমোহন বিদ্যাপীঠের উচ্চ মাধ্যমিকের পরীক্ষার্থীদের। শনিবার উচ্চ মাধ্যমিকের রাষ্ট্রবিজ্ঞান পরীক্ষা ছিল। পরীক্ষা শেষ হতেই রতুয়া-ভালুকা রাজ্যসড়ক অবরোধ করে পরীক্ষার্থীরা। রাস্তায় নকল ফেলে শ্লোগান দিতে থাকে পরীক্ষার্থীরা। ঘটনাটি দেখে স্তম্ভিত হয়ে যান এলাকার মানুষ। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় রতুয়া থানার পুলিশ। পুলিশি হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।


Blockade examinees spread fakes on the streets, everyone is stunned
খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ

পরীক্ষার্থীদের অভিযোগ, রতুয়া হাই মাদ্রাসায় দুটি স্কুলের সিট পড়েছে৷ কিন্তু মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ শুধু তাদের স্কুলের জন্য কড়া গার্ডের ব্যবস্থা করেছে৷ তাদের স্কুলের পরীক্ষার্থীদের প্রতিটি ঘরে আটজন গার্ড রাখা হয়েছে৷ নকল করা দূরের কথা, টয়লেট করতে যাওয়ার সময়ও দেওয়া হচ্ছে না৷ এভাবে পরীক্ষা দিতে না পেরে তারা রতুয়া-ভালুকা রাজ্য সড়ক অবরোধ করে প্রতিবাদ জানাচ্ছে।


ঘটনাকে কেন্দ্র করে শিক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন সাধারণ মানুষ। স্থানীয় বাসিন্দাদের মতে, দিনের পর দিন রাজ্যের শিক্ষা ব্যবস্থা ভেঙে পড়ছে। শিক্ষা ব্যবস্থার এমন অবনতির জন্য কারা দায়ী তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন সাধারণ মানুষ।


অন্যদিকে, পরীক্ষার সিট খোঁজাকে কেন্দ্র করে দুই স্কুলের পরক্ষার্থীদের সংঘর্ষকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা হরিশ্চন্দ্রপুরে। এই ঘটনায় আহত হয়েছেন তিন পরীক্ষার্থী। বিশাল পুলিশবাহিনী মোতায়েন করে চলল উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা।


জানা গিয়েছে, হরিশ্চন্দ্রপুর ১ নম্বর ব্লকের ভিঙ্গোল গ্রামপঞ্চায়েতের অন্তর্গত ভিঙ্গোল উচ্চ বিদ্যালয়ে সিট পড়েছিল কনুয়া হাই মাদ্রাসা ও চণ্ডিপুর হাই স্কুলের। পরীক্ষার শুরু হওয়ার আগে সিট খুঁজতে গিয়ে দুই স্কুলের কিছু পড়ুয়ার মধ্যে বিবাদ বাঁধে। হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ে দুই স্কুলের পড়ুয়ারা। খবর দেওয়া হয় পুলিশে। পরীক্ষাকেন্দ্রে ছুটে আসে হরিশ্চন্দ্রপুর থানার বিশাল পুলিশবাহিনী। পুলিশ ও স্কুল কর্তৃপক্ষ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরীক্ষা শেষ হওয়ার পর পুলিশি তদারকিতে পরীক্ষার্থীদের বাড়ি পাঠানো হয়।


আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

Comments


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page