top of page

ত্রাণ তহবিলে সাহায্য না করলে চাকরি কেড়ে নেওয়ার হুমকির অভিযোগ

করোনা ও আমফান মোকাবিলায় চাঁদা দিতে হবে। নইলে চাকরি খোয়াতে হবে। সুপারভাইজারের বিরুদ্ধে এমনই অভিযোগ নিয়ে সরব হলেন এক অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী। সমস্ত ঘটনা জানিয়ে ওই কর্মী সিডিপিও-র কাছে লিখিত অভিযোগ জমা করেছেন।


হরিশ্চন্দ্রপুর-১ নম্বর ব্লকে দীর্ঘ ১০ বছর ধরে আইসিডিএস ওয়ার্কার হিসেবে কর্মরত রয়েছেন মধুমিতা রায় (হালদার)। তাঁর অভিযোগ, করোনা ও আমফান মোকাবিলায় ৩০০ টাকা করে চাঁদা দেওয়ার জন্য সুপারভাইজার শংকরী দাস (রায়) চাপ দিতে থাকে। ওনাকে জানানো হয়েছিল, সম্প্রতি তাঁর মায়ের হার্টের অপারেশন হয়েছে। এখন একটু অসুবিধা রয়েছে। পরে তিনি সেই টাকা দিয়ে দেবেন। কিন্তু সে সবে কর্ণপাত না করে চাকরি খেয়ে নেওয়ার হুমকি দেন শংকরীদেবী। ক্রমাগত মানসিকভাবে নির্যাতন করতে থাকে। মানসিক নির্যাতনে অসুস্থ হয়ে তাঁকে হাসপাতালে ভরতি হতে হয়। সমস্ত ঘটনা জানিয়ে সিডিপিও সাহেবের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছি।





মধুমিতাদেবীর কাছে রিসিভ করা অভিযোগপত্র থাকলেও অভিযোগ পাননি বলে জানান হরিশ্চন্দ্রপুর-১ নম্বর ব্লক সমাজকল্যাণ আধিকারিক অনুপ সরকার। তিনি বলেন, অভিযোগ পেলে তিনি বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন।


এদিকে, হরিশ্চন্দ্রপুর-১ নম্বর ব্লক সমাজকল্যাণ আধিকারিক অনুপ সরকারের বিরুদ্ধে অসহযোগিতার অভিযোগ তুললেন জেলাপরিষদের কর্মাধ্যক্ষ মর্জিনা খাতুন। তিনি বলেন, অভিযোগের বিষয়টি তিনি শুনেছেন। কিন্তু ব্লক সমাজকল্যাণ আধিকারিক এবিষয়ে তাঁর সঙ্গে কথা বলতে চাননি। এমনকি আজ ফের তিনি ফোন করলেও কোনও উত্তর দেননি আধিকারিক।

Commentaires


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page