top of page

অভিমানে কীটনাশক খেয়ে আত্মঘাতী সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী

পড়াশোনা না করায় মায়ের বকুনি নাবালিকা মেয়েকে। অভিমানে কীটনাশক খেয়ে আত্মঘাতী সপ্তম শ্রেণির এক ছাত্রী। সোমবার রাতে ওই ছাত্রীর শোবার ঘর থেকেই উদ্ধার হয় মৃতদেহ। ঘটনাটি ঘটেছে পুরাতন মালদা থানার আদমপুর এলাকায়। রাতেই মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠায় পুলিশ। এই ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে মৃত ছাত্রীর পরিবারে।



মৃত ছাত্রীর নাম রুপালি চৌধুরি (১৭)। বাড়ি মোথাবাড়ি থানার আদমপুর এলাকায়। স্থানীয় একটি স্কুলে সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী ছিল রুপালি। জানা গিয়েছে, দুর্গাপুজোয় সপরিবারে আদমপুর এলাকায় মামার বাড়িতে ঘুরতে এসেছিল ওই ছাত্রী। গতকাল রাতে পড়াশোনার জন্য রুপালির মা তাকে বকাবকি করে। অভিযোগ, সেই অভিমানে বাড়িতে থাকা কীটনাশক খেয়ে নেয় রুপালি। পরিবারের লোকজন রাতেই তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। মৃতদেহটিকে ময়নাতদন্তে পাঠিয়ে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।


মৃত ছাত্রীর মামা শ্রীদাম চৌধুরি জানিয়েছেন, রুপালি পড়াশোনা ঠিকমতো করতো না। প্রাইভেট টিউশন ফাঁকি দিয়ে বন্ধুদের সঙ্গে সবসময় ঘুরে বেড়াত। এনিয়ে ওর মা ওকে বকাবকি করেছিল। কিন্তু কেউ ভাবতে পারেনি সামান্য বকুনিতে, অভিমানে বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করবে রুপালি।

Comentários


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page