top of page

কোনও উপসর্গ ছাড়াই এবার করোনা রিপোর্ট পজিটিভ

তৃতীয় করোনা আক্রান্তের সন্ধান মিলল মালদায়। মানিকচকে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল দুই। জেলার কোভিড১৯ হাসপাতালে তাঁর চিকিৎসা চলছে বলে জেলা স্বাস্থ্যদফতর সূত্রে জানা গিয়েছে।



জেলায় প্রথম করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলেছিল মানিকচকে। ফের একবার মানিকচকে করোনা আক্রান্তের সন্ধান মেলায় খানিকটা হলেও আতঙ্কে মানিকচকবাসী। প্রথম করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি উত্তর ২৪ পরগণার বারাসাতে নির্মাণের কাজ করতে গিয়েছিলেন। গত ২১ এপ্রিল তিনজনকে সঙ্গে নিয়ে তিনি বাড়ি ফেরেন। প্রথমে তাঁরা কোয়রান্টিনে যাননি। পরে পুলিশকর্মীরা তাঁদের কোয়রান্টিনে নিয়ে যান। পরদিন তাঁদের লালারসের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এক ব্যক্তির লালারসের নমুনায় কোভিড১৯ ভাইরাসের সন্ধান মেলে। ওই ব্যক্তিকে চিকিৎসার জন্য শিলিগুড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। নমুনায় করোনার সন্ধান না মিললেও বাকি তিনজনকে কোয়রান্টিনে রাখা হয়। গতকাল ওই তিন শ্রমিককে ছেড়ে দেওয়া হয়। তবে নির্দেশ অনুযায়ী ছাড়ার আগে ওই তিন শ্রমিকের লালারসের নমুনা ফের পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। গতকাল রাতে এক ব্যক্তির লালারসে কোভিড১৯ ভাইরাসের সন্ধান মেলে। তবে ওই ব্যক্তির করোনার কোনও উপসর্গ ছিল না।


মানিকচকে দ্বিতীয় করোনা আক্রান্তের খবর ছড়িয়ে পড়তেই ফের আতঙ্ক ছড়িয়েছে। কেন ওই শ্রমিকদের লালারসের পরীক্ষার ফলাফল হাতে পাওয়ার আগে ছেড়ে দেওয়া হল, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে। যদিও গোটা ঘটনায় প্রশাসনের কোনও মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ভূষণ চক্রবর্তী বলেন, জেলার প্রথম দুই কোভিড১৯ সংক্রমিত রোগী শিলিগুড়ির করোনা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। গতকাল তৃতীয় যে ব্যক্তি সংক্রমিত হয়েছেন তাঁকে পুরাতন মালদার করোনা হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে৷ সেখানেই তাঁর চিকিৎসা চলছে৷ মালদা মেডিকেল কলেজ সূত্রে জানা গিয়েছে, গতকাল রাত ৯টা পর্যন্ত ১৯৭৭ জনের লালারসের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে৷ তার মধ্যে ৩টি লালারসের নমুনায় কোভিড১৯ ভাইরাসের হদিশ মিলেছে। এখনও ১৬৪টি নমুনার রিপোর্ট পাওয়া যায়নি৷




Comments


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page