top of page

ত্রাণের টাকা নয়ছয়ের অভিযোগে গ্রেফতার তৃণমূল নেতা

অবশেষে ২০১৭ সালের বন্যার ত্রাণ কেলেঙ্কারিতে গ্রেফতার এক। ধৃত ব্যক্তির নাম শেখ সামাদ। বাড়ি হরিশ্চন্দ্রপুর থানা এলাকার বড়ুই গ্রামপঞ্চায়েতের মোবারকপুর এলাকার। এলাকায় তিনি তৃণমূল নেতা হিসেবে পরিচিত। ধৃতকে আজ চাঁচল মহকুমা আদালতে পেশ করা হয়েছে।


২০১৭ সালে হরিশ্চন্দ্রপুর ১ ও ২ নম্বর ব্লক এলাকার বিস্তীর্ণ অঞ্চল বন্যার জলে প্লাবিত হয়েছিল। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিলেন প্রচুর মানুষ। স্থানীয় পঞ্চায়েত স্তর থেকে ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা ধরে এলাকার প্রত্যেকটি গ্রামপঞ্চায়েতে সরকার থেকে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য টাকা বরাদ্দ করা হয়। অভিযোগ, এই ত্রাণের টাকা নিয়ে চলে ব্যাপক দুর্নীতি। সেই সময় প্রচুর ভুয়ো অ্যাকাউন্টে ত্রাণের টাকা ট্রান্সফার করা হয়। এনিয়ে বড়ুই গ্রামপঞ্চায়েতের প্রধানের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে মামলা হয়। সেই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে হরিশ্চন্দ্রপুর ১ নম্বর ব্লকের বিডিও অনির্বাণ বসু প্রধানের বিরুদ্ধে থানায় সরকারি ত্রাণের টাকা নয়ছয়ের অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের পর থেকেই বড়ুই অঞ্চলের প্রধান সোনামনি সাহা পলাতক বলে জানা গিয়েছে। অবশেষে এই দুর্নীতিতে জড়িয়ে থাকা এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে পুলিশ।


তৃণমূল জেলা কমিটির সদস্য নরেন্দ্রনাথ তিওয়ারি বলেন, কেউ চুরি করে ধরা পড়লে সে বেঁচে যাবে না। দল অন্যায়-চুরি বরদাস্ত করে না। মুখ্যমন্ত্রী এনিয়ে কড়া নির্দেশ দিয়েছেন। অভিযুক্তদের দোষ প্রমাণিত হলে আইন আইনের পথে ব্যবস্থা নেবে।



বিজেপির মণ্ডল সভাপতি রুপেশ আগারওয়াল জানান, ২০১৭ সালের বন্যার ত্রাণ কেলেঙ্কারিতে প্রচুর টাকা নয়ছয় করা হয়েছে। হরিশ্চন্দ্রপুরের গ্রামপঞ্চায়েতে এনিয়ে একাধিক অভিযোগ রয়েছে। ভুয়ো অ্যাকাউন্ট থেকে শুরু করে মৃত ব্যক্তির অ্যাকাউন্টে টাকা দেওয়া হয়েছে। সঠিক তদন্ত করে সমস্ত দোষীদেরকে গ্রেফতার করার দাবি জানাচ্ছি।




আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

Comments


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page