top of page

অগ্রিম শোধ না হওয়ায় মেলেনি ছুটি, অবশেষে মৃত্যু শ্রমিকের

অগ্রিম টাকা নিয়ে দাদন খাটতে গিয়েছিলেন। কাজে গিয়ে অসুস্থ হয়ে, ঠিকাদারের কাছে ছুটি চান। কিন্তু অগ্রিম শোধ না হওয়ায় ছুটি মেলেনি। অবশেষে মৃত্যু হয় ওই পরিযায়ী শ্রমিকের। আজ সকালে মৃত শ্রমিকের কফিনবন্দি দেহ গ্রামে ফিরে আসতেই পুরো এলাকা জুড়ে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।


মৃত পরিযায়ী শ্রমিকের নাম সুজন পাহাড়িয়া (৪০)। বাড়ি পুরাতন মালদার যাত্রাডাঙা গ্রামে। পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, মাস তিনেক আগে এক ঠিকাদারের থেকে অগ্রিম নিয়ে উত্তরাখণ্ডের দেরাদুনে কাজ করতে গিয়েছিলেন সুজনবাবু। মাস দুয়েক কাজ করার পরেই ভীষণ অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। চিকিৎসকের পরামর্শ মতো ওষুধ খাওয়ার পরেও শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়নি। বাধ্য হয়ে ঠিকাদার ও কোম্পানি কর্তৃপক্ষের কাছে ছুটির আবেদন জানান তিনি। কিন্তু অগ্রিম শোধ না হওয়ায় তাঁকে বাড়ি ফিরতে দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ। সুজনবাবুর শারীরিক অবস্থার আরও অবণতি হলে কোম্পানির তরফে পরিবারের লোকেদের খবর দেওয়া হয়। গত পরশু দেরাদুনে পৌঁছে তড়িঘড়ি সুজনবাবুকে স্থানীয় হাসপাতালে ভরতি করেন স্ত্রী মাইডি হেমব্রম। মঙ্গলবার ভোরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় সুজনবাবুর।


প্রতীকী ছবি।

আজ সকালে মৃতদেহ গ্রামে ফিরে আসে। গোটা এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। মৃত শ্রমিকের পরিবারকে সরকারি সাহায্যের দাবি তুলেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।


আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

Comments


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page