জঞ্জালের গ্রহণে শহর

জঞ্জালের গ্রহণে শহর

  • পাড়ায় পাড়ায় নিকাশিনালার তথৈবচ অবস্থা৷সেখানে অবাধে বংশবিস্তার করছে মশা৷শহরের পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী৷

  • টনক নড়েছে প্রশাসনের৷ রাস্তায় আর জঞ্জাল ফেলা যাবে না৷অলিতেগলিতে বাঁশি বাজিয়ে পৌঁছে যাবেন সাফাইকর্মীরা৷

  • এই শহরের অনেকেরই মজ্জাই ঢুকে গেছে যেখানে সেখানে জঞ্জাল ফেলার প্রবণতা৷এইসব অভ্যাস একদিনে কাটাবার নই ঠিকই৷প্রশাসনের তরফে ধারাবাহিক প্রচার চালানো হলে মানুষ সচেতন হবে৷


পুরভবনে ঢুকে চক্ষুচড়ক গাছ৷চেয়ার-টেবলের সামনে ডাঁই করে জঞ্জাল রাখা৷দুর্গন্ধে টেকা দায়৷শহরের জঞ্জাল সাফাইয়ের দায়িত্ব যাঁর কাঁধে, সেই সাফাই পরিদর্শকের দপ্তরের সামনেই আবর্জনার স্তূপ৷সাজানোগোছানো শহরটায় যেন জঞ্জালের গ্রহণ লেগেছে৷কোথাও ভ্যাট উপচে রাস্তায় নেমে আসছে জঞ্জাল, কোথাও আবার নর্দমার পাড়েই আবর্জনার ছোটো ঘরটায় পাহাড় জমেছে৷পাড়ায় পাড়ায় নিকাশিনালারও তথৈবচ অবস্থা৷নালার মধ্যে অবাধে বংশবিস্তার করছে মশা৷শহরের এমন পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে নিয়েছেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷



আগের খবরঃ পুরসভার ভিতরেই জঞ্জাল ফেলে এল শহরবাসী

আর তাতেই টনক নড়েছে প্রশাসনের৷কলকাতার ধাঁচে ইংরেজবাজারে জঞ্জাল সাফাইয়ের পরিকল্পনা নিয়েছে পুর কর্তৃপক্ষ৷রাস্তায় নাকি আর জঞ্জাল ফেলা যাবে না৷অলিতেগলিতে বাঁশি বাজিয়ে পৌঁছে যাবেন সাফাইকর্মীরা, ই-রিকশা ভ্যানে আবর্জনা সংগ্রহ করে পৌঁছে যাবেন নির্দিষ্ট ভ্যাটে, যার প্রশাসনিক নাম পকেট ট্রান্সফার স্টেশন৷ঠিক কতগুলো এধরনের ভ্যাট তৈরি করা হবে তার হিসেবনিকেশ এখনও চলছে৷তার অর্থ হিন্দি স্কুলের কাছে অগোছালো ভ্যাটের অস্তিত্ব বিলোপ হবে৷এই পরিকল্পনায় শহরে জঞ্জালের জট ছাড়ানো যাবে৷বলে মনে করছে পুর কর্তৃপক্ষ৷কিন্তু একটা প্রশ্ন থাকছেই৷পুরসভা বলছে, রাস্তায় আর জঞ্জাল ফেলা যাবে না৷


কিন্তু এই শহরের অনেকেরই মজ্জাই ঢুকে গেছে যেখানে-সেখানে জঞ্জাল ফেলার প্রবণতা৷নর্দমার মধ্যে আবর্জনা ফেলে অনেকেই৷এমনকি নিষিদ্ধ প্লাস্টিক ক্যারিব্যাগ নর্দমায় ফেলেন কেউ কেউ৷আর তার ফলে নিকাশিনালার দফারফা হয়ে যায়৷নিজের বাড়ির জঞ্জাল প্যাকেটবন্দি করে রাস্তার ধারে যেখানে-সেখানে রেখে দেওয়ার অভ্যাসটা অনেকের আছে৷এইসব অভ্যাস একদিনে কাটাবার নই ঠিকই৷কিন্তু প্রশাসনের তরফে ধারাবাহিকভাবে প্রচার চালানো হলে মানুষ সচেতন হবে৷তাছাড়া জরিমানার ব্যবস্থা করে কড়াভাবে তা প্রয়োগ করতে হবে৷


বাবুল দাস, শহরের বাসিন্দা


"পরিচ্ছন্নতার বিষয়টা মন থেকে আসতে হবে৷ রাস্তার মাঝে লোকে থুতু ফেলে যাচ্ছে৷ শহিদ বেদির পিছনেও আবর্জনা ফেলে দিচ্ছেন অনেকে৷এটা সচেতনতার অভাব৷"

এই শহরের বাসিন্দা পিঙ্কি ঘোষ বলেন, আমি মাঝেমধ্যেই দেখি, আমার বাড়ির সামনে প্যাকেটে করে জঞ্জালে রেখে চলে গেছে কেউ৷রাস্তার ধারে এইভাবে জঞ্জাল ফেলে রাখায় দূষণও ছড়ায়৷শহর পরিষ্কার রাখা তো আমাদেরও দায়িত্ব৷সকলকে বুঝতে হবে, রাস্তার ধারে যেখানে-সেখানে বা কারও বাড়ির সামনে জঞ্জাল ফেলে যাওয়া ঠিক নয়৷বাবুল দাস নামে আর এক বাসিন্দা বলেন, দেখুন অভ্যাসটা পালটাতেই হবে৷ শুধু জঞ্জাল ফেলা নয়, পরিচ্ছন্নতার বিষয়টা মন থেকে আসতে হবে৷সরকারি অফিসকাছারির দেয়াল পানের পিকে লাল হয়ে থাকে৷রাস্তার মাঝে লোকে থুতু ফেলে যাচ্ছে৷নেতাজি মোড়ে দেখুন না, দোকানদাররা যে যার দোকানের জঞ্জাল রাস্তার ধারে জড়ো করে রাখেন৷এমনকি সমবায় দপ্তরের শহিদ বেদির পিছনেও আবর্জনা ফেলে দিচ্ছেন অনেকে৷এটা সচেতনতার অভাব৷পুব প্রশাসনকে নজরদারিও চালাতে হবে৷সচেতনতামূলক প্রচারও চালাতে হবে৷


তবে পুরপ্রধান নীহাররঞ্জন ঘোষের আশা, নতুন পদ্ধতিতে জঞ্জাল সংগ্রহ করলে শহরের সমস্যা অনেকটা মিটবে৷তবে শহরের জঞ্জাল পকেট ট্রান্সফার পয়েন্টে নিয়ে গিয়ে পাম্প বানলেও তা ভ্যাটে নিয়ে যাওয়া নিয়ে সমস্যা থাকছে৷কারণ পুরসভার বাইরে স্থায়ী ভ্যাট নিয়ে সমস্যা এখনও থেকে গেছে৷তাছাড়া পুর নজরদারি না থাকছে, অনেকেই রাস্তাঘাটে যত্রতত্র জঞ্জাল ফেলে পগারপার হয়ে যাচ্ছে৷


ছবিঃ গৌতম কর্মকার।


প্রতিদিন মালদার টাটকা নিউজ হোয়াটস্ অ্যাপে পেতে ক্লিক করুন

হেডলাইন

প্রতিবেদন

কোয়রান্টিন সেন্টারে জন্মদিনের পার্টি, নজির গড়ল দীপান্বিতা

জন্মদিনের অনুষ্ঠানে বন্ধুদের বাড়িতে ডেকে খাওয়ানো নয়, পরিযায়ী শ্রমিকদের মধ্যে খাবার বিতরণ করে নজির সৃষ্টি করল ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রী। গত...

বিজ্ঞাপন

ফলো করুন
  • Facebook
  • Instagram
  • Twitter
  • YouTube
  • Pinterest

সব খবর ইনবক্সে!

প্রতিদিন খবরের আপডেট পেতে সাবস্ক্রাইব করুন

Aamader Malda Worldwide, the only media of your hometown and its thoughts. Here you can share and express your views and thoughts and you'll get here the essence of MALDAIYA CULT...

You can reach us via email or phone.  P +91 3512-260260  E response@aamadermalda.in

  • Facebook
  • Twitter
  • YouTube
  • Pinterest
  • Instagram
  • RSS

Copyright © 2020 Aamader Malda. All Rights Reserved.