top of page

তিন বছর ধরে বিদ্যুৎ নেই গ্রামে, রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে অবরোধ

তিন বছর আগে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল বিদ্যুতের লাইন। তারপর থেকেই অন্ধকারে রয়েছে গোটা এলাকা। এলাকায় বসানো হয়েছে জলের পাইপলাইন। কিন্তু তিন বছরেও জল সরবরাহের ব্যবস্থা হয়নি। আজ বিদ্যুৎ ও পানীয় জলের দাবিতে রাজ্য সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান হরিশ্চন্দ্রপুরের ধুমসাডাঙি বাসিন্দারা।


সকাল থেকে হরিশ্চন্দ্রপুর থেকে ভালুকা হয়ে মালদাগামী রাজ্য সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু হয়। রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে চলতে থাকে অবরোধ। বাসিন্দাদের অভিযোগ, এলাকায় ২৯টি বাড়িতে বিদ্যুৎ সংযোগ ছিল। ২০১৭ সালের বন্যায় বিদ্যুতের খুঁটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। সেই খুঁটি সংস্কার না হওয়ায় সেই সময় থেকেই অন্ধকারেই রয়েছেন বাসিন্দারা। গত বছর উচ্চ মাধ্যমিকে ৮৪ শতাংশ নম্বর পেয়ে পাশ করেছিল বিজয় মিশর নামে এক ছাত্র। তখন এলাকায় গিয়ে তাঁকে সংবর্ধনা দেওয়ার পাশাপাশি বিদ্যুৎ ব্যবস্থা ফের চালু করার আশ্বাস দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু কাজের কাজ হয়নি।



স্থানীয় বাসিন্দা প্রতিমা রবিদাস বলেন, এখানে পাইপলাইন আছে, কিন্তু জলের ব্যবস্থা হয়নি। জল আর বিদ্যুতের দাবিতে তিন বছর ধরে হন্যে হয়ে পঞ্চায়েত-প্রশাসনের দরজায় ঘুরে আশ্বাস ছাড়া কিছু মেলেনি। যে আবেদন নিবেদন করেছি তার নথিপত্র রয়েছে। তিন বছর ধরে শুধু হচ্ছে হবে বলে আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। বাধ্য হয়েই প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।


হরিশ্চন্দ্রপুর দক্ষিণ মণ্ডল-১ এর বিজেপি সভাপতি রূপেশ আগরওয়ালা বলেন, ওখানে বন্যায় অনেকের ঘর ভেঙেছিল। কিন্তু ঘর পায়নি। বিদ্যুতের কাজও হয়নি। খাওয়ার জল নেই। তৃণমূল তো তো কাটমানি নিয়েই ব্যস্ত। এলাকার উন্নয়ন করবে কি? বিজেপি ক্ষমতায় আসলে ওদের আর সমস্যা থাকবে না।




হরিশ্চন্দ্রপুর-১ ব্লক তৃণমূল সভাপতি মানিক দাস বলেন, বিজেপি এমন প্রতিশ্রুতি হামেশাই দেয়। অ্যাকাউন্টে ১৫ লক্ষ টাকা দেওয়ার কথা বলা হয়েছিল। কতজন পেয়েছেন? ওই এলাকায় বিদ্যুৎ সংযোগ ও পানীয় জলের বিষয়টি নিয়ে সংশ্লিষ্ট দফতরের সঙ্গে কথা হয়েছে।


আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

ความคิดเห็น


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page