top of page

এবার করোনার থাবা গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে

শেষ ২৪ ঘণ্টায় মালদা জেলায় কোভিড-১৯-এ নতুন আক্রান্ত ৬৪ জন। সাথে স্বাস্থ্য দফতরের এক কর্তার কোভিড টেস্ট পুনরায় পজিটিভ এসেছে। জেলা স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গেছে, এবার গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে কোপ বসাল মারণ ভাইরাস। করোনা আক্রান্ত হলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগীয় প্রধান। অধ্যাপকের উপসর্গ না থাকায় তাঁকে হোম আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। এছাড়া একাধিক স্বাস্থ্যকর্মী ও ব্যাংককর্মী আক্রান্ত হয়েছেন এদিন। জেলা প্রশাসনিক ভবন ও পুলিশ সুপারের দফতরের কর্মীরাও সংক্রমিতের তালিকায় রয়েছেন।


জেলায় মোট সংক্রামিতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১৭১৮। স্বাস্থ্য দফতরের মেডিকেল বুলেটিন অনুযায়ী সুস্থ হয়ে উঠেছেন জেলায় ১০৬৯ জন। এরমধ্যে গতকালই সুস্থ হয়ে উঠেছেন আরও ৪৪ জন। এমুহূর্তে অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা ৬৪২ অর্থাৎ সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৬০ শতাংশের বেশি মানুষ।


University of Gour Banga

গত সপ্তাহে পরীক্ষার কাজে বিশ্ববিদ্যালয়ে যান এই অধ্যাপক। এরপর আবাসনে এক ব্যক্তির করোনা সংক্রমণ হওয়ার পর স্বতঃস্ফূর্তভাবে করোনা টেস্ট করাতে সপরিবারে লালারস জমা করেন। স্ত্রী ও সন্তানের টেস্ট নেগেটিভ এলেও গতকাল অধ্যাপকের করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ে।



গতকাল এই রাজ্যে ২২৭৮ জন আক্রান্ত হয়েছেন। পরিসংখ্যান অনুযায়ী শেষ ২৪ ঘণ্টার দৈনিক সংক্রমণ এদিন ছিল সর্বাধিক। রেকর্ড গড়েছে মৃত্যুও, গতকাল মৃত হয়েছে ৩৬ জনের। এরপর রাজ্য সরকার জেলার লকডাউন নিয়ন্ত্রণ নীতির ভার স্থানীয় প্রশাসনের উপর ছেড়েছে। মালদা জেলার কন্টেনমেন্ট জোনগুলিতে আগামীকাল পর্যন্ত শুধুমাত্র মাছ ও সবজিবাজার খোলা থাকবে সকাল ৭টা থেকে ১০টা পর্যন্ত। বাকি সমস্ত দোকান বন্ধ থাকবে। বুধবার থেকে কী হবে, তা মঙ্গলবার রাতে জেলা প্রশাসন থেকে জানিয়ে দেওয়া হবে। উল্লেখ্য, গত ৮ জুলাই থেকে জেলার দুই শহর ইংরেজবাজার ও পুরাতন মালদার পাশাপাশি কালিয়াচক ও সুজাপুরে সম্পূর্ণ লকডাউন শুরু হয়। সাতদিন এই লকডাউন বলবত থাকার পর আবার ১৯ জুলাই পর্যন্ত বহাল রাখার নির্দেশ দেন রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিব। রবিবার লকডাউনের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর জেলা প্রশাসনের তরফে আরও দু’দিন লকডাউন চালু রাখার কথা জানানো হয়েছে।


Comentários


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page