top of page

নাম পরিবর্তন ডিএসএ স্টেডিয়ামের, ক্ষুব্ধ প্রশাসন!

রাতারাতি মালদা জেলা ক্রীড়া সংস্থার স্টেডিয়ামের নাম পরিবর্তনকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য মালদা শহরে। জেলা প্রশাসন সূত্রে খবর এই ঘটনায় ক্ষুব্ধ মালদার জেলাশাসক।

উল্লেখ্য, ১৯৬২ সালে তৎকালীন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী বিধানচন্দ্র রায় মালদা জেলা ক্রীড়া সংস্থার স্টেডিয়ামের শিলান্যাস করেন। ১৯৭৫ সালে এই স্টেডিয়ামের বেশ কয়েকটি ব্লক তৈরি হয়। ডিএসএ স্টেডিয়াম নামে এই স্টেডিয়াম পরিচিত। ডিএসএ-র সভাপতি জেলাশাসক। সম্পাদক প্রাক্তন মন্ত্রী কৃষ্ণেন্দুনারায়ণ চৌধুরি। সম্প্রতি জেলা ক্রীড়া সংস্থার সংস্কারের কাজ হয়। আর সেই কাজ সম্পন্ন হতেই নাম পালটে যায় স্টেডিয়ামের নাম। ডিএসএ স্টেডিয়ামের পরিবর্তে শুভেন্দু চৌধুরি নামকরণ করা হয় স্টেডিয়ামের। এই নিয়েই শুরু হয়েছে বিতর্ক।



জেলা ক্রীড়া সংস্থার প্রাক্তন সম্পাদক শুভাশিস সরকার বলেন, ডিএসএ রাজনীতির আখড়া হয়ে গেছে। বেআইনিভাবে প্রাক্তন মন্ত্রী এই ঘটনা ঘটিয়েছেন। এই ঘটনার তীব্র সমালোচনা করেছে বিজেপিও। বিজেপির জেলা সহ সভাপতি অজয় গঙ্গোপাধ্যায় বলেন, শুভেন্দু চৌধুরিকে আমরা জেলাপরিষদের ঠিকাদার হিসেবে চিনি। ভাই মন্ত্রী থাকাকালীন তিনি ডিএসএ-র সম্পাদক হয়েছিলেন। এখন তাঁর নামেই স্টেডিয়াম হচ্ছে। মালদায় অনেক বড়ো বড়ো খেলোয়াড় আছেন, বিজ্ঞানী আছেন, কৃতিসন্তান আছেন। তাদের নামে না করে দাদার নামে স্টেডিয়াম করলেন প্রাক্তন মন্ত্রী।




রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী কৃষ্ণেন্দুনারায়ণ চৌধুরির দাবি, সর্বসম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত নিয়ে এই নামকরণ করা হয়েছে। দীর্ঘ আট বছর তাঁর দাদা ডিএসএ-র সম্পাদক ছিলেন। তাঁকে সম্মান জানাতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।


আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

Commentaires


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page