top of page

পঞ্চায়েত নির্বাচনে জোট নিয়ে আশাবাদী কংগ্রেস নেতা

আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনে রাজ্যে কংগ্রেসের সঙ্গে বামেদের জোট হচ্ছেই৷ সেকথা জানিয়ে দিয়েছেন কংগ্রেস নেতা আবদুল মান্নান৷ সেই জোট নিয়ে শীর্ষ নেতৃত্বের তরফ থেকে কোনও ঘোষণা না হলেও নীচুতলায় জোট হবে এমনটাই বলছেন কংগ্রেস নেতা।


এদিন মালদায় বিধানসভার বিরোধী দলনেতা বলেন, পঞ্চায়েত কিংবা পৌরসভার নির্বাচন হয় একেবারে তৃণমূলস্তরে৷ পঞ্চায়েত ভোট গ্রামস্তরের লড়াই৷ সেখানে কোনও রাজনৈতিক দলের শীর্ষ নেতৃত্বের কন্ট্রোল থাকে না৷ প্রতিটি রাজনৈতিক দলেরই নিজস্ব কিছু নীতি ও আদর্শ রয়েছে৷ সেই সব নীতিকে ধরে রেখে স্থানীয় স্তরে যে যেভাবে পারে অন্য দলের সঙ্গে জোট করে৷ বাম আমলেও অনেক নির্বাচনে আরএসপি, সিপিএম ও ফরওয়ার্ড ব্লক একে অন্যের বিরুদ্ধে লড়াই করেছে৷ কিন্তু বাম জোট অক্ষুণ্ণ থেকেছে৷ তাই পঞ্চায়েত নির্বাচনে তাঁদের দলে রাজ্যস্তর থেকে তৃণমূলস্তরের কাজকর্মে হস্তক্ষেপ করা হয় না৷ এক্ষেত্রে জেলা ও ব্লক নেতৃত্ব চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়৷ মান্নান সাহেব বলেন, এটা তাঁদের দলের নীতি৷ সেই নীতি মেনেই এসব ভোটে দলীয় নেতা-কর্মীরা সিদ্ধান্ত নেন৷ একই ঘটনা ঘটে জেলা পরিষদস্তরেও৷ সেখানেও অন্য কোনও দলের সঙ্গে জোট হবে কিনা তা ঠিক করবে জেলা নেতৃত্ব৷



এই জেলার দুটি লোকসভা আসন কংগ্রেসেরই দখলে৷ কিন্তু পঞ্চায়েত নির্বাচনে সিপিএমের সঙ্গে জোট হলে আগামী লোকসভা নির্বাচনে এই জেলায় তার কি কোনও প্রভাব পড়বে না? উত্তর দিতে গিয়ে মান্নান সাহেব মনে করিয়ে দেন, গত বালুরঘাট পৌরসভা নির্বাচনে আরএসপি’র সঙ্গে সিপিএমের লড়াই হয়েছিল৷ তাহলে কি বামফ্রন্ট ভেঙে গিয়েছে? বিজেপির সঙ্গে জোট করে মালদা জেলাতেই তৃণমূলের গ্রাম পঞ্চায়েত চলছে৷ তাহলে কি জাতীয় ক্ষেত্রে তার প্রভাব পড়বে? মান্নান সাহেবের মতে, নীচুস্তরের ভোটে কোথায় কার সঙ্গে জোট গড়া প্রয়োজন, তা নীচুতলার নেতা-কর্মীরাই ভালো বলতে পারবেন৷ তাই সেক্ষেত্রে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত তাঁরাই নেবেন৷

এদিন আবদুল মান্নানের এহেন মন্তব্য আসন্ন নির্বাচনে আরও একবার কং-বাম জোটের সম্ভাবনাকেই উসকে দিচ্ছে৷


আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page