উন্নয়নে ৫৫৫ কোটি টাকা বরাদ্দ মুখ্যমন্ত্রীর

উন্নয়নে ৫৫৫ কোটি টাকা বরাদ্দ মুখ্যমন্ত্রীর, জেলায় একগুচ্ছ প্রকল্প

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সম্প্রতি ৫ মে মালদা জেলা সফর করলেন। সেই সঙ্গে তিনি জেলা প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিদের সঙ্গে প্রশাসনিক বৈঠক ও দলীয় কর্মীসভা করেন। বিধানসভা নির্বাচনের প্রায় এক বছর বাদে মালদা জেলা সফরকালে জেলার বিভিন্ন প্রকল্পের জন্য প্রায় ৫৫৫ কোটি টাকা বরাদ্দের ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। জেলা ক্রীড়া সংস্থার মাঠে প্রকাশ্য সভা থেকে ৮৮টি বিভিন্ন প্রকল্পের উদ্‌বোধন ও শিলান্যাস করেন। তাঁর বক্তব্য অনুযায়ী, গত বিধানসভা নির্বাচনে মালদা জেলায় তৃণমূল কংগ্রেস কোনো খাতা খুলতে না পারলেও জেলার উন্নয়নে মালদাবাসীকে তিনি বঞ্চিত করেননি।


কোন কোন প্রকল্পের জন্য তিনি টাকা বরাদ্দ করলেন এবং এর ফলে মালদাবাসী কতটা উপকৃত হল এই নিয়ে বর্তমান প্রতিবেদন।


শহরে পর্যাপ্ত বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যবস্থা ঠিক থাকলেও জেলার প্রত্যন্ত গ্রামগুলিতে বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যবস্থার হাল খুবই করুণ। লো-ভোল্টেজ, তার উপর আবার দিনের বেশিরভাগ সময়ই বিদ্যুৎ থাকে না। এর পরিপ্রেক্ষিতে গাজোলে লো-ভোল্টেজ সমস্যা মেটাতে ১৫৭ কোটি টাকা ব্যয়ে একটি ২২০ কিলোভোল্টের সাবস্টেশন এবং গোলাপগঞ্জ, নালাগোলা ও মোবারকপুরে ২০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে তিনটি সাবস্টেশন তৈরি করা হবে।

হরিশ্চন্দ্রপুর-২, রতুয়া-২ ও হবিবপুর ব্লকে ৪ কোটি ৫৩ লক্ষ টাকা ব্যয়ে প্রতিটি ব্লকে একটি করে মডেল স্কুল নির্মাণ করা হবে। এছাড়া গাজলে ১০০ শয্যাবিশিষ্ট ওবিসি গার্লস হস্টেল নির্মাণ করা হবে। প্রতিটির নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে ৩ কোটি টাকা। ইংরেজবাজার পুরসভা এলাকার গৃহহীনদের জন্য চারতলা ভবন নির্মাণ প্রকল্পে ১ কোটি ৭ লক্ষ ৫৬ হাজার টাকা ও আধুনিক নিকাশি ব্যবস্থা নির্মাণকল্পে ১ কোটি ১৯ লক্ষ ৯৯ হাজার টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। পুরাতন মালদা, হরিশ্চন্দ্রপুর-১ ও ২ নং ব্লক, কালিয়াচক ২ ও ৩ নং ব্লক, রতুয়া-১ ও ২ নং ব্লক ও মানিকচক ব্লকে একটি করে ‘সদ্ভাব মণ্ডপ’ নির্মাণকল্পে মোট বরাদ্দকৃত অর্থের পরিমাণ ৫ কোটি ৬০ লক্ষ টাকা। মালদা জেলাপরিষদের আওতাধীন পাগলাঘাট শ্মশানে বৈদ্যুতিক চুল্লি নির্মাণকল্পে ১ কোটি ৯৮ লক্ষ টাকা ও গুদুয়া গ্রামে পানীয় জল এবং বিদ্যুতের সুবিধা সহ কবরস্থানের সীমানা প্রাচীর নির্মাণকল্পে ২৪ লক্ষ টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। গাজোল ব্লকে ৫ টি উপস্বাস্থ্যকেন্দ্র নির্মাণের লক্ষ্যে ৪৮ লক্ষ ২৫ হাজার টাকা, মালদা বিমানবন্দরের উন্নতিকল্পে ১৬ কোটি ৭৯ লক্ষ টাকা, হরিশ্চন্দ্রপুরে ১০০০ মেট্রিক টন ক্ষমতাসম্পন্ন ধান সংরক্ষণ গোডাউন নির্মাণের জন্য ১ কোটি ৬৮ লক্ষ টাকা ও পশ্চিমবঙ্গের মালদা জেলার নবঘোষিত জাতীয় সড়ক ১৩১/এ এর মধ্যস্থিত ফুলহর সেতুর উভয় পার্শ্বের সন্মুখস্থ রাস্তার উন্নতিকরণের লক্ষ্যে ১০৯ কোটি ৩৬ লক্ষ টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব রয়েছে। এছাড়া খেলাধুলার উন্নতিকল্পে কালিয়াচক-১ ব্লকে ২টি ও কালিয়াচক-৩ ব্লকে ১টি মিনি ইনডোর স্টেডিয়াম নির্মাণের ক্ষেত্রে প্রস্তাবিত অর্থমূল্য ৬০ লক্ষ টাকা। অর্থাৎ মোট ২৬টি প্রকল্পের শিলান্যাসের জন্য মোট প্রস্তাবিত অর্থমূল্যের পরিমাণ ৩৩৬ কোটি ৫ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা।


এবারে আসা যাক, যে সমস্ত প্রকল্প উদ্‌বোধন করলেন মুখ্যমন্ত্রী তার বিশ্লেষণে। অন্যতম হল ১৬ কোটি ৭৯ লক্ষ টাকা ব্যয়ে মালদা মেডিকেল কলেজে ‘মাদার ও চাইল্ড হাব’ নির্মাণ, জেলার বিভিন্ন স্থানের রাস্তাগুলির প্রশস্তিকরণ ও দৃঢ়ীকরণের লক্ষ্যে প্রস্তাবিত অর্থমূল্যের পরিমাণ প্রায় ১১৩ কোটি ২১ লক্ষ টাকা। তিনটি কৃষক বাজার নির্মাণের প্রস্তাবিত অর্থমূল্য বরাদ্দ হয়েছে ১৭ কোটি ৫৮ লক্ষ টাকা। অনুরূপে ৩টি ‘কর্মতীর্থ’ নির্মাণের প্রস্তাবিত অর্থ বরাদ্দ হয়েছে ৩ কোটি ২৫ লক্ষ টাকা। উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তরের অধীনে বিভিন্ন প্রকল্পে ৯ কোটি ৫৬ লক্ষ ১১ হাজার টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। জেলার বিভিন্ন ব্লকের ১৪টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও কলেজের ছাত্র ও ছাত্রী আবাস নির্মাণে ১৩ কোটি ৯৪ লক্ষ ২৭ হাজার টাকার প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে। এছাড়া আকালপুর, উত্তর কুমেদপুর, রামচন্দ্রপুর ও খানপুর পানীয় জল সরবরাহ প্রকল্পে মোট ৮ কোটি ৯৭ লক্ষ ২৯ হাজার টাকা বরাদ্দকৃত হয়েছে। মালদা কলেজের মিনি ইনডোর স্টেডিয়ামের জন্য ২০ লক্ষ ও মালদা পলিটেকনিকে দ্বিতল ছাত্রী আবাসনের জন্য ১ কোটি ৫ লক্ষ টাকা মঞ্জুর করা হয়েছে। ভূতনি দিয়ারা প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ১০ শয্যাবিশিষ্ট অন্তর্বিভাগ ও ডাক্তার ও নার্স আবাসনের লক্ষ্যে মালদা জেলাপিরষদকে ১ কোটি ২৩ লক্ষ ২৫ হাজার টাকার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। মানিকচক ডিগ্রি কলেজ নির্মাণে উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন পর্ষদকে ১১ কোটি ৫৫ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা মঞ্জুর করা হয়েছে। এছাড়া গাজোল ব্লকের ৭টি শিশু অঙ্গনয়াড়ি কেন্দ্রে শিশুআলয় নির্মাণের জন্য ৪৮ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা বরাদ্দ হয়েছে। মোথাবাড়ি থানা নির্মাণ ও জনশিক্ষা প্রসার অধিকার এর আঞ্চলিক কার্যালয়েরও উদ্‌বোধন করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। অর্থাৎ দেখা যাচ্ছে ৬২টি উদ্‌বোধন প্রকল্পের জন্য মুখ্যমন্ত্রী ২০৩ কোটি ৯ লক্ষ ৩২ হাজার টাকা বরাদ্দ করেছেন।

এ প্রসঙ্গে বলা যেতে পারে, যে স্বাধীনতার পরবর্তী পর্যায়ে এতগুলি প্রকল্পের জন্য একসাথে এত বড়ো পরিমাণ যে অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছে, তা এর আগে কখনও হয়নি। এই অর্থবরাদ্দ প্রসঙ্গে প্রকাশ্যে জনসভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেছেন যে, মালদা জেলা থেকে তাঁর দলের কোনো বিধায়ক নির্বাচিত না হলেও তিনি জেলার উন্নয়ন স্তব্ধ করবেন না। যদিও এর বাস্তবায়ন কতটুকু হবে সেটা পরবর্তীতে আলোচ্য বিষয় হবে। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর এই দরজা ঘোষণাকে কটাক্ষ করেছেন বিভিন্ন বিরোধী রাজনৈতিক দল। তাদের বক্তব্য যে, পঞ্চায়েত ভোটের আগে মানুষের মন জয় করতে মুখ্যমন্ত্রীর এই গিমিক। তাঁদের দাবি যে, বাস্তবে এগুলির সম্পূর্ণ রূপায়ণ নিয়ে প্রশ্নচিহ্ন থেকে যায়। তবে একসাথে এত উন্নয়নের ঘোষণায় যে মালদাবাসী বেশ খুশি তা নিঃসন্দেহে বলা যেতে পারে। এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা সমগ্র প্রকল্পগুলির বাস্তাবায়ন নিয়ে।


ছবিঃ মিসবাহুল হক


#ChiefMinister

হেডলাইন

প্রতিবেদন

কোয়রান্টিন সেন্টারে জন্মদিনের পার্টি, নজির গড়ল দীপান্বিতা

জন্মদিনের অনুষ্ঠানে বন্ধুদের বাড়িতে ডেকে খাওয়ানো নয়, পরিযায়ী শ্রমিকদের মধ্যে খাবার বিতরণ করে নজির সৃষ্টি করল ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রী। গত...

বিজ্ঞাপন

ফলো করুন
  • Facebook
  • Instagram
  • Twitter
  • YouTube
  • Pinterest

সব খবর ইনবক্সে!

প্রতিদিন খবরের আপডেট পেতে সাবস্ক্রাইব করুন

Aamader Malda Worldwide, the only media of your hometown and its thoughts. Here you can share and express your views and thoughts and you'll get here the essence of MALDAIYA CULT...

You can reach us via email or phone.  P +91 3512-260260  E response@aamadermalda.in

  • Facebook
  • Twitter
  • YouTube
  • Pinterest
  • Instagram
  • RSS

Copyright © 2020 Aamader Malda. All Rights Reserved.