top of page

আলু চাষের মরশুম শুরু হতেই সারের কালোবাজারির অভিযোগ

আলু চাষের মরশুম শুরু হতেই সারের কালোবাজারির অভিযোগ উঠতে শুরু করেছে। বস্তা পিছু কয়েকশো টাকা বেশি দামে সার বিক্রি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ তুলেছেন চাষিরা। এই ঘটনার সঙ্গে কৃষি দফতরের একাংশের জড়িত থাকার অভিযোগও উঠতে শুরু করেছে। সারের কালোবাজারির বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার পুরাতন মালদার আদিনা হাটখোলা এলাকায় বিক্ষোভ দেখান মহিষবাথানি গ্রামপঞ্চায়েতের আলুচাষিরা৷ বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন ব্লক কৃষি আধিকারিক৷


মালদা জেলায় সবচেয়ে বেশি আলু চাষ হয় পুরাতন মালদা ব্লকে৷ আলু চাষে ব্যবহৃত সারের বিক্রয়মূল্য সরকারিভাবে নির্ধারণ করা রয়েছে। অভিযোগ, তাসত্ত্বেও ৪০০-৫০০ টাকা বেশি দামে সার বিক্রি হচ্ছে। এরই প্রতিবাদে সরব হয়েছেন আলু চাষিরা।


এক আলুচাষি বাসুদেব রাজবংশী জানান,

আলু চাষের মরশুম শুরু হয়ে গিয়েছে৷ অথচ ঠিকমতো সার পাওয়া যাচ্ছে না৷ পেলেও সেই সারের দাম ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা বেশি দিতে হচ্ছে৷ সেই কারণে আমরা চাষ করতে পারছি না। প্রশাসনের কাছে আমাদের আবেদন এনিয়ে সরকারি তদন্ত করা হোক৷ ব্লক কৃষি আধিকারিককে বিষয়টি জানানো হলেও কিছুই হয়নি।


এক সার ব্যবসায়ী জানাচ্ছেন, আমাদেরও বেশি দামে সার কিনতে হচ্ছে৷ বস্তা পিছু ১৫০ টাকা লাভ রেখে সার বিক্রি করছি। যার কাছ থেকে এই সার নিয়েছি তিনি নিজের পরিচয় গোপন রাখতে বলেছেন।


ব্লক কৃষি আধিকারিক সৌম্যজিৎ মজুমদার জানান,

সারের কালোবাজারি নিয়ে কাছে কিছু অভিযোগ জমা পড়েছে৷ বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যে বৈঠক করা হয়েছে৷ কোনো ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হলে তার লাইসেন্স বাতিল করা হবে। বাজারে সারের খানিকটা ঘাটতি রয়েছে৷ চাষিরা যদি ওই সার না পান তবে অন্য সার ব্যবহার করেও চাষ করতে পারেন। চাষিদের এবিষয়ে সচেতন করতে আমরা লিফলেট বিলি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি৷

আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page