top of page

ভুয়ো মাস্টার রোল তৈরি করে দুর্নীতির অভিযোগ

পঞ্চায়েত সদস্যদের সই নকল করে দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে সাহাপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের বিজেপি পরিচালিত বোর্ডের বিরুদ্ধে। এই ঘটনায় বিডিও’র কাছে তদন্তের দাবি তুলেছেন ওই গ্রাম পঞ্চায়েতের কংগ্রেসি সদস্যরা। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছেন পঞ্চায়েত প্রধান। অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু হয়েছে বলে জানান বিডিও।



সাহাপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের কংগ্রেস সদস্য তনুজা রায়ের অভিযোগ, এই এলাকায় গত ৬-৭ বছর একটি নলকূপেরও সংস্কার করা হয়নি৷ অথচ সংস্কারের টাকা তুলে নেওয়া হয়েছে৷ ভুয়ো মাস্টার রোল তৈরি করে কংগ্রেসি সদস্যদের সই নকল করে এই ঘটনা ঘটিয়েছে বোর্ডের সদস্যরা। সমস্ত ঘটনা বিডিওকে জানিয়ে তদন্তের দাবি তোলা হয়েছে।


যদিও কংগ্রেসি সদস্যের অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে পঞ্চায়েত প্রধান উকিল মণ্ডল জানান, সমস্ত অভিযোগ ভিত্তিহীন। বিল পাশ করার আগে তাঁরা বিলে সদস্যদের সই নিয়ে সকলের কাছে জানতে চেয়েছিলেন। তাঁরা ওই বিল আটকে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়ে বৈঠক ডাকেন। বৈঠকে সমস্ত সদস্যদের সইয়ের নমুনা নিয়ে মেলালে ৫-৬ জন সদস্যের সই মেলেনি। পরবর্তীতে তাঁরা এলাকা পরিদর্শন করে দেখেন এলাকার বেশ কিছু জায়গায় কোনও কাজ হয়নি। তাঁর অনুমান কল-মিস্ত্রিরাই এই ঘটনা ঘটিয়েছে। গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। দোষীদের উপযুক্ত শাস্তি দেওয়া হবে।


এপ্রসঙ্গে পুরাতন মালদার বিডিও ইরফান হাবিব বলেন, সাহাপুর গ্রাম পঞ্চায়েতে প্রধান ও নির্মাণ সহায়কের বিরুদ্ধে সই নকল করে সরকারি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ জমা পড়েছে। অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করা হয়েছে। তদন্তে দোষী প্রমাণিত হলে আইনানুযায়ী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

Kommentarer


বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page