top of page

মেরামতির জন্য একমাস বন্ধ থাকবে রথবাড়ি ফ্লাইওভার

আগামী ২২ অগাস্ট থেকে এক মাসের জন্য বন্ধ থাকবে মালদা শহরের কেন্দ্রস্থল, রথবাড়ি এলাকায় থাকা ফ্লাইওভার। এই এক মাস ধরে ব্রিজের স্বাস্থ্য পুনরুদ্ধারের কাজ চলবে। ফ্লাইওভার দিয়ে কোনও যান যাতায়াত করতে দেওয়া হবে না। উঠতে দেওয়া হবে না পথচারীদেরও। এর জেরে প্রবল সমস্যায় পড়তে চলেছেন মানুষজন। প্রশাসনের তরফে এনিয়ে নির্দেশিকাও জারি করে দেওয়া হয়েছে। যদিও প্রশাসনের এই সিদ্ধান্ত সমর্থন করছে না মালদা মার্চেন্ট চেম্বার অফ কমার্স। ফ্লাইওভার বন্ধ থাকাকালীন বিকল্প কয়েকটি রুট ঠিক করে দেওয়া হলেও যানজট যে বাড়বে, তা মেনে নিচ্ছে পুলিশও।


মালদা শহরের মধ্যে দিয়ে গিয়েছে রেল লাইন। তার একদিকে মূল শহর। অন্যদিকে পুরসভার অ্যাডেড এরিয়া। আশির দশকে রেল লাইনের উপর দিয়ে একটি ফ্লাইওভার নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেয় রাজ্য সরকার। কারণ, লাইনের ওপাশে রয়েছে মানিকচক, রতুয়া, চাঁচল সহ একাধিক ব্লক। সেসব রুটে যানবাহন চলার ক্ষেত্রে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল রেলের লেভেল ক্রসিং। প্রতিদিনই প্রবল যানজট দেখা দিত সেখানে। ১০ মিনিটের পথ পেরোতে সময় লাগত ঘণ্টা দেড়েক। ফ্লাইওভার নির্মাণের পর সেই সমস্যা দূর হয়। কিন্তু প্রায় ৩৫ বছর বয়স হলেও ফ্লাইওভারের পুরো সংস্কার একবারও করা হয়নি। এতে ফ্লাইওভারের বিয়ারিংগুলি নষ্ট হয়ে গিয়েছে। সম্প্রতি পূর্ত দফতর ফ্লাইওভার পরীক্ষা করে জানিয়ে দেয়, দ্রুত মেরামত না করা হলে যে কোনও মুহূর্তে বড়োসড়ো দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। তারপরেই গত পরশু এনিয়ে একটি উচ্চ পর্যায়ের প্রশাসনিক বৈঠক হয়। সেই বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, ২২ অগাস্ট থেকে ফ্লাইওভারের সংস্কার কাজ শুরু হবে। তার জন্য এক মাস সেটি সম্পূর্ণ বন্ধ করে দেওয়া হবে।

এপ্রসঙ্গে সদর মহকুমাশাসক সুরেশচন্দ্র রানো বলেন, ‘ফ্লাইওভারের ওয়েট বিয়ারিংগুলি কাজ করছে না। সেগুলি পালটানো হবে। তার জন্য ব্রিজকে পুল করতে হবে। ব্রিজ বন্ধ না করে সেই কাজ করা সম্ভব নয়। সেকারণে আগামী ২২ তারিখ থেকে এক মাস ব্রিজ বন্ধ থাকবে। এর জন্য যানবাহন চলাচলের জন্য জেলাশাসক অস্থায়ী কিছু রুট তৈরি করে দিয়েছেন। ঘোড়াপীর এলাকায় থাকা ট্রাকস্ট্যান্ডকে অস্থায়ীভাবে বাসস্ট্যান্ড হিসাবে ব্যবহার করা হবে। ছোটো গাড়িগুলি শহরে ঢোকার জন্যও রুট নির্দিষ্ট করে দেওয়া হয়েছে। ব্রিজ বন্ধ থাকলে মানুষের একটি কষ্ট হবে। কিন্তু নিরাপত্তার জন্য ব্রিজ সংস্কার খুবই জরুরি হয়ে পড়েছিল।’



মালদা মার্চেন্ট চেম্বার অফ কমার্সের সম্পাদক জয়ন্ত কুণ্ডু বলেন, ‘ফ্লাইওভার নিয়ে গত পরশু জেলা প্রশাসন যে বৈঠক করেছে তাতে আমাদের ডাকা হয়নি। পুরোনো এই ফ্লাইওভারের সংস্কার যে জরুরি, তা ঠিক। কিন্তু ব্রিজ বন্ধ রেখে সেই কাজ করার জন্য প্রশাসন যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তা আমরা পুরোপুরি সমর্থন করছি না। এক বছরের বেশি সময় ধরে কাজ চললেও রেলের আন্ডারপাস এখনও চালু হয়নি। সেটা চালু করে ফ্লাইওভার সংস্কার করা হলে মানুষের তেমন সমস্যা হত না। প্রশাসনের এই সিদ্ধান্তে মানুষের সমস্যা যেমন বাড়বে, পণ্য পরিবহণেও সমস্যা হবে। পরিবহণ খরচ বাড়ার জন্য জিনিসপত্রের দামও বাড়বে। আমরা প্রশাসনের কাছে আবেদন জানাব, ছোটো যানবাহন ব্রিজে উঠতে দেওয়া হলে মানুষের সমস্যা কমবে। রোগীদের মালদা মেডিকেল কলেজে নিয়ে আসার সুবিধে হবে।’




জেলার ট্রাফিক ওসি বিটুল পাল বলেন, ‘ফ্লাইওভার বন্ধ থাকাকালীন মানিকচক, রতুয়া প্রভৃতি রুটের বাসের জন্য ব্রিজের ওপারে ঘোড়াপীর ট্রাকস্ট্যান্ডে একটি অস্থায়ী বাসস্ট্যান্ড করা হয়েছে। ছোটো গাড়িগুলি লক্ষ্মীপুর-ধানতলা হয়ে মালদা শহরের ঝলঝলিয়ায় উঠবে। টোটো এবং মোটরবাইক ঘোড়াপীর মোড় থেকে কৃষ্ণপল্লি অথবা মালঞ্চপল্লি সাবওয়ে হয়ে শহরে ঢুকবে। মুমূর্ষু রোগী থাকা অ্যাম্বুলেন্সকে আমরা কৃষ্ণপল্লি রুট দিয়ে মালদা মেডিকেলে যাওয়ার অনুমোদন দিতে পারি। ফ্লাইওভার সংস্কার চলাকালীন শহরে একটু যানজট বাড়বে। কিন্তু ব্রিজ সংস্কার করাও খুব প্রয়োজন। এনিয়ে আমরা মানুষের সহযোগিতা কামনা করছি।’


অস্থায়ী রুট

  • ছোটো গাড়িগুলি লক্ষ্মীপুর-ধানতলা হয়ে মালদা শহরের ঝলঝলিয়ায় উঠবে

  • টোটো এবং মোটরবাইক ঘোড়াপীর মোড় থেকে কৃষ্ণপল্লি অথবা মালঞ্চপল্লি সাবওয়ে হয়ে শহরে ঢুকবে

  • মুমূর্ষু রোগী থাকা অ্যাম্বুলেন্সের কৃষ্ণপল্লি রুট দিয়ে মালদা মেডিকেল কলেজ যাওয়ার অনুমোদন মিলতে পারে

  • মানিকচক, রতুয়া প্রভৃতি রুটের বাসের জন্য ব্রিজের ওপারে ঘোড়াপীর ট্রাকস্ট্যান্ডে একটি অস্থায়ী বাসস্ট্যান্ড করা হয়েছে


আমাদের মালদা এখন টেলিগ্রামেও। জেলার প্রতিদিনের নিউজ পড়ুন আমাদের অফিসিয়াল চ্যানেলে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

Malda-Guinea-House.jpg

আরও পড়ুন

bottom of page