নির্বাচনি বধ্যভূমিতে আরও একটি ভোট

নির্বাচনি বধ্যভূমিতে আরও একটি ভোট

বঙ্গভূমে দরজায় কড়া নাড়ছে আরেকটি গণ উৎসব৷ এই উৎসবে কোনো বিগ্রহ নেই৷ নেই কোনো বিশেষ প্রার্থনার আয়োজন৷ এটা গ্রাম বাংলার মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রতিষ্ঠা করার উৎসব৷ আর সেকারণেই নির্বাচনের সঙ্গে উৎসব শব্দের মেলবন্ধন বোধহয় অনেক আগে থেকেই প্রতিষ্ঠিত৷


কিন্তু সত্যিই কি আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচন উৎসবের চেহারা নেবে? নাকি তা ছড়িয়ে দেবে একরাশ আতঙ্কের পরিবেশ৷ ২০১৮-এর পঞ্চায়েত নির্বাচনের নির্ঘণ্ট প্রকাশের পর থেকেই এর উত্তর খুঁজতে আকুল আমজনতা৷ সংবাদমাধ্যমে একের পর এক নির্বাচনি সন্ত্রাসের প্রকাশিত খবর সাধারণ মানুষের আতঙ্ক নিশ্চিতভাবে আরও বাড়িয়ে দিয়েছে৷ আর তা দেখে বোধহয় মুচকি হাসছে রাজনীতির কারবারিরা৷


অথচ নির্বাচনি সন্ত্রাস এ’রাজ্যে এই প্রথম নয়৷ ৭২-এর কংগ্রেসি জমানায় রাজ্য দেখেছে ভোট সন্ত্রাসের কদর্য রূপ৷ সেই সন্ত্রাসের ছবি তুলে ধরে রাজ্যে একের পর এক ভোট জিতেছে বামেরা৷ লাল আমলে ভোটের সময়ে বিরোধী প্রার্থীদের বাড়ির সামনে সাদা থান রেখে দেওয়ার নিস্তব্ধ সন্ত্রাস কি এখনও ভোলা গিয়েছে! অন্তত ভুক্তভোগীরা সেসব যে এখনও ভুলতে পারেননি, তা নির্দ্বিধায় বলে দেওয়া যায়৷ বামেদের সরিয়ে রাজ্যে এখন তৃণমূল৷ এই আমলেও বিভিন্ন নির্বাচনে সন্ত্রাসের সচল ছবি দেখা গিয়েছে বৈদ্যুতিন সংবাদমাধ্যমের পর্দায়৷ কিন্তু সব ছাপিয়ে এখন আলোচনার ভরকেন্দ্রে পঞ্চায়েত নির্বাচনের সন্ত্রাস৷ বেশিরভাগ ক্ষেত্রে অভিযোগের তিরে বিদ্ধ শাসকদল৷ যদিও খোদ তৃণমূলনেত্রীর কথায়, কিস্যু হয়নি৷


শাসকদলের শীর্ষনেত্রী থেকে শুরু করে নেতা-মন্ত্রীরা সবসময় দাবি করছেন, এই আমলে রাজ্য উন্নয়নের জোয়ারে ভেসে গিয়েছে৷ উন্নয়ন বজায় রাখতে মানুষ পঞ্চায়েত নির্বাচনেও তৃণমূলকেই ভোট দেবে৷ মানুষ যে উন্নয়নের পূজারি, তা নিয়ে দ্বিধা নেই৷ তাহলে এত সন্ত্রাস কেন? নির্বাচনি পর্যবেক্ষকদের মতে, যে-কোনো ভোটে শাসকদল চায়, গত নির্বাচনের থেকে আরও ভালো ফল করতে হবে৷ বিরোধীদের একটি আসনেও জিততে দেওয়া যাবে না৷ আর সেই লক্ষ্যেই উন্নয়নকে ছাপিয়ে যায় সন্ত্রাস৷ যার ছবি ধরা পড়েছে কাকদ্বীপ থেকে কোচবিহার পর্যন্ত৷ সন্ত্রাসের বলি হতে হয়েছে শাসকদলের নেতা-কর্মীদেরও৷


সাধারণ মানুষ চাইছে, নির্বাচনকে কেন্দ্র করে হানাহানি বন্ধ হোক৷ যা হয়েছে তা ভুলে গিয়ে সব রাজনৈতিক দল শপথ নিক, আর কোনো প্রাণহানি নয়৷ কিন্তু তা কি বাস্তব হবে? পুলিশ কি নিজেদের উর্দির মূল্যায়ন আর এই পেশায় যোগ দেওয়ার আগে নিজেদের নেওয়া শপথ রক্ষা করতে পারবে? এটাই এখন লাখ টাকার প্রশ্ণ৷ কারণ, এর উপরেই নির্ভর করছে বাংলার ভোট আর বঙ্গবাসীর জীবনের ভবিষ্যত৷

হেডলাইন

প্রতিবেদন

কোয়রান্টিন সেন্টারে জন্মদিনের পার্টি, নজির গড়ল দীপান্বিতা

জন্মদিনের অনুষ্ঠানে বন্ধুদের বাড়িতে ডেকে খাওয়ানো নয়, পরিযায়ী শ্রমিকদের মধ্যে খাবার বিতরণ করে নজির সৃষ্টি করল ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রী। গত...

বিজ্ঞাপন

ফলো করুন
  • Facebook
  • Instagram
  • Twitter
  • YouTube
  • Pinterest

সব খবর ইনবক্সে!

প্রতিদিন খবরের আপডেট পেতে সাবস্ক্রাইব করুন

Aamader Malda Worldwide, the only media of your hometown and its thoughts. Here you can share and express your views and thoughts and you'll get here the essence of MALDAIYA CULT...

You can reach us via email or phone.  P +91 3512-260260  E response@aamadermalda.in

  • Facebook
  • Twitter
  • YouTube
  • Pinterest
  • Instagram
  • RSS

Copyright © 2020 Aamader Malda. All Rights Reserved.