বিজ্ঞাপন

এমফিল, পিএইচডি ছাত্রছাত্রীদের জন্য সরকারি সাহায্য


উচ্চশিক্ষায় পাঠরত ছাত্রছাত্রীদের জন্য আর্থিক সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিল রাজ্য সরকার৷ চালু হল স্বামী বিবেকানন্দ মেরিট কাম মিনস‌ স্কলারশিপ স্কিম৷ রাজ্যের যে কোনও বিশ্ববিদ্যালয়ে এমফিল ও পিএইচডিতে গবেষণারত ছাত্রছাত্রীদের প্রতি মাসে আর্থিক সাহায্য দেবে সরকার৷ রাজ্যের অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়েও সরকারের এই সিদ্ধান্ত চালু হচ্ছে৷ এরমধ্যেই এমফিল ও পিএইচডি গবেষণারত ১১৭ জন পড়ুয়া এই সাহায্য পাওয়ার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন জানিয়েছেন৷ সেই তালিকা চূড়ান্ত করতে শুক্রবার আবেদনকারী পড়ুয়াদের ইন্টারভিউ নেবে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ৷


এমফিল-এর পড়ুয়াদের প্রতি মাসে ৫ হাজার টাকা করে সাহায্য করবে৷ আর যাঁরা পিএইচডি করছেন তাঁরা মাসে ৮ হাজার টাকা করে পাবেন৷

এই বিষয়ে গত ৭ জুন চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয় রাজ্যের উচ্চশিক্ষা দপ্তর৷ উচ্চশিক্ষা দপ্তর, সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি অ্যান্ড বায়োটেকনোলজি, বাজেট ব্রাঞ্চের লেটারহেডে গত ১১ জুন সরকারের সেই সিদ্ধান্তের কথা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে জানান শিক্ষা সচিব৷ এই স্বামী বিবেকানন্দ মেরিট কাম মিনস‌ স্কলারশিপ স্কিমে নিজেদের অন্তর্ভূক্ত করতে হলে পড়ুয়াদের পরিবারের উপার্জনের কোনও কথা উল্লেখ করার প্রয়োজন নেই৷ শর্ত হল, যে শিক্ষার্থীরা নেট-এর রিসার্চ ফেলোশিপে উত্তীর্ণ হতে পারেননি, একমাত্র তাঁরাই এই স্কিমে আসতে পারবেন৷ অর্থাৎ এই স্কিমে আসতে হলে পড়ুয়াদের অন্য কোথাও থেকে কোনও অর্থ সাহায্য পাওয়া চলবে না৷

আবেদনকারী পড়ুয়াদের পেশ করা তথ্য যাচাই করার পর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাঁদের নাম পাঠালেই উচ্চশিক্ষা দপ্তর এমফিল-এর পড়ুয়াদের প্রতি মাসে ৫ হাজার টাকা করে সাহায্য করবে৷ আর যাঁরা পিএইচডি করছেন তাঁরা মাসে ৮ হাজার টাকা করে পাবেন৷ এমফিল কিংবা পিএইচডি, দুটিই হল পূর্ণ সময়ের গবেষণা৷ ফলে এই দুই বিভাগের ছাত্রছাত্রীরা নিজেদের পড়াশোনার অর্থ জোগাড় করতে অনেক সময় প্রাইভেট টিউশনি কিংবা অস্থায়ীভাবে কোথাও চাকরি করেন৷ এতে তাঁদের পড়াশোনার ব্যাঘাত হয়৷ তাঁদের সেই পরিস্থিতি থেকে মুক্তি দিতেই মুখ্যমন্ত্রী এই সব পড়ুয়াদের জন্য আর্থিক সহায়তার কথা ভাবেন৷ এই সাহায্য পেলে তাঁরা নিশ্চিতভাবে পড়াশোনা ও গবেষণায় আরও মনযোগী হতে পারবেন৷

এপ্রসঙ্গে গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার তথা ডেভেলপমেন্ট অফিসার রাজীব পুততুণ্ডি এদিন জানান, মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে এবছরই এই স্কিম চালু হয়েছে৷ যে পড়ুয়ারা নেট পাশ করেও ফেলোশিপ পাননি অথবা নেটও পাশ করতে পারেননি, অথচ তাঁরা পূর্ণ সময়ের গবেষণা করছেন, তাঁদের জন্যই এই স্কিম চালু করা হয়েছে৷ একটাই শর্ত, এই স্কিমে থাকা পড়ুয়ারা অন্য কোথাও থেকে অর্থ সাহায্য পেতে পারবেন না অথবা কোথাও চাকরি করতে পারবেন না ৷ এখনও পর্যন্ত ১১৭ জন পড়ুয়া এই সহায়তা পেতে আবেদন জানিয়েছেন৷ এর মধ্যে পিএইচডিতে রয়েছেন ২৯ জন৷ তাঁদের মধ্যে সায়েন্স বিভাগ থেকে রয়েছেন ১০ জন, আর্টস থেকে রয়েছেন ১৯ জন৷ এমফিল পড়ুয়াদের মধ্যে সায়েন্স থেকে ২ জন এবং আর্টস থেকে ৮৬ জন আবেদন করেছেন৷ আবেদনকারী পড়ুয়াদের আবেদনপত্র খতিয়ে দেখার জন্য উপাচার্য একটি কমিটি গঠন করেছেন৷ সেই কমিটি প্রতিটি আবেদনপত্র খতিয়ে দেখেছে৷ এরপরেও আগামীকাল আবেদনকারীদের একটি ইন্টারভিউয়ে ডাকা হয়েছে৷ তারপরেই চূড়ান্ত তালিকা তৈরি করা হবে৷

#Education #DigitalDesk

বিজ্ঞাপন

Malda Guinea House.jpg

পপুলার

1

শীতের বনভোজনে ইংরেজবাজারে নিষেধাজ্ঞা পুলিশের

Popular News

572

শীতের বনভোজনে ইংরেজবাজারে নিষেধাজ্ঞা পুলিশের
2

গ্রেফতার সাত ডাকাত, উদ্ধার হাঁসুয়া, লোহার রড

Popular News

646

গ্রেফতার সাত ডাকাত, উদ্ধার হাঁসুয়া, লোহার রড
3

মানিকচকে গঙ্গায় ডুবল ভেসেল, সার্চলাইট জ্বালিয়ে খোঁজ

Popular News

620

মানিকচকে গঙ্গায় ডুবল ভেসেল, সার্চলাইট জ্বালিয়ে খোঁজ
4

সুজাপুরে বিস্ফোরণস্থলে এলেন ফিরহাদ হাকিম, আসছে ফরেনসিক দল

Popular News

701

সুজাপুরে বিস্ফোরণস্থলে এলেন ফিরহাদ হাকিম, আসছে ফরেনসিক দল
5

তীব্র বিস্ফোরণ সুজাপুরের প্লাস্টিক কারখানায়

Popular News

1302

তীব্র বিস্ফোরণ সুজাপুরের প্লাস্টিক কারখানায়
Earnbounty_300_250_0208.jpg
At the Grocery Shop
টাটকা আপডেট
কমেন্ট করুন
 

aamadermalda.in

সাবস্ক্রিপশন

স্বত্ব © ২০২০ আমাদের মালদা

  • Facebook
  • Twitter
  • Instagram
  • YouTube
  • Pinterest
  • RSS