বিজ্ঞাপন

ঘুরে দাঁড়াচ্ছে কোর্ট স্টেশন

ব্রিটিশ আমলের স্মৃতি নিয়ে টিমটিম করে চলছিল পুরাতন মালদার কোর্ট স্টেশন৷ ট্রেন বলতে সীমান্তের সিঙ্গাবাদগামী একটি প্যাসেঞ্জার, যার কামরার সংখ্যা মাত্র এক৷ ওই একটি কামরা নিয়েই ইঞ্জিন ছুটত সিঙ্গাবাদে৷ তারপর আবার কোর্ট স্টেশনে ঘরবাপসি৷ তবে সেই ট্রেনও আজ ইতিহাস৷ আদ্যিকালের সিগন্যালিং ব্যবস্থা আর নেই রাজ্যের আঙিনায়৷ কোর্ট স্টেশনের অবাধ বিচরণ একে ক্রমশ বিস্মৃতির অন্তরালে ঠেলে দিচ্ছিল।


এক সময়ে মালদা কোর্টে যাওয়ার পথ শুরু হত এই কোর্ট স্টেশন থেকেই৷ স্টেশনে নেমে হাঁটাপথে সদরঘাট৷ তারপর নৌকায় মহানন্দা পেরিয়ে ওপারের সদরঘাটে৷ সেখান থেকে হাঁটাপথে কোর্ট৷ কোর্ট স্টেশন হয়েই মালদার বুকে পদার্পণ করেছেন বহু মনীষী৷ অবশ্য ইতিহাসের এই অংশটা খুব একটা নাড়াচাড়া হয়নি৷

এবার সেই মৃতপ্রায় কোর্ট স্টেশনই নব কলেবরে সেজে উঠছে৷ ধীরে ধীরে ট্রেন বাড়ছে৷ বাড়ছে যাত্রীর সংখ্যাও৷ আর তার সঙ্গেই বাড়ছে স্টেশনের গুরত্বটাও৷



৪ জোড়া প্যাসেঞ্জার ট্রেন এখন পুরাতন মালদার কোর্ট স্টেশন হয়ে ছুটছে৷ এমনকি এই রুটে পণ্যবাহী মালগাড়ি সিঙ্গাবাদ হয়ে বাংলাদেশেও যায়

সম্প্রতি ডিজিট্যাল ইলেকট্রনিক ইনটারলকিং সিগন্যালিং ব্যবস্থা চালু হয়েছে মালদার এই ঐতিহ্যবাহী স্টেশনে৷ এর সঙ্গেই ব্রিটিশ যুগের সিগন্যালিং ব্যবস্থার অবসান হল৷ অত্যাধুনিক এই ব্যবস্থায় রেলকর্মীদের অনেক সুবিধা হবে বলে জানিয়েছেন কোর্ট স্টেশনের মাস্টার প্রদীপকুমার রায়৷ তিনি বলেন, ‘নতুন ব্যবস্থায় ট্রেন চলাচলে অনেক সুবিধা হবে’৷

বছর দু’য়েক আগে থেকে কোর্ট স্টেশনের গুরুত্ব ধীরে ধীরে বাড়তে শুরু করে৷ সিঙ্গাবাদগামী এক কামরার প্যাসেঞ্জার ট্রেন ছাড়া হাতেগোনা কটা মালগাড়িই এই স্টেশনমুখো হত৷ কিন্তু দিন বদলেছে৷ নতুন সূর্যোদয় হয়েছে কোর্ট স্টেশনে৷ এক কামরায় ট্রেন বন্ধ হয়ে গিয়েছে বটে, তবে ৪ জোড়া প্যাসেঞ্জার ট্রেন এখন পুরাতন মালদার কোর্ট স্টেশন হয়ে ছুটছে৷ এমনকি এই রুটে পণ্যবাহী মালগাড়ি সিঙ্গাবাদ হয়ে বাংলাদেশেও যায়৷ এখন হাজার কয়েক যাত্রীর দৈনিক আনাগোনা লেগে থাকে কোর্ট স্টেশনে৷ অর্থাৎ স্টেশনের গুরুত্ব যে বেড়েছে, সে কথা আর বলার অপেক্ষা রাখে না৷

কোর্ট স্টেশনের নতুন অফিস ভবনে বসানো হয়েছে ইলেকট্রনিক ইনটারলকিং সিগন্যালিং সিস্টেমের মনিটর৷ এই মনিটরে চোখ রাখলেই ট্রেনের অবস্থান বুঝতে পারবেন রেলকর্মীরা৷ শুধু তাই নয়, মনিটর থেকে সিগন্যালিং লাইটের গতিবিধি বোঝা যাবে৷ পশ্চিমদিকে মঙ্গলবাড়ি রেলওয়ে লেভেল ক্রসিং থেকে শুরু করে পূর্বদিকে শান্তিপুর পর্যন্ত ৫ কিলোমিটার দীর্ঘ রেললাইনে কালার লাইট সিগন্যাল বসানো হয়েছে৷

আগে ব্রিটিশ যুগের সিগন্যালিং ব্যবস্থার মাধ্যমে আপ ও ডাউন ট্রেনের যাতায়াত নিয়ন্ত্রণ করা হত৷ প্রকাণ্ড বড়ো দুটি নন্ ইলেকট্রিক ইনটারলকিং মেশিনের মাধ্যমে ট্রেনের গতিবিধি নিয়ন্ত্রণ করা হত৷ ব্রিটিশ আমলের ওই মেশিনপত্র চালানো মোটেও সহজ ছিল না৷ প্রাচীন এই সিগন্যালিং ব্যবস্থায় বহু সময় নষ্ট হত৷ তবে এখন আধুনিকতায় ছোঁয়া লেগেছে সিগন্যালিং ব্যবস্থায়৷ বেড়েছে ট্রেন৷ বেড়েছে যাত্রীও৷ পরিকাঠামোগত অনেক কিছুর পরিবর্তন এখনও প্রয়োজন৷

এক সময় পুরাতন মালদা থেকে ট্রেন ধরতে টাউন স্টেশনে সকলকেই আসতে হত৷ এখন চাকা ঘুরেছে৷ ইংরেজবাজার থেকেও এখন কোর্ট স্টেশনে অনেককে যেতে হচ্ছে ট্রেন ধরার জন্য৷ বাঁধ রোডে এলেই বোঝা যাবে কোর্ট স্টেশনে যাত্রীদের পৌঁছে দিতে সার দিয়ে দাঁড়িয়ে টোটো জানান দিচ্ছে, পুরাতন মালদার গুরুত্ব বাড়ছে৷

বিজ্ঞাপন

Malda Guinea House.jpg

পপুলার

1

শীতের বনভোজনে ইংরেজবাজারে নিষেধাজ্ঞা পুলিশের

Popular News

578

শীতের বনভোজনে ইংরেজবাজারে নিষেধাজ্ঞা পুলিশের
2

গ্রেফতার সাত ডাকাত, উদ্ধার হাঁসুয়া, লোহার রড

Popular News

646

গ্রেফতার সাত ডাকাত, উদ্ধার হাঁসুয়া, লোহার রড
3

মানিকচকে গঙ্গায় ডুবল ভেসেল, সার্চলাইট জ্বালিয়ে খোঁজ

Popular News

620

মানিকচকে গঙ্গায় ডুবল ভেসেল, সার্চলাইট জ্বালিয়ে খোঁজ
4

সুজাপুরে বিস্ফোরণস্থলে এলেন ফিরহাদ হাকিম, আসছে ফরেনসিক দল

Popular News

701

সুজাপুরে বিস্ফোরণস্থলে এলেন ফিরহাদ হাকিম, আসছে ফরেনসিক দল
5

তীব্র বিস্ফোরণ সুজাপুরের প্লাস্টিক কারখানায়

Popular News

1302

তীব্র বিস্ফোরণ সুজাপুরের প্লাস্টিক কারখানায়
Earnbounty_300_250_0208.jpg
At the Grocery Shop
টাটকা আপডেট
কমেন্ট করুন
 

aamadermalda.in

সাবস্ক্রিপশন

স্বত্ব © ২০২০ আমাদের মালদা

  • Facebook
  • Twitter
  • Instagram
  • YouTube
  • Pinterest
  • RSS