বিজ্ঞাপন

১৬ থেকে ২২- বইয়ের স্রোতে মালদা

প্রায় আড়াই দশকের সম্পর্ক শেষ৷ এক লহমায়৷ আর কলেজ মাঠ নয়, এবার শীতের সবচেয়ে বড়ো কার্নিভ্যাল মহানন্দার পাড়ে৷ সেখানেই আগামী ১৬ থেকে ২২ জানুয়ারি পর্যন্ত বসছে ৩০তম মালদা জেলা বইমেলার আসর৷ সেকথা প্রকাশ পেতেই প্রতিদিন, প্রতিনিয়ত জেলাবাসীর দীর্ঘশ্বাস ভেসে যাচ্ছে নদীর স্রোতে৷ কারণ, মালদা কলেজ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বইমেলা কর্তৃপক্ষের অলিখিত বিরোধ৷ খানিকটা সেই বিরোধের জেরেই খানিকটা পিছিয়ে আসতে বাধ্য হয়েছে বইমেলা কর্তৃপক্ষ৷


প্রথমে ঘোষণা করা হয়েছিল, ২২ থেকে ২৮ জানুয়ারি চলবে মালদা জেলা বইমেলা৷ কিন্তু আজ সন্ধেয় সেই দিনক্ষণ পরিবর্তিত হয়েছে৷

২২ থেকে ২৮ জানুয়ারি মালদা কলেজের বিভিন্ন ধরনের অনুষ্ঠান রয়েছে৷ সেই সব অনুষ্ঠানের কথা ভেবেই বইমেলার দিন পরিবর্তন করা হয়েছে৷ নতুন সূচি অনুযায়ী এবার মেলা শুরু হচ্ছে ১৬ জানুয়ারি৷


হাতে গোনা কয়েকটি স্টল নিয়ে ২৯ বছর আগে বৃন্দাবনি ময়দানে পথ চলা শুরু করেছিল মালদা জেলা বইমেলা৷

মেলার কলেবর বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে বাড়তে শুরু করে বুক স্টলের সংখ্যা৷ সেই সময় বইমেলাকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় মালদা কলেজ মাঠে৷ এরপর প্রায় আড়াই দশক ধরে সেই মাঠে হয়ে আসছিল জেলা বইমেলা৷ কিন্তু এই ইশ্যুতে গতবার থেকেই মালদা কলেজ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বইমেলা কমিটির বিরোধ শুরু হয়৷ প্রকাশ্যে কেউ মুখ না খুললেও জানা গিয়েছে, বইমেলা শেষে কলেজ মাঠের দশা বেহাল হয়ে পড়ে প্রতিবার৷ সেই মাঠ ঠিক করার জন্য কোনও অর্থ কলেজ কর্তৃপক্ষকে দিত না মেলা কর্তৃপক্ষ৷ সেই কারণে গতবারই কলেজ মাঠে বইমেলার আয়োজন করার ক্ষেত্রে প্রথমে বাধা দিয়েছিল কলেজ কর্তৃপক্ষ৷ তবে প্রশাসনিক সেই হস্তক্ষেপে সমস্যার সমাধান হয়৷ গতবছর সেখানেই অনুষ্ঠিত হয় ২৯তম জেলা বইমেলা৷ এবছর মালদা কলেজের প্ল্যাটিনাম জুবিলি৷ সেই অনুষ্ঠানের আয়োজনে নিজেদের মাঠকে সাজিয়ে তুলেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ৷ মাঠের চারপাশে লাগানো হয়েছে ফ্লাড লাইট৷ নৈশকালীন খেলাধুলোর জন্যই এই ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে কলেজ কর্তৃপক্ষ৷ আগামী ১০ থেকে ৩০ জানুয়ারি নিজেদের মাঠে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ৷ স্বাভাবিকভাবেই এবার বইমেলা কমিটিকে নিজেদের মাঠ দিতে নারাজ তারা৷

এই অবস্থায় ইংরেজবাজার পুরসভার ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের সদরঘাট এলাকায় মহানন্দা নদীর ধারে ৩০তম মালদা জেলা বইমেলার আয়োজন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মেলা কমিটি৷ কমিটির যুগ্ম সম্পাদক, ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর অম্লান ভাদুরি এপ্রসঙ্গে বলেন, মালদা কলেজ মাঠ শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত৷ সেখানে এই মেলার একটা ঐতিহ্য ছিল৷ বইমেলার জন্য কলেজ মাঠ পাওয়ার জন্য তাঁরা কলেজ কর্তৃপক্ষ এবং কলেজের প্রশাসক জেলাশাসকের কাছে আবেদন জানিয়েছিলেন৷ কিন্তু প্ল্যাটিনাম জুবিলির বিভিন্ন অনুষ্ঠান থাকায় কলেজ কর্তৃপক্ষ মাঠটি দিতে অস্বীকার করেছে৷ তাঁরা বৃন্দাবনি ময়দানেও মেলা করার কথা ভেবেছিলাম৷ কিন্তু সেখানে ৮০টির বেশি স্টল করা সম্ভব নয়৷ এরপর তাঁরা রামকৃষ্ণ মিশন বিবেকানন্দ বিদ্যামন্দিরের পাশের মাঠটিতে মেলা করার কথা ভাবেন৷ কিন্তু সেখানে জানুয়ারিতে ওই মাঠে সভা করার কথা রয়েছে খোদ মুখ্যমন্ত্রীর৷ স্বাভাবিকভাবেই সেই মাঠে মেলা করা সম্ভব হবে না৷ এরপরেই তাঁরা ১৩ নম্বর ওয়ার্ডে মহানন্দা নদীর ধারে শিবপুজোর মেলার মাঠটি পরিদর্শন করি৷ মাঠটি জেলাশাসককেও দেখানো হয়৷ মাঠটির পরিকাঠামো ভালো৷ পার্কিং-এর পর্যাপ্ত জায়গা রয়েছে৷ প্রতিবার বইমেলায় ২২৫টি স্টল হয়৷ তার মধ্যে ১৫০ থেকে ১৬০টি বুকস্টল, বাকিগুলি নন বুকস্টল৷ এই মাঠে তার থেকেও বেশি স্টল সেখানে করা যাবে৷ একটিই অসুবিধে, সম্পূর্ণ একটি নতুন জায়গায় এবার জেলা বইমেলা অনুষ্ঠিত হবে৷ তার জন্য প্রচারে জোর দিতে হবে৷ অম্লানবাবু আরও বলেন, মহানন্দার তীরে হলেও বইমেলায় দুর্ঘটনার কোনও আশঙ্কা নেই৷ কারণ, প্রতিবারের মতো এবারও তাঁরা মেলায় পর্যাপ্ত নিরাপত্তার ব্যবস্থা করবেন৷ মেলা প্রাঙ্গণকে টিনের বেড়া দিয়ে ঘিরে ফেলা হবে৷

তবে মহানন্দাপাড়ের বইমেলা মালদাবাসী কতটা আপন করে নেবেন তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে৷ তার আঁচ পাওয়া গিয়েছে জেন ওয়াইয়ের গলায়৷ মালদা কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী অর্পিতা দাস, লাবণী চৌধুরি সহ আরও কয়েকজন সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, জেলা বইমেলা আর কলেজ মাঠ সমার্থক৷ কলেজ মাঠে বইমেলায় আসা মালদাবাসীর অভ্যেস৷ সেই অভ্যেস বন্ধ করা যাবে না৷ এবার কলেজের প্ল্যাটিনাম জুবিলি৷ তার জন্য তাঁরা এ’বছর অন্য জায়গায় মেলার আয়োজন মেনে নিচ্ছেন৷ কিন্তু পরবর্তী সময়ে তা আর মানবেন না৷

এদিকে মালদা কলেজের প্ল্যাটিনাম জুবিলি অনুষ্ঠানের জন্য খানিকটা পিছিয়ে আসতে বাধ্য হয়েছে বইমেলা কর্তৃপক্ষ৷ আজ সন্ধেয় কলকাতা থেকে ফোনে অম্লানবাবু বলেন, ২২ থেকে ২৮ জানুয়ারি মালদা কলেজের বিভিন্ন ধরনের অনুষ্ঠান রয়েছে৷ সেই সব অনুষ্ঠানের কথা ভেবেই তাঁরা বইমেলার দিন পরিবর্তন করেছেন৷ নতুন সূচি অনুযায়ী এবার মেলা শুরু হচ্ছে ১৬ জানুয়ারি৷ চলবে ২২ জানুয়ারি পর্যন্ত৷ তাঁরা খোঁজ নিয়ে দেখেছেন, ওই সময় মালদা কলেজের তেমন কোনও বড়ো অনুষ্ঠান নেই৷ উত্তরবঙ্গের কোথাও সেই সময় বড়ো কোনও উৎসব নেই৷ সেকারণেই তাঁদের এই সিদ্ধান্ত৷ এনিয়ে তাঁরা ইতিমধ্যেই সমস্ত প্রকাশন সংস্থার সঙ্গে কথা বলেছেন৷


ছবিঃ মিসবাহুল হক #MaldaBookFair


বিজ্ঞাপন

Malda Guinea House.jpg

পপুলার

1

শীতের বনভোজনে ইংরেজবাজারে নিষেধাজ্ঞা পুলিশের

Popular News

666

শীতের বনভোজনে ইংরেজবাজারে নিষেধাজ্ঞা পুলিশের
2

গ্রেফতার সাত ডাকাত, উদ্ধার হাঁসুয়া, লোহার রড

Popular News

656

গ্রেফতার সাত ডাকাত, উদ্ধার হাঁসুয়া, লোহার রড
3

মানিকচকে গঙ্গায় ডুবল ভেসেল, সার্চলাইট জ্বালিয়ে খোঁজ

Popular News

621

মানিকচকে গঙ্গায় ডুবল ভেসেল, সার্চলাইট জ্বালিয়ে খোঁজ
4

সুজাপুরে বিস্ফোরণস্থলে এলেন ফিরহাদ হাকিম, আসছে ফরেনসিক দল

Popular News

702

সুজাপুরে বিস্ফোরণস্থলে এলেন ফিরহাদ হাকিম, আসছে ফরেনসিক দল
5

তীব্র বিস্ফোরণ সুজাপুরের প্লাস্টিক কারখানায়

Popular News

1305

তীব্র বিস্ফোরণ সুজাপুরের প্লাস্টিক কারখানায়
Earnbounty_300_250_0208.jpg
At the Grocery Shop
টাটকা আপডেট
কমেন্ট করুন
 

aamadermalda.in

সাবস্ক্রিপশন

স্বত্ব © ২০২০ আমাদের মালদা

  • Facebook
  • Twitter
  • Instagram
  • YouTube
  • Pinterest
  • RSS