বিজ্ঞাপন

ছেলে হারিয়েছেন, মেয়ে হারাতে চান না। এপিডিআর-এ দ্বারস্থ বাবা

দাদাকে খুন করে কিছুদিন জেলে থাকার পর অভিযুক্তরা আবার এলাকায় বুক ফুলিয়েই ঘুরছে। শুধু তাই নয়, অভিযোগ তুলে না নিলে খুনের হুমকিও আসছে। এব্যাপারে পুলিশকে জানানো হলেও, পুলিশ কোনও ব্যবস্থা নেয়নি বলেও অভিযোগ। এখানেই সীমাবদ্ধ নয়, এক অভিযুক্তের ছেলে এক শিক্ষাশ্রীকে ধর্ষণ করে খুনের হুমকি দিতে শুরু করেছে। অবশেষে মেয়েকে বাঁচাতে মানবাধিকার সংগঠন এপিডিআর-এর দ্বারস্থ হয়েছেন বাবা। বিষয়টি নিয়ে এগোচ্ছে এপিডিআর৷



হরিশ্চন্দ্রপুর এলাকায় বহুদিনের বসবাস চন্দন রজক (নাম পরিবর্তিত) ও তাঁর পরিবারের। কৃষিজমি, আমবাগান ছাড়াও বিভিন্ন নামী গাছের বাগানও রয়েছে। বর্তমানে তিনি এনআরইজিএস-এর সুপারভাইজার। তাঁর স্ত্রী সেখানকার স্বনির্ভর গোষ্ঠীর কো-অর্ডিনেটর। তাদের দুই ছেলে দুই মেয়ে। বড় ছেলে গত বছর উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা দেয়। কিন্তু ফল প্রকাশের আগেই সে খুন হয়ে যায়।

চন্দনবাবু জানান, ঘটনার দিন তাঁর ওই ১০ কাঠার বাগানে আগুন ধরিয়ে দেয় স্থানীয় কিছু দুষ্কৃতী৷ সেই সময় সেখানেই ছিল তাঁর ছেলে৷ সে তাদের বাধা দিতে যায়৷ তখন তারা তাঁর ছেলেকে পিটিয়ে ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে মেরে ফেলে৷ এই ঘটনায় তিনি ৯ জনের বিরুদ্ধে হরিশ্চন্দ্রপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন৷ অভিযুক্তদের মধ্যে কয়েকজন ধরা পড়ে৷ তাদের জেল হয়৷ কিন্তু বর্তমানে তারা সবাই জামিনে জেল থেকে ছাড়া পেয়েছে৷ এর আগে তাঁকে অভিযোগ তুলে নেওয়ার জন্য চাপ দিয়েছিল অভিযুক্তরা৷ সেই সময় তিনি থানায় গোটা ঘটনাটি জানান৷ কিন্তু পুলিশ সে’সময় কোনও ব্যবস্থা নেয়নি৷ অভিযুক্তদের ভয়ে তিনি ছোটো ছেলে আর নিজের বাড়িতে রাখার সাহস দেখাতে পারেননি৷ তাকে তিনি তার মামার বাড়িতে পাঠিয়ে দিয়েছেন৷ গত ৯ ফেব্রুয়ারি তাঁর ছোটো মেয়ে স্কুল যাচ্ছিল৷ সেই সময় তাকে আটকায় তাঁর ছেলে খুনের ঘটনায় অন্যতম এক অভিযুক্তের ছেলে৷ সে তাঁর মেয়েকে বলে, তিনি যদি অভিযোগপত্র তুলে না নেন, তবে সে তাকে ধর্ষণ করে খুন করে দিবে৷ এই ঘটনায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েন তিনি৷ সেদিনই তিনি গোটা ঘটনা জানিয়ে হরিশ্চন্দ্রপুর থানা ও মেয়ের স্কুলের প্রধান শিক্ষককে লিখিত অভিযোগ জানান৷ কিন্তু এখনও পর্যন্ত পুলিশ প্রশাসন কোনও ব্যবস্থা নেয়নি৷ তিনি এক ছেলেকে হারিয়েছেন, আর মেয়েকে হারাতে চান না৷ তাই তিনি এদিন এপিডিআর-এর দ্বারস্থ হয়েছেন৷

এই অবস্থায় কন্যাশ্রীর পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন এপিডিআর-এর মালদা জেলা সম্পাদক যীষ্ণু রায়চৌধুরি৷ তিনি এদিনই তাকে নিয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের সঙ্গে দেখা করতে যান৷ কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর সফর নিয়ে ব্যস্ত থাকায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তাঁদের সঙ্গে দেখা করতে পারেননি৷ ফোনে তাঁকে গোটা ঘটনা জানানো হয়েছে৷ এদিন জেলা চাইল্ড ওয়েলফেয়ার কমিটির সঙ্গেও দেখা করে কন্যাশ্রী৷ সেখান থেকে তাকে সব রকম সহযোগিতার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে৷

প্রশ্ন উঠেছে, মুখ্যমন্ত্রীর কন্যাশ্রী যখন বিশ্ব জুড়ে বন্দিত, তখন কেন পুলিশি নিষ্ক্রিয়তা এক কন্যাশ্রীর স্কুল যাওয়া বন্ধ করে দেবে? আগামীকালই মালদা সফরে আসছেন রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান৷ তার ঠিক আগে এই ঘটনা হরিশ্চন্দ্রপুর থানার পুলিশের ভূমিকা নিয়ে বড়োসড়ো প্রশ্ন তুলে দিল বলেই মনে করছেন সবাই৷

ছবিটি প্রতীকী সৌজন্যে পিক্স অ্যাবে। #Crime #DigitalDesk #Harishchandrapur

বিজ্ঞাপন

Valentines-day.jpg
পপুলার

1535

1

মালদায় পা রেখেই বিরোধী শূন্য করার হুঙ্কার ইয়াসিনের

মালদায় পা রেখেই বিরোধী শূন্য করার হুঙ্কার ইয়াসিনের

617

2

নেত্রীর আগেই নিজেকে প্রার্থী ঘোষণা সাবিত্রীর

নেত্রীর আগেই নিজেকে প্রার্থী ঘোষণা সাবিত্রীর

870

3

দেড়শো জননেতা সহ গেরুয়া শিবিরে তৃণমূলের মালদা জেলা সাধারণ সম্পাদক

দেড়শো জননেতা সহ গেরুয়া শিবিরে তৃণমূলের মালদা জেলা সাধারণ সম্পাদক

1804

4

এখন ১২ মাস কাজ করবে মালদার সিভিক ভলান্টিয়াররা

এখন ১২ মাস কাজ করবে মালদার সিভিক ভলান্টিয়াররা

639

5

কাল মালদায় মমতা, সভামঞ্চে উঠতে করোনা পরীক্ষা

কাল মালদায় মমতা, সভামঞ্চে উঠতে করোনা পরীক্ষা
Earnbounty_300_250_0208.jpg
At the Grocery Shop
টাটকা আপডেট

সাবস্ক্রিপশন

স্বত্ব © ২০২০ আমাদের মালদা

  • Facebook
  • Twitter
  • Instagram
  • YouTube
  • Pinterest
  • RSS