ফুলহর নদীর জল চরম বিপদসীমার অনেকটা উপর দিয়ে বইছে

ফুলহর নদীর জল চরম বিপদসীমার অনেকটা উপর দিয়ে বইছে

উত্তরের বন্যা পরিস্থিতি আরও প্রবল হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিচ্ছে৷ মালদা জেলাতেও বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে বলেই আশঙ্কা। চরম বিপদসীমা পেরিয়েছে ফুলহর নদীর জল৷ জেলার প্রধান দুই নদী গঙ্গা ও মহানন্দার জলও বাড়ছে দ্রুতগতিতে৷ এভাবে জল বাড়তে থাকলে এদিন রাতেই বাকি দুই নদীর জলও বিপদসীমা পেরিয়ে যাবে বলে মনে করছেন সাধারণ মানুষ। সমস্ত পরিস্থিতির উপর নজর রেখেছে জেলা প্রশাসনিক কর্তারা৷


ফুলহর নদীর জল চরম বিপদসীমার অনেকটা উপর দিয়ে বইছে

নেপাল ও উত্তরবঙ্গে প্রবল বর্ষণের জেরে উত্তরবঙ্গের নদীগুলিতে জলোচ্ছ্বাস দেখা দিয়েছে৷ মালদা ছাড়া উত্তরের বাকি জেলাগুলিতে শুরু হয়ে গিয়েছে বন্যা৷ এবার মালদার প্রধান নদীগুলির জলও বাড়তে শুরু করেছে৷ জেলা সেচ দপ্তর থেকে পাওয়া তথ্যে জানা গিয়েছে, এদিন ফুলহর নদীর জল চরম বিপদসীমার অনেকটা উপর দিয়ে বইছে ৷ এদিন ফুলহরের জলস্তর ২৯.৩৫ মিটার৷ তার চরম বিপদসীমা ২৮.৩৫ মিটার৷ অর্থাৎ এই মুহুর্তে ফুলহরের জল চরম বিপদসীমার ১ মিটার উপর দিয়ে বইছে৷ গত ২৪ ঘণ্টায় ফুলহরের জল বেড়েছে প্রায় ১৫০ মেন্টিমিটার৷ ভেঙে গিয়েছে বিহারের আজিমনগর বাঁধ৷ তাতে হরিশ্চন্দ্রপুর ২ ব্লকের বিস্তীর্ণ এলাকায় বন্যার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে৷ রতুয়া ১ ও হরিশ্চন্দ্রপুর ২ ব্লকের প্রায় ১৫টি গ্রামে এদিন ফুলহরের জল ঢুকতে শুরু করেছে৷ এর মধ্যে রয়েছে ইসলামপুর, গোবরা, সম্বলপুর, বঙ্কুটোলা, মেঘুটোলা, বোধনটোলা, আজিজটোলা, জঞ্জালিটোলা, মিয়াঁহাট, উত্তর ভাকুরিয়া প্রভৃতি৷ বিপন্ন হয়ে পড়েছেন প্রায় ২৫ হাজার মানুষ৷ তাঁরা নদীর বাঁধ ও উঁচু আমবাগানে আশ্রয় নিতে শুরু করেছেন৷ ফুলহরের জলের তোড়ে বিপন্ন গোবরা রিংবাঁধও৷ এই বাঁধটি ভেঙে গেলে আরও ৭টি গ্রাম বানভাসি হবে৷

এদিকে গঙ্গার জলও বিপদসীমা ছোঁয়া ছোঁয়া। এদিন গঙ্গার জলস্তর রয়েছে ২৪.২৪ মিটার৷ চরম বিপদসীমা ২৫.৩০ মিটার থেকে মাত্র ১.০৬ মিটার নীচে৷ মহানন্দা এদিন বইছে ২০.৬২ মিটার উচ্চতায়৷ মহানন্দার চরম বিপদসীমা ২১.৭৫ মিটার৷ প্রতিটি নদীর জলই ঘণ্টায় ঘণ্টায় বাড়ছে বলে দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে৷

এদিন ইসলামপুর ও গোবরায় রিংবাঁধ পরিদর্শনে যান চাঁচলের মহকুমাশাসক দেবাশিস চট্টোপাধ্যায়৷ তিনি জানান, হঠাৎ করে জলস্তর বৃদ্ধির জন্যই এই পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে৷ নদীর বাঁধ অক্ষত রাখতে সবরকম চেষ্টা চালানো হচ্ছে৷ অস্থায়ী ত্রাণ শিবির খোলা হয়েছে৷ যে কোনও বিপর্যয়ের জন্য তাঁরা তৈরি রয়েছেন৷ পর্যাপ্ত ত্রাণও মজুত রয়েছে৷ মানুষের চিন্তার কোনও কারণ নেই৷ তাঁরা পরিস্থিতির উপর নজর রাখছেন৷

ফুলহরের রিংবাঁধ প্রসঙ্গে জেলা সেচ দপ্তরের মহানন্দা এমব্যাংকমেন্ট ডিভিশনের এগজিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ার সুমিত বিশ্বাস বলেন, এতদিন ওই বাঁধের দায়িত্ব তাঁদের উপর থাকলেও বর্তমানে সেটি ব্লক ও পঞ্চায়েত প্রশাসনের কাঁধে বর্তেছে৷ বাঁধের পরিস্থিতি যে বিপজ্জনক, তা তাঁরা ব্লক ও পঞ্চায়েত প্রশাসনকে জানিয়ে দিয়েছেন৷ পরবর্তী পদক্ষেপ তারাই গ্রহণ করবে৷

গতকাল সন্ধে থেকেই অনেক দুর্গত মানুষ বিভিন্ন স্কুলে খোলা অস্থায়ী ত্রাণ শিবিরে আশ্রয় নিয়েছে৷ তাঁদেরই একজন বলেন ত্রাণ না পেয়ে এদিন তিনি নিজের ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন৷ আরেক দুর্গতর কথায়, প্রাণ বাঁচাতে হাতের কাছে যেসব ছোটোখাটো জিনিস পেয়েছেন সেগুলি নিয়েই ত্রাণ শিবিরে চলে এসেছেন৷

ছবিটি প্রতীকী।

হেডলাইন

প্রতিবেদন

মহানন্দার উজান স্রোতে ভবানীপুরে অশনির ঘণ্টা বাজছে

ফি বছর বর্ষায় বেড়ে যায় মহানন্দার জলস্তর। স্রোতের আওয়াজ ঘুমন্ত গ্রামবাসীদের কানের পর্দায় যেন ধাক্কা দেয়৷ এবারও বেড়েছে মহানন্দার জল৷ খানিকটা..

বিজ্ঞাপন

ফলো করুন
  • Facebook
  • Instagram
  • Twitter
  • YouTube
  • Pinterest

সব খবর ইনবক্সে!

প্রতিদিন খবরের আপডেট পেতে সাবস্ক্রাইব করুন

Aamader Malda Worldwide, the only media of your hometown and its thoughts. Here you can share and express your views and thoughts and you'll get here the essence of MALDAIYA CULT...

You can reach us via email or phone.  P +91 3512-260260  E response@aamadermalda.in

  • Facebook
  • Twitter
  • YouTube
  • Pinterest
  • Instagram
  • RSS

Copyright © 2020 Aamader Malda. All Rights Reserved.