বিজ্ঞাপন

ফুলহর নদীর জল চরম বিপদসীমার অনেকটা উপর দিয়ে বইছে

উত্তরের বন্যা পরিস্থিতি আরও প্রবল হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিচ্ছে৷ মালদা জেলাতেও বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে বলেই আশঙ্কা। চরম বিপদসীমা পেরিয়েছে ফুলহর নদীর জল৷ জেলার প্রধান দুই নদী গঙ্গা ও মহানন্দার জলও বাড়ছে দ্রুতগতিতে৷ এভাবে জল বাড়তে থাকলে এদিন রাতেই বাকি দুই নদীর জলও বিপদসীমা পেরিয়ে যাবে বলে মনে করছেন সাধারণ মানুষ। সমস্ত পরিস্থিতির উপর নজর রেখেছে জেলা প্রশাসনিক কর্তারা৷


ফুলহর নদীর জল চরম বিপদসীমার অনেকটা উপর দিয়ে বইছে

নেপাল ও উত্তরবঙ্গে প্রবল বর্ষণের জেরে উত্তরবঙ্গের নদীগুলিতে জলোচ্ছ্বাস দেখা দিয়েছে৷ মালদা ছাড়া উত্তরের বাকি জেলাগুলিতে শুরু হয়ে গিয়েছে বন্যা৷ এবার মালদার প্রধান নদীগুলির জলও বাড়তে শুরু করেছে৷ জেলা সেচ দপ্তর থেকে পাওয়া তথ্যে জানা গিয়েছে, এদিন ফুলহর নদীর জল চরম বিপদসীমার অনেকটা উপর দিয়ে বইছে ৷ এদিন ফুলহরের জলস্তর ২৯.৩৫ মিটার৷ তার চরম বিপদসীমা ২৮.৩৫ মিটার৷ অর্থাৎ এই মুহুর্তে ফুলহরের জল চরম বিপদসীমার ১ মিটার উপর দিয়ে বইছে৷ গত ২৪ ঘণ্টায় ফুলহরের জল বেড়েছে প্রায় ১৫০ মেন্টিমিটার৷ ভেঙে গিয়েছে বিহারের আজিমনগর বাঁধ৷ তাতে হরিশ্চন্দ্রপুর ২ ব্লকের বিস্তীর্ণ এলাকায় বন্যার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে৷ রতুয়া ১ ও হরিশ্চন্দ্রপুর ২ ব্লকের প্রায় ১৫টি গ্রামে এদিন ফুলহরের জল ঢুকতে শুরু করেছে৷ এর মধ্যে রয়েছে ইসলামপুর, গোবরা, সম্বলপুর, বঙ্কুটোলা, মেঘুটোলা, বোধনটোলা, আজিজটোলা, জঞ্জালিটোলা, মিয়াঁহাট, উত্তর ভাকুরিয়া প্রভৃতি৷ বিপন্ন হয়ে পড়েছেন প্রায় ২৫ হাজার মানুষ৷ তাঁরা নদীর বাঁধ ও উঁচু আমবাগানে আশ্রয় নিতে শুরু করেছেন৷ ফুলহরের জলের তোড়ে বিপন্ন গোবরা রিংবাঁধও৷ এই বাঁধটি ভেঙে গেলে আরও ৭টি গ্রাম বানভাসি হবে৷

এদিকে গঙ্গার জলও বিপদসীমা ছোঁয়া ছোঁয়া। এদিন গঙ্গার জলস্তর রয়েছে ২৪.২৪ মিটার৷ চরম বিপদসীমা ২৫.৩০ মিটার থেকে মাত্র ১.০৬ মিটার নীচে৷ মহানন্দা এদিন বইছে ২০.৬২ মিটার উচ্চতায়৷ মহানন্দার চরম বিপদসীমা ২১.৭৫ মিটার৷ প্রতিটি নদীর জলই ঘণ্টায় ঘণ্টায় বাড়ছে বলে দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে৷

এদিন ইসলামপুর ও গোবরায় রিংবাঁধ পরিদর্শনে যান চাঁচলের মহকুমাশাসক দেবাশিস চট্টোপাধ্যায়৷ তিনি জানান, হঠাৎ করে জলস্তর বৃদ্ধির জন্যই এই পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে৷ নদীর বাঁধ অক্ষত রাখতে সবরকম চেষ্টা চালানো হচ্ছে৷ অস্থায়ী ত্রাণ শিবির খোলা হয়েছে৷ যে কোনও বিপর্যয়ের জন্য তাঁরা তৈরি রয়েছেন৷ পর্যাপ্ত ত্রাণও মজুত রয়েছে৷ মানুষের চিন্তার কোনও কারণ নেই৷ তাঁরা পরিস্থিতির উপর নজর রাখছেন৷

ফুলহরের রিংবাঁধ প্রসঙ্গে জেলা সেচ দপ্তরের মহানন্দা এমব্যাংকমেন্ট ডিভিশনের এগজিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ার সুমিত বিশ্বাস বলেন, এতদিন ওই বাঁধের দায়িত্ব তাঁদের উপর থাকলেও বর্তমানে সেটি ব্লক ও পঞ্চায়েত প্রশাসনের কাঁধে বর্তেছে৷ বাঁধের পরিস্থিতি যে বিপজ্জনক, তা তাঁরা ব্লক ও পঞ্চায়েত প্রশাসনকে জানিয়ে দিয়েছেন৷ পরবর্তী পদক্ষেপ তারাই গ্রহণ করবে৷

গতকাল সন্ধে থেকেই অনেক দুর্গত মানুষ বিভিন্ন স্কুলে খোলা অস্থায়ী ত্রাণ শিবিরে আশ্রয় নিয়েছে৷ তাঁদেরই একজন বলেন ত্রাণ না পেয়ে এদিন তিনি নিজের ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন৷ আরেক দুর্গতর কথায়, প্রাণ বাঁচাতে হাতের কাছে যেসব ছোটোখাটো জিনিস পেয়েছেন সেগুলি নিয়েই ত্রাণ শিবিরে চলে এসেছেন৷

ছবিটি প্রতীকী।

বিজ্ঞাপন

Valentines-day.jpg
পপুলার

826

1

দেড়শো জননেতা সহ গেরুয়া শিবিরে তৃণমূলের মালদা জেলা সাধারণ সম্পাদক

দেড়শো জননেতা সহ গেরুয়া শিবিরে তৃণমূলের মালদা জেলা সাধারণ সম্পাদক

1791

2

এখন ১২ মাস কাজ করবে মালদার সিভিক ভলান্টিয়াররা

এখন ১২ মাস কাজ করবে মালদার সিভিক ভলান্টিয়াররা

627

3

কাল মালদায় মমতা, সভামঞ্চে উঠতে করোনা পরীক্ষা

কাল মালদায় মমতা, সভামঞ্চে উঠতে করোনা পরীক্ষা

595

4

কালিয়াচকে সালিশি সভায় চলল গুলি, মৃত এক

কালিয়াচকে সালিশি সভায় চলল গুলি, মৃত এক

40642

5

মধুচক্রের পাশাপাশি ব্লু ফিল্‌ম তৈরির অভিযোগ মালদায়

মধুচক্রের পাশাপাশি ব্লু ফিল্‌ম তৈরির অভিযোগ মালদায়
Earnbounty_300_250_0208.jpg
At the Grocery Shop
টাটকা আপডেট

সাবস্ক্রিপশন

স্বত্ব © ২০২০ আমাদের মালদা

  • Facebook
  • Twitter
  • Instagram
  • YouTube
  • Pinterest
  • RSS