বিজ্ঞাপন

অপহরণের চেষ্টা বানচাল, অপরহরণকারী গ্রেফতার

অস্থায়ী ব্যবসায়ী ও সাধারণ মানুষের তৎপরতায় অপহরণের হাত থেকে রক্ষা পেলেন এক ব্যক্তি। খবর পেয়ে এক অপরহরণকারী ও গাড়ি চালককে আটক করেছে ইংরেজবাজার থানার পুলিশ। আক্রান্ত ব্যক্তিকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে গিয়েছে পুলিশ। এদিন ঘটনাটি ঘটেছে মালদা টাউন হলের সামনে। ঘটনার খবর জানাজানি হতেই এলাকায় বেশ চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে।



আক্রান্ত ব্যক্তির নাম রতন বল্লভ। বাড়ি বামনগোলা থানার আশ্রমপুর গ্রামে। তিনি স্থানীয় পাকুয়াহাটের বাসিন্দা হরলাল বিশ্বাসের সঙ্গে গোরুর ব্যবসা করতেন। বছর তিনেক আগে সেই ব্যবসা ছেড়ে বর্তমানে তিনি মুম্বইয়ে ব্যবসা করেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, এদিন দুপুরে টাউন হলের সামনে একটি দোকানে খাওয়ার খাচ্ছিলেন রতনবাবু। সেই সময় সেখানে একটি ছোটো গাড়ি এসে দাঁড়ায়। গাড়ি থেকে ৬-৭ জন নেমে এসেই তারা রতনবাবুকে টেনে হিঁচড়ে গাড়িতে তোলার চেষ্টা করে। সেই সময় রতনবাবু চিৎকার করে সাহায্য চাইতে থাকেন। তাঁর চিৎকারে স্থানীয় লোকজন সবাই তাঁকে বাঁচাতে ছুটে যায়। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে কিছু অপহরণকারী পালাতে সক্ষম হলেও ধরা পড়ে যায় গাড়ির চালক সহ এক অপহরণকারী। সেখানে কর্মরত সিভিক ভলান্টিয়ারের মাধ্যমে খবর পৌঁছায় ইংরেজবাজার থানায়। পরে ইংরেজবাজার থানার সাদা পোশাকের পুলিশ তিনজনকেই থানায় নিয়ে যায়।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত সিভিক ভলান্টিয়ার বাপন সাহা জানান, প্রকাশ্য অপহরণের চেষ্টা হয় এদিন। স্থানীয় মানুষ ও আক্রান্তের চিৎকারে তিনি ছুটে যান। ছুটে যান সেখানে ডিউটিতে থাকা আরও দুজন সিভিক ভলান্টিয়ার। যদিও ততক্ষণে পালিয়ে যায় অপহরণকারী দলের ৫-৬ জন। তবে একজন ধরা পড়ে যায়। ধরা পড়ে যায় তাদের গাড়ির চালকও। তাঁরা সঙ্গে সঙ্গে গোটা ঘটনা থানায় জানিয়ে দেন। পরে ইংরেজবাজার থানার সাদা পোশাকের পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তিনজনকেই থানায় নিয়ে যায়।

রতনবাবু বলেন, এই লোকদের তিনি চেনেন না। তারা তাঁকে অপহরণ করার চেষ্টা করছিল। তারা বলছিল, তিনি নাকি তাদের একজনের ভাই আকবর হোসেনের কাছ থেকে টাকা ধার নিয়েছিলেন। কিন্তু তিনি গোরুর ব্যবসার জন্য হরলাল বিশ্বাসের কাছে লাখ খানেক টাকা ধার নেন। ব্যবসায় ক্ষতি হওয়ায় তিনি সেই টাকা শোধ দিতে পারেননি। টাকার আশাতেই বছর তিনেক আগে তিনি মুম্বই পাড়ি দেন। এদিন তিনি নিজের কাজে আদালতে এসেছিলেন। তিনি যখন রাস্তার ধারে এক দোকানে খাবার খাচ্ছিলেন, তখন একটি গাড়ি তাঁর পাশে এসে থামে। গাড়ি থেকে ৮ জন নেমে আসে। তাঁকে বলে, তিনি নাকি একজনের ভাইয়ের কাছ থেকে সাড়ে ৩ লক্ষ টাকা ধার নিয়েছেন। কিন্তু তিনি এদের চেনেনই না। টাকা ধার নেওয়া দূরের কথা। স্থানীয় মানুষের তৎপরতায় এদিন তিনি প্রাণে বেঁচে গিয়েছেন। তা না হলে এরা তাঁকে খুন করে ফেলত।

এদিকে আটক হওয়া অপহরণকারী দলের সদস্য আনোয়ার হোসেন বলে, তার বাড়ি গাজোল থানার দলিলপুর গ্রামে। তার বক্তব্য, গোরুর ব্যবসা করার জন্য এই ব্যক্তি তার ভাইয়ের কাছ থেকে সাড়ে ৩ লক্ষ টাকা ঋণ নেয়। কিন্তু সেই টাকা সে ফেরত দিচ্ছে না। তাই আজ তারা ওই ব্যক্তিকে নিয়ে যেতে এসেছিল। বকেয়া টাকা উদ্ধার করাই ছিল তাদের উদ্দেশ্য। এদিকে আটক হওয়া গাড়িচালক শেখ রেজাউল বলে, সে এসব বিষয় কিছুই জানে না। এদিন গাজোলের মহারাজপুর গ্রাম থেকে সে কয়েকজনকে ভাড়া নিয়ে মালদায় আসে। এই যুবকরা তার গাড়ি ভাড়া নিয়েছিল। এর বেশি সে আর কিছু জানে না।

ইংরেজবাজার থানার পুলিশ জানিয়েছে, আটক তিনজনকে আপাতত তাঁদের জেরা করা হচ্ছে। এই ঘটনায় এখনও কোনও লিখিত অভিযোগ জমা হয়নি। অভিযোগ হলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

প্রতীকী ছবি।

বিজ্ঞাপন

MGH.jpg
পপুলার
1

চাল পাচার করতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়ল পুরকর্মী

চাল পাচার করতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়ল পুরকর্মী
2

তিন দিনে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত দশ, শহরে খোলা শপিংমল

তিন দিনে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত দশ, শহরে খোলা শপিংমল
3

ভোট পরবর্তী হিংসায় উত্তপ্ত মালদার নেতাজি কলোনি, মোতায়েন পুলিশ

ভোট পরবর্তী হিংসায় উত্তপ্ত মালদার নেতাজি কলোনি, মোতায়েন পুলিশ
4

চকলেটের প্রলোভন দিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ, গ্রেফতার ব্যক্তি

চকলেটের প্রলোভন দিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ, গ্রেফতার ব্যক্তি
5

পরীক্ষায় প্রতিদিন প্রায় ৫০ শতাংশ পজিটিভ, বেড বাড়ানো হচ্ছে মেডিকেলে

পরীক্ষায় প্রতিদিন প্রায় ৫০ শতাংশ পজিটিভ, বেড বাড়ানো হচ্ছে মেডিকেলে
Earnbounty_300_250_0208.jpg