বিজ্ঞাপন

পরীক্ষায় নজরদারির খরচ ১ কোটি!

পরীক্ষায় নজরদারির খরচ প্রায় ১ কোটি ৫ লক্ষ টাকা!‌ অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি। এমন বিপুল অংকের বিল এসেছে গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে। যা দেখে চক্ষু চড়কগাছ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষেরও। এই বিপুল অংকের বিল মেটানো নিয়ে সমস্যায় পড়েছে কর্তৃপক্ষও। গোটা বিষয়টি উচ্চশিক্ষা দপ্তরকে জানাচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

উল্লেখ্য, দায়িত্বে থাকাকালীন নকল রুখতে এবং পরীক্ষায় স্বচ্ছতা আনতে বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনস্থ কলেজগুলিতে ওয়েব ক্যামেরা বসিয়ে ই-‌মনিটারিং ব্যবস্থা চালু করেছিলেন তৎকালীন উপাচার্য গোপালচন্দ্র মিশ্র। মালদা সহ দুই দিনাজপুরের ১৯টি কলেজে ই‌-‌মনিটারিং ব্যবস্থা চালু করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। তার জন্য ভাড়া নেওয়া হয়েছিল ক্যামেরা। ২০১৭ সালের মার্চ মাস থেকে শুরু হয় প্রথম, দ্বিতীয় এবং তৃতীয় বর্ষের পরীক্ষা। সেই পরীক্ষায় ক্যামেরা বসিয়ে ই-‌মনিটারিং ব্যবস্থা চালু করা হয়েছিল পরীক্ষাকেন্দ্রে নজরদারি চালানোর জন্য। তার জন্য কন্ট্রোলার বিভাগে বসানো হয় জায়ান্ট স্ক্রিন ও কন্ট্রোল সার্ভার। ২০১৭ সালের ২০ মার্চ থেকে ১ এপ্রিল, ১৩ দিন ধরে চলে তৃতীয় বর্ষের পরীক্ষা এবং ২৮ এপ্রিল থেকে ১৩ জুন, ৪৫ দিন ধরে চলে প্রথম ও দ্বিতীয় বর্ষের পরীক্ষা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার সাধনকুমার সাহা বলেন, ‘‌ওই সময় বিশ্ববিদ্যালয়ে অস্থায়ী কন্ট্রোলারের দায়িত্বে ছিলেন সনাতন দাস। তাঁর সময়েই পরীক্ষাকেন্দ্রে ক্যামেরা ভাড়া নিয়ে ই-‌মনিটারিং ব্যবস্থা চালু হয়েছিল। ই-‌মনিটারিং ব্যবস্থা চালু করার জন্য সরকারি নিয়ম মানা হয়নি। কোনোরকম টেন্ডার হয়নি। অর্থ দপ্তরের নিয়মকেও বুড়ো আঙুল দেখানো হয়েছে। ২৯ লক্ষ টাকার বিল আগেই মিটিয়ে দিয়েছিলেন প্রাক্তন উপাচার্য গোপালচন্দ্র মিশ্র। প্রথম এবং দ্বিতীয় বর্ষের জন্য বিল জমা পড়েছে ৭৪ লক্ষ টাকা। এই বিপুল অংকের বিল নিয়ে আমরা সকলেই চিন্তিত। কারণ, স্থায়ীভাবে ই-‌মনিটারিং ব্যবস্থা চালু হলেও এই বিপুল অংকের টাকা খরচ হওয়ার কথা না। সবই ছিল এজেন্সির কাছ থেকে ভাড়া নেওয়া। আমরা গোটা বিষয়টি উচ্চশিক্ষা দপ্তরে পাঠাচ্ছি। বর্তমান উপাচার্যকেও বিষয়টি জানানো হয়েছে।’‌

কন্ট্রোলার বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, পরীক্ষা পদ্ধতিতে স্বচ্ছতা আনার জন্য অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ে যে নিয়ম রয়েছে, সেই নিয়ম মেনেই কাজ করছিল গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়। পরীক্ষা চলাকালীন বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি টিম প্রতিদিনই পরীক্ষাকেন্দ্রে পরিদর্শন করছিল। তার জন্য খরচ হচ্ছিল মাত্র ৭-‌৮ হাজার টাকা। অথচ ই-মনিটারিংয়ের নামে সরকারের কয়েক লক্ষ টাকা কী করে খরচ হল, তা নিয়ে ধন্ধে পড়েছে কন্ট্রোলার বিভাগ। ই-‌মনিটারিং চালু হওয়ার আগে বলা হয়েছিল ১২ লক্ষ টাকা খরচ পড়বে। অথচ সেই খরচ দেখানো হচ্ছে কোটি টাকার ওপর।

উপাচার্য স্বাগত সেন বলেন, ‘‌বিষয়টি উচ্চশিক্ষা দপ্তরকে আমরা জানাচ্ছি। এসব হয়েছে আমার দায়িত্ব নেওয়ার অনেক আগে।’‌

ছবিটি প্রতীকী।

#DigitalDesk #Education

বিজ্ঞাপন

Netaji.jpg
পপুলার
1

শহরের জঞ্জাল পরিষ্কার হবে কীভাবে? প্রশ্ন বঙ্গরত্নের

569

শহরের জঞ্জাল পরিষ্কার হবে কীভাবে? প্রশ্ন বঙ্গরত্নের
2

জেলায় দ্বিতীয় বইমেলার প্রস্তুতি শুরু

3025

জেলায় দ্বিতীয় বইমেলার প্রস্তুতি শুরু
3

স্থান বদলে শুরু হল মালদা বইমেলা, চলবে ২৪ জানুয়ারি পর্যন্ত

3295

স্থান বদলে শুরু হল মালদা বইমেলা, চলবে ২৪ জানুয়ারি পর্যন্ত
4

মালদায় শুরু করোনা টিকাকরণ, প্রথম টিকা পেলেন কৃষ্ণা

634

মালদায় শুরু করোনা টিকাকরণ, প্রথম টিকা পেলেন কৃষ্ণা
5

অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে মালদায় এল করোনা ভ্যাকসিন

1194

অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে মালদায় এল করোনা ভ্যাকসিন
Earnbounty_300_250_0208.jpg
At the Grocery Shop
টাটকা আপডেট

সাবস্ক্রিপশন

স্বত্ব © ২০২০ আমাদের মালদা

  • Facebook
  • Twitter
  • Instagram
  • YouTube
  • Pinterest
  • RSS