মদ্যপ স্বামীকে পুড়িয়ে মারল স্ত্রী

মদ্যপ স্বামীকে আগুনে পুড়িয়ে খুন করার অভিযোগ উঠল স্ত্রী’র বিরুদ্ধে৷ ঘটনাটি ঘটেছে মালদা শহরের মহেশপুর বাগানপাড়া এলাকায়৷ আশঙ্কাজনক অবস্থায় স্থানীয় মানুষজন অগ্নিদগ্ধ স্বামীকে মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানেই মৃত্যু হয় তাঁর৷ এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ইংরেজবাজার থানায় কোনও অভিযোগ দায়ের না হলেও ঘটনা নিয়ে খোঁজখবর নিতে শুরু করেছে পুলিশ৷ যদিও নিজের বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন স্ত্রী৷



ইংরেজবাজার পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের অন্তর্ভুক্ত মহেশপুর বাগানপাড়া৷ সেখানে স্ত্রী ও তিন ছেলেমেয়ে নিয়ে বসবাস করতেন সোনা মণ্ডল৷ বয়স ৩৬৷ শহরের রাস্তায় টোটো চালিয়ে সংসার প্রতিপালন করতেন তিনি৷ ২০০৫ সালে তাঁর বিয়ে হয় গায়ত্রী মণ্ডলের সঙ্গে৷ কিন্তু দীর্ঘদিন ধরেই সোনাবাবুর পরিবারে অশান্তি চলছিল বলে স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন৷

স্থানীয়দের অভিযোগ, সোনাবাবুর সংসারে ধারাবাহিক অশান্তির জন্য তাঁর স্ত্রী গায়ত্রীদেবীই দায়ী৷ গায়ত্রীদেবীর ব্যবহার ভালো নয়৷ এলাকার লোকজনের সঙ্গেও তাঁর ভালো সম্পর্ক নেই৷ কথায় কথায় ঝামেলা করা তাঁর স্বভাব৷ তাঁর স্বভাবে অতিষ্ঠ হয়েই নিয়মিত মদ্যপান শুরু করেন সোনাবাবু৷ গতকাল রাতেও তাঁদের বাড়িতে ঝামেলা হয়৷ স্ত্রী’র সঙ্গে প্রবল বচসায় জড়িয়ে পড়েন তিনি৷ ভাঙচুর করেন বাড়ির আসবাবপত্রও৷ এরপরেই গায়ত্রী স্বামীর গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়৷ সোনাবাবুর আর্ত চিৎকারে এলাকার লোকজন তাঁদের বাড়িতে ছুটে যান৷ গুরুতর অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় সোনাবাবুকে উদ্ধার করে স্থানীয়রাই মালদা মেডিকেলে নিয়ে যান৷ হাসপাতালে যাওয়ার পথে সোনাবাবু জানান, গায়ত্রীই তাঁর গায়ে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে৷ হাসপাতালে ভর্তির কিছুক্ষণ পরেই মৃত্যু হয় সোনাবাবুর৷ মালদা মেডিকেল সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিন সোনা মণ্ডলের মৃতদেহের ময়নাতদন্ত করা হবে৷

এদিকে গায়ত্রীদেবীর বক্তব্য, গতকাল রাতে পুরোপুরি মদ্যপ অবস্থায় ঘরে ফিরে সোনাবাবু তাঁর উপর অত্যাচার শুরু করেন৷ তাঁকে বেধড়ক মারধর করেন তিনি৷ ভেঙে ফেলেন বাড়ির চেয়ার-টেবিলও৷ মারের চোটে তিনি চিৎকার চেঁচামেচি শুরু করলেও কেউ তাঁকে বাঁচাতে এগিয়ে আসেনি৷ সেই ঘটনার পর তিনি ছেলেমেয়ে নিয়ে ঘুমিয়ে যান৷ রাতে তাঁর স্বামী নিজেই নিজের গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন৷ পরে আগুনের জ্বালায় তিনি চিৎকার শুরু করলে ঘুম ভাঙে তাঁর৷ সেই দৃশ্য দেখে তিনিও চিৎকার শুরু করেন৷ এরপরেই প্রতিবেশীরা তাঁদের বাড়িতে ছুটে আসেন৷ তাঁর বিরুদ্ধে যে অভিযোগ তোলা হচ্ছে তা পুরোপুরি মিথ্যে৷

এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত পুলিশে কোনও অভিযোগ দায়ের না হলেও ঘটনার খোঁজ নিতে শুরু করেছে ইংরেজবাজার থানার পুলিশ৷ পুলিশ জানিয়েছে, আপাতত তারা ময়নাতদন্তের রিপোর্টের অপেক্ষায় রয়েছে৷ তার মধ্যে অভিযোগ দায়ের হলেই আইনগত পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে৷

প্রতীকী ছবি সৌজন্যে পিক্স অ্যাবে।


1
রাতে 'কুপিয়ে' খুন হলেন দু’জন, মোতায়েন বিশাল পুলিশবাহিনী

Popular News

818

2
কফিনবন্দি দেহ ফিরল মালদায়, স্যালুট জানিয়ে শেষ শ্রদ্ধা পুলিশের

Popular News

904

3
গঙ্গায় মিশে যেতে পারে ফুলহর, বাজছে বিপদ ঘণ্টা

Popular News

862

4
আত্মীয়ের বাড়িতে এসে গ্রেফতার বাংলাদেশি

Popular News

1340

5
বাংলাদেশে পণ্য পাঠানো বন্ধ করে দিলেন মহদীপুরের এক্সপোর্টার্সরা

Popular News

907

পপুলার

বিজ্ঞাপন

টাটকা আপডেট
 

aamadermalda.in

আমাদের মালদা

সাবস্ক্রিপশন

যোগাযোগ

স্বত্ব © ২০২০ আমাদের মালদা

  • Facebook
  • Twitter
  • Instagram
  • YouTube
  • Pinterest
  • RSS