বিজ্ঞাপন

টাউন স্কুলে টেস্টে বসতে দেওয়ার দাবিতে প্রধান শিক্ষক ঘেরাও

মালদা শহরের টাউন হাইস্কুলে পরীক্ষায় বসতে দেওয়ার দাবিতে স্কুলের প্রধান শিক্ষককে ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখাল পড়ুয়ারা৷ ছেলেদের বিক্ষোভে শামিল হলেন অভিভাবিকরাও৷ যদিও প্রধান শিক্ষক সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, ওই ছাত্ররা বছরে ২০ দিনও ক্লাসে আসেনি৷ নিয়ম মেনেই তাদের পরীক্ষায় বসতে না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷ এক্ষেত্রে তাঁর কিছু করার নেই৷

টাউন হাইস্কুলে আগামীকাল থেকে শুরু হচ্ছে উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের টেস্ট পরীক্ষা৷ ঠিক তার আগের দিনই পরীক্ষায় বসতে দেওয়ার দাবিতে প্রধান শিক্ষককে ঘেরাও করে রেখেছে কিছু পড়ুয়া৷ বিক্ষোভে সঙ্গে রয়েছেন তাদের অভিভাবকরাও৷ বিক্ষোভরত এক ছাত্র শুভাশিস দত্তের বক্তব্য, তারা দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র৷ প্রথম দুটি ইউনিট পরীক্ষাতে তাদের স্কুলে উপস্থিতির হার ঠিক ছিল৷ পরে বিভিন্ন সমস্যায় তাদের অনেকে স্কুলে আসতে পারেনি৷ যেসব ছাত্রদের উপস্থিতির হার কম, তাদের কাছ থেকে ২০০-৩০০ টাকা করে ফাইন নিয়ে পরীক্ষায় বসতে দিচ্ছে স্কুল কর্তৃপক্ষ৷ কিন্তু তাদের ২২ জনকে পরীক্ষায় বসতে দেওয়া হবে না বলে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে৷ তাদের সবাইকে পরীক্ষায় বসতে দেওয়া সহ যাদের কাছ থেকে ফাইন আদায় করা হয়েছে, সেই টাকা ফেরতের দাবিতে এদিন তারা প্রধান শিক্ষককে ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে৷ যতক্ষণ না তাদের দাবি পূরণ হচ্ছে, ততক্ষণ তাদের বিক্ষোভ চলতে থাকবে৷



এক অভিভাবিকা সীমা দত্ত বলেন, স্কুল কর্তৃপক্ষ তাঁদের ছেলেদের সঙ্গে বিরুদ্ধাচরণ করছে৷ প্রথমদিকে এই ছাত্রদের স্কুলে উপস্থিতির হার ঠিক ছিল৷ সম্প্রতি মালদায় ডেঙ্গি ভয়াবহ আকার নিয়েছে৷ অনেক ছাত্র ডেঙ্গিতে আক্রান্ত হয়েছে৷ জ্বর ছাড়ার পরেও তারা দুর্বল৷ স্কুলে আসতে পারেনি৷ অথচ সেসব বিষয় মাথায় না রেখেই স্কুল কর্তৃপক্ষ এই সব ছাত্রদের পরীক্ষায় বসতে দেবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে৷ তাঁদের ছেলেদের ভবিষ্যত রয়েছে৷ সেকারণে তাঁরাও এদিন প্রধান শিক্ষককে ঘেরাও করে রেখেছেন৷ তাঁদের দাবি, স্কুলের সব ছাত্রকেই টেস্ট পরীক্ষায় বসতে দিতে হবে৷ একই সঙ্গে যাদের কাছ থেকে ফাইন আদায় করা হয়েছে, তাদের টাকা ফেরত দিতে হবে৷ তা না হলে তাঁরা এই বিক্ষোভ চালিয়ে যাবেন৷

প্রধান শিক্ষক বিশ্ববিকাশ দত্ত অবশ্য সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, যে সব ছাত্র স্কুলে ২৫ শতাংশ দিন উপস্থিত থাকেনি, তাদের পরীক্ষা. বসতে দেওয়ার প্রশ্নই নেই৷ তিনি বলেন, দ্বাদশ শ্রেণিতে এমনিতেই পড়াশোনার জন্য থাকে ৬ মাস৷ তার মধ্যে ২ মাস ছুটিতেই কেটে যায়৷ নিয়ম অনুযায়ী, প্রত্যেক ছাত্রকে অন্তত ৭০ শতাংশ দিন ক্লাসে উপস্থিত থাকতে হবে৷ কোনও ছাত্র ৫০ থেকে ৭০ শতাংশ দিন ক্লাসে উপস্থিত থাকলে ফাইন দিয়ে সে পরীক্ষায় বসতে পারে৷ স্কুল কাউন্সিলের বৈঠকেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷ এবার তাঁদের স্কুলের দ্বাদশ শ্রেণির অনেক ছাত্ররই উপস্থিতির হার কম রয়েছে৷ তাই কাউন্সিলের বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, অন্তত ২৫ শতাংশ দিন ক্লাসে উপস্থিত থাকলে কোনও ছাত্রকে ফাইন দিয়ে পরীক্ষায় বসতে দেওয়ার সুযোগ করে দেওয়া হবে৷ সেই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কোনও ছাত্র বছরে মাত্র ২০ দিন ক্লাস করলেই ২৫ শতাংশ উপস্থিতি হয়৷ কিন্তু এই ছাত্ররা সেই ক’দিনও ক্লাস করেনি৷ ফলে তাদের পরীক্ষায় বসতে দেওয়ার কোনও প্রশ্নই ওঠে না৷ এবার তাঁদের স্কুলে দ্বাদশ শ্রেণিতে মোট ছাত্র সংখ্যা ১৩৩৷ তার মধ্যে ১২৮ জনকে পরীক্ষায় বসার অনুমতি দেওয়া হয়েছে৷ বাকি ৫ ছাত্রই এদিন স্কুলে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে৷ তাদের সঙ্গে রয়েছেন অভিভাবকরাও৷ ছাত্ররা দাবি করছে, এবার দ্বাদশ শ্রেণিতে নাকি ১৫৬ জন পড়ুয়া রয়েছে৷ সেটা ঠিক নয়৷ এদের মধ্যে অনেকেই স্কুল ছেড়ে দিয়েছে৷ আর বিক্ষোভ নিয়ে তিনি চিন্তিত নন৷ এর আগেও এমন ঘটনা স্কুলে ঘটেছে৷ এমনকি বিষয়টি আদালত পর্যন্তও গড়িয়েছিল৷ সেখানে স্কুল কর্তৃপক্ষেরই জয় হয়েছিল৷ এদিনের বিক্ষোভের বিষয়টি তিনি প্রশাসনকে জানাচ্ছেন৷ পরবর্তী পদক্ষেপ প্রশাসনই নেবে৷


#Education #DigitalDesk #Video #EnglishBazar

বিজ্ঞাপন

MGH-Advt.jpg
পপুলার
1

চোরাই মোবাইল পাচারচক্রের হদিশ, ধৃত তিন

চোরাই মোবাইল পাচারচক্রের হদিশ, ধৃত তিন
2

সরানো হল মালদা সদর মহকুমাশাসককে

সরানো হল মালদা সদর মহকুমাশাসককে
3

কেন ইংলিশবাজার? নাম পরিবর্তনের ইচ্ছে বিজেপি প্রার্থীর

কেন ইংলিশবাজার? নাম পরিবর্তনের ইচ্ছে বিজেপি প্রার্থীর
4

ইংরেজবাজারে উদ্ধার মানুষের মাথার খুলি

ইংরেজবাজারে উদ্ধার মানুষের মাথার খুলি
5

করোনায় আক্রান্ত রেলকর্মীর মৃত্যু, আতঙ্ক মালদা শহরে

করোনায় আক্রান্ত রেলকর্মীর মৃত্যু, আতঙ্ক মালদা শহরে
Earnbounty_300_250_0208.jpg
টাটকা আপডেট