টাউন স্কুলে টেস্টে বসতে দেওয়ার দাবিতে প্রধান শিক্ষক ঘেরাও

মালদা শহরের টাউন হাইস্কুলে পরীক্ষায় বসতে দেওয়ার দাবিতে স্কুলের প্রধান শিক্ষককে ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখাল পড়ুয়ারা৷ ছেলেদের বিক্ষোভে শামিল হলেন অভিভাবিকরাও৷ যদিও প্রধান শিক্ষক সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, ওই ছাত্ররা বছরে ২০ দিনও ক্লাসে আসেনি৷ নিয়ম মেনেই তাদের পরীক্ষায় বসতে না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷ এক্ষেত্রে তাঁর কিছু করার নেই৷

টাউন হাইস্কুলে আগামীকাল থেকে শুরু হচ্ছে উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের টেস্ট পরীক্ষা৷ ঠিক তার আগের দিনই পরীক্ষায় বসতে দেওয়ার দাবিতে প্রধান শিক্ষককে ঘেরাও করে রেখেছে কিছু পড়ুয়া৷ বিক্ষোভে সঙ্গে রয়েছেন তাদের অভিভাবকরাও৷ বিক্ষোভরত এক ছাত্র শুভাশিস দত্তের বক্তব্য, তারা দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র৷ প্রথম দুটি ইউনিট পরীক্ষাতে তাদের স্কুলে উপস্থিতির হার ঠিক ছিল৷ পরে বিভিন্ন সমস্যায় তাদের অনেকে স্কুলে আসতে পারেনি৷ যেসব ছাত্রদের উপস্থিতির হার কম, তাদের কাছ থেকে ২০০-৩০০ টাকা করে ফাইন নিয়ে পরীক্ষায় বসতে দিচ্ছে স্কুল কর্তৃপক্ষ৷ কিন্তু তাদের ২২ জনকে পরীক্ষায় বসতে দেওয়া হবে না বলে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে৷ তাদের সবাইকে পরীক্ষায় বসতে দেওয়া সহ যাদের কাছ থেকে ফাইন আদায় করা হয়েছে, সেই টাকা ফেরতের দাবিতে এদিন তারা প্রধান শিক্ষককে ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে৷ যতক্ষণ না তাদের দাবি পূরণ হচ্ছে, ততক্ষণ তাদের বিক্ষোভ চলতে থাকবে৷



এক অভিভাবিকা সীমা দত্ত বলেন, স্কুল কর্তৃপক্ষ তাঁদের ছেলেদের সঙ্গে বিরুদ্ধাচরণ করছে৷ প্রথমদিকে এই ছাত্রদের স্কুলে উপস্থিতির হার ঠিক ছিল৷ সম্প্রতি মালদায় ডেঙ্গি ভয়াবহ আকার নিয়েছে৷ অনেক ছাত্র ডেঙ্গিতে আক্রান্ত হয়েছে৷ জ্বর ছাড়ার পরেও তারা দুর্বল৷ স্কুলে আসতে পারেনি৷ অথচ সেসব বিষয় মাথায় না রেখেই স্কুল কর্তৃপক্ষ এই সব ছাত্রদের পরীক্ষায় বসতে দেবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে৷ তাঁদের ছেলেদের ভবিষ্যত রয়েছে৷ সেকারণে তাঁরাও এদিন প্রধান শিক্ষককে ঘেরাও করে রেখেছেন৷ তাঁদের দাবি, স্কুলের সব ছাত্রকেই টেস্ট পরীক্ষায় বসতে দিতে হবে৷ একই সঙ্গে যাদের কাছ থেকে ফাইন আদায় করা হয়েছে, তাদের টাকা ফেরত দিতে হবে৷ তা না হলে তাঁরা এই বিক্ষোভ চালিয়ে যাবেন৷

প্রধান শিক্ষক বিশ্ববিকাশ দত্ত অবশ্য সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, যে সব ছাত্র স্কুলে ২৫ শতাংশ দিন উপস্থিত থাকেনি, তাদের পরীক্ষা. বসতে দেওয়ার প্রশ্নই নেই৷ তিনি বলেন, দ্বাদশ শ্রেণিতে এমনিতেই পড়াশোনার জন্য থাকে ৬ মাস৷ তার মধ্যে ২ মাস ছুটিতেই কেটে যায়৷ নিয়ম অনুযায়ী, প্রত্যেক ছাত্রকে অন্তত ৭০ শতাংশ দিন ক্লাসে উপস্থিত থাকতে হবে৷ কোনও ছাত্র ৫০ থেকে ৭০ শতাংশ দিন ক্লাসে উপস্থিত থাকলে ফাইন দিয়ে সে পরীক্ষায় বসতে পারে৷ স্কুল কাউন্সিলের বৈঠকেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷ এবার তাঁদের স্কুলের দ্বাদশ শ্রেণির অনেক ছাত্ররই উপস্থিতির হার কম রয়েছে৷ তাই কাউন্সিলের বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, অন্তত ২৫ শতাংশ দিন ক্লাসে উপস্থিত থাকলে কোনও ছাত্রকে ফাইন দিয়ে পরীক্ষায় বসতে দেওয়ার সুযোগ করে দেওয়া হবে৷ সেই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কোনও ছাত্র বছরে মাত্র ২০ দিন ক্লাস করলেই ২৫ শতাংশ উপস্থিতি হয়৷ কিন্তু এই ছাত্ররা সেই ক’দিনও ক্লাস করেনি৷ ফলে তাদের পরীক্ষায় বসতে দেওয়ার কোনও প্রশ্নই ওঠে না৷ এবার তাঁদের স্কুলে দ্বাদশ শ্রেণিতে মোট ছাত্র সংখ্যা ১৩৩৷ তার মধ্যে ১২৮ জনকে পরীক্ষায় বসার অনুমতি দেওয়া হয়েছে৷ বাকি ৫ ছাত্রই এদিন স্কুলে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে৷ তাদের সঙ্গে রয়েছেন অভিভাবকরাও৷ ছাত্ররা দাবি করছে, এবার দ্বাদশ শ্রেণিতে নাকি ১৫৬ জন পড়ুয়া রয়েছে৷ সেটা ঠিক নয়৷ এদের মধ্যে অনেকেই স্কুল ছেড়ে দিয়েছে৷ আর বিক্ষোভ নিয়ে তিনি চিন্তিত নন৷ এর আগেও এমন ঘটনা স্কুলে ঘটেছে৷ এমনকি বিষয়টি আদালত পর্যন্তও গড়িয়েছিল৷ সেখানে স্কুল কর্তৃপক্ষেরই জয় হয়েছিল৷ এদিনের বিক্ষোভের বিষয়টি তিনি প্রশাসনকে জানাচ্ছেন৷ পরবর্তী পদক্ষেপ প্রশাসনই নেবে৷


#Education #DigitalDesk #Video #EnglishBazar

1
কফিনবন্দি দেহ ফিরল মালদায়, স্যালুট জানিয়ে শেষ শ্রদ্ধা পুলিশের

Popular News

848

2
গঙ্গায় মিশে যেতে পারে ফুলহর, বাজছে বিপদ ঘণ্টা

Popular News

811

3
আত্মীয়ের বাড়িতে এসে গ্রেফতার বাংলাদেশি

Popular News

1300

4
বাংলাদেশে পণ্য পাঠানো বন্ধ করে দিলেন মহদীপুরের এক্সপোর্টার্সরা

Popular News

877

5
মালদা ডিভিশন তৈরি, অনুমতি মিললেই শুরু হবে ট্রেন পরিসেবা

Popular News

1064

পপুলার

বিজ্ঞাপন

টাটকা আপডেট
 

Aamader Malda Worldwide, the only media of your hometown and its thoughts. Here you can share and express your views and thoughts and you'll get here the essence of MALDAIYA CULT...

You can reach us via email or phone.  P +91 3512-260260  E response@aamadermalda.in

  • Facebook
  • Twitter
  • YouTube
  • Pinterest
  • Instagram
  • RSS

Copyright © 2020 Aamader Malda. All Rights Reserved.