বৃদ্ধ-বৃদ্ধা বাংলাদেশের জেলে, ফেরাতে উদ্যোগ মানবাধিকার সংগঠনের

বৃদ্ধ-বৃদ্ধা বাংলাদেশের জেলে, ফেরাতে উদ্যোগ মানবাধিকার সংগঠনের



বাংলাদেশের জেলে বন্দি বৃদ্ধ বাবা-মা’কে ঘরে ফিরিয়ে আনতে প্রশাসনের দরজায় দরজায় ঘুরে বেড়াচ্ছেন ছেলে৷ কিন্তু কোথাও আশার কথা শুনতে পাননি তিনি৷ শেষ পর্যন্ত ছেলের পাশে দাঁড়িয়েছে জেলার একটি মানবাধিকার সংগঠন৷ ওই সংগঠনের পক্ষ থেকে এদিন গোটা বিষয়টি জানানো হয়েছে জেলাশাসককে৷ বিষয়টি জানানো হচ্ছে মুখ্যমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র দপ্তরেও৷

মালদা জেলার কালিয়াচক থানার শ্মশানী বিওপি’র অধীনে চকমাইলপুর গ্রাম। সেই গ্রামের ৫টি পরিবার থাকে কাঁটাতারের ওপারে ভারতীয় ভূখণ্ডে৷ সেখানেই বসবাস করতেন বৃদ্ধ কাদির শেখ (৬৭ বছর) ও তাঁর স্ত্রী, আলেখনুর বিবি (৬২ বছর)৷ তাঁদের ৪ ছেলে৷ এক ছেলে মুম্বইয়ে শ্রমিকের কাজ করেন৷ বাকি ৩ ছেলে কাঁটাতারের এপারে মূল ভারতীয় ভূখণ্ডের খড়িবোনা গ্রামে থাকেন৷ বাবা-মা’র দায়িত্ব নিজের কাঁধে নিয়েছিলেন মহবুল মিয়াঁ৷ ১৯ সেপ্টেম্বর রাত দেড়টা নাগাদ বাড়ি থেকে কাদির শেখ ও আলেখনুর বিবিকে তুলে নিয়ে যায় বাংলাদেশের রাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন৷ তাঁদের বিরুদ্ধে ১৯৫২ সালে প্রবর্তিত বাংলাদেশ কন্ট্রোল অফ এন্ট্রি’র ৪ নম্বর ধারায় মামলা রুজু করে বাংলাদেশের চাঁপাই নবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ থানার রাব বাহিনী৷ রাবের বক্তব্য, কাদের শেখের হেপাজত থেকে ৩টি বিদেশি আগ্নেয়াস্ত্র, ৬টি ম্যাগাজিন ও ১৯ রাউন্ড কার্তুজ বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে৷ অস্ত্রগুলিতে ‘সেনার ব্যবহারের জন্য’ এবং ‘মেড ইন ইউএসএ’ খোদাই করা রয়েছে৷ একই সঙ্গে আলেকনুর বিবির হেপাজত থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, ২টি ম্যাগাজিন ও ৮ রাউন্ড কার্তুজ বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে৷ এরপর রাবের পক্ষ থেকে ধৃতদের নবাবগঞ্জ আদালতে তোলা হয়৷ দু’জনের বর্তমান ঠিকানা চাঁপাই নবাবগঞ্জ সংশোধনাগার৷

এদিন জেলা প্রশাসনিক ভবন চত্বরে দাঁড়িয়ে মহবুল মিয়াঁ বলেন, ১৯ সেপ্টেম্বর রাত দেড়টা নাগাদ বাংলাদেশের রাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন (রাব) ঘুম থেকে তুলে তাঁর বাবা-মা’কে গ্রেফতার করে নিয়ে যায়৷ পরদিন তাঁর এক কাকিমা আনোয়ারি বেওয়া ফোন মারফৎ তাঁদের জানান, বিএসএফ তাঁর বাবা-মা’কে গ্রেফতার করে নিয়ে গিয়েছে৷ তিনি সঙ্গে সঙ্গে শ্মশানী বিওপিতে গিয়ে খোঁজ নেন৷ কিন্তু বিএসএফ জানিয়ে দেয়, তারা কাউকে গ্রেফতার করেনি৷ শেষে বাংলাদেশে থাকা এক আত্মীয় সাকিনা বিবি তাঁদের জানান, তার বাবা-মা’কে গ্রেফতার করেছে রাব৷ তাঁদের বিরুদ্ধে বেআইনিভাবে দেশে প্রবেশ ও অস্ত্র আইনে মামলা দেওয়া হয়েছে৷ কিন্তু তাঁর বাবা সামান্য চাষি৷ কাঁটাতারের ওপারে ৫ বিঘা জমি রয়েছে তাঁদের৷ সেই জমি দেখাশোনার জন্যই মা’কে নিয়ে তিনি কাঁটাতারের ওপারে ভারতীয় ভূখণ্ডে বসবাস করতেন৷ তাঁরা গোটা বিষয়টি জেলার পুলিশ সুপারকে জানান৷ জানান এলাকার সাংসদ আবু হাসেম খান চৌধুরিকেও৷ কিন্তু কোনও কাজ হয়নি৷ আজ তাঁরা বিষয়টি লিখিতভাবে জেলাশাসককে জানিয়েছেন৷ তাঁর বাবা-মা কোনওভাবেই অস্ত্র ব্যাবসার সঙ্গে যুক্ত নন৷ তাঁদের ফাঁসানো হচ্ছে৷ কেন তাঁদের এভাবে ফাঁসানো হচ্ছে, তা তিনি জানেন না৷ তিনি শুধু বাবা-মা’কে ঘরে ফিরিয়ে আনতে চান৷

এই ঘটনায় মহবুল মিয়াঁর পাশে দাঁড়িয়েছে জেলার মানবাধিকার সংগঠন গৌড় মালদা হিউম্যান রাইটস্ অ্যাওয়ারনেস সেন্টার৷ সংগঠনের সম্পাদক এবং মালদা জেলা আদালতের আইনজীবী মৃত্যুঞ্জয় দাস বলেন, বিষয়টি অত্যন্ত উদ্বেগের৷ তাঁরা গোটা ঘটনাটি পুলিশ সুপার ও জেলাশাসককে জানিয়েছেন৷ বিষয়টি জানানো হচ্ছে এদেশে নিযুক্ত বাংলাদেশ হাইকমিশনার, মুখ্যমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র দপ্তরেও৷ তাঁদেরও ধারণা, কোনও কারণবশত ভুল করেছে বাংলাদেশি নিরাপত্তা বাহিনী৷

এবিষয়ে জেলাশাসক কৌশিক ভট্টাচার্য বলেন, বিষয়টি আন্তর্জাতিক৷ তাই এক্ষেত্রে তাঁদের কিছু করার নেই৷ তাঁরা গোটা ঘটনাটি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে দিচ্ছেন৷ দক্ষিণ মালদার সাংসদ আবু হাসেম খান চৌধুরি জানান, ঘটনাটি তিনি জানেন৷ গত ৩০ অক্টোবর তিনি পুলিশ সুপার, সীমান্তরক্ষী বাহিনীর ডিআইজি ও বাংলাদেশের ডেপুটি হাইকমিশনারকে এনিয়ে চিঠি পাঠিয়ে উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণের আর্জি জানিয়েছিলেন৷ দুর্ভাগ্যবশত সেই চিঠিতে কোনও কাজ হয়নি৷ সংসদের শীতকালীন অধিবেশন শুরু হলে তিনি ওই বৃদ্ধ দম্পতিকে দেশে ফিরিয়ে আনতে কেন্দ্রীয় বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের দ্বারস্থ হবেন৷

#Misc #DigitalDesk

হেডলাইন

প্রতিবেদন

কোয়রান্টিন সেন্টারে জন্মদিনের পার্টি, নজির গড়ল দীপান্বিতা

জন্মদিনের অনুষ্ঠানে বন্ধুদের বাড়িতে ডেকে খাওয়ানো নয়, পরিযায়ী শ্রমিকদের মধ্যে খাবার বিতরণ করে নজির সৃষ্টি করল ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রী। গত...

বিজ্ঞাপন

ফলো করুন
  • Facebook
  • Instagram
  • Twitter
  • YouTube
  • Pinterest

সব খবর ইনবক্সে!

প্রতিদিন খবরের আপডেট পেতে সাবস্ক্রাইব করুন

Aamader Malda Worldwide, the only media of your hometown and its thoughts. Here you can share and express your views and thoughts and you'll get here the essence of MALDAIYA CULT...

You can reach us via email or phone.  P +91 3512-260260  E response@aamadermalda.in

  • Facebook
  • Twitter
  • YouTube
  • Pinterest
  • Instagram
  • RSS

Copyright © 2020 Aamader Malda. All Rights Reserved.