বিজ্ঞাপন

বাংলা ক্যালেন্ডার এবং আকবর



১৪২৫ বঙ্গাব্দ৷ নতুন বাংলা সন৷ ক্যালেন্ডারের শুরুর বছর বা শূন্য বছর হিসেবে ধরা হয় কোনো বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা৷ যেমন জিশুখ্রিস্টের জন্মকে ধরে শুরু খ্রিস্টাব্দ, যেমন হজরত মহম্মদের মক্কা থেকে মদিনা যাত্রাকে ধরে হিজরি সালের গণনা শুরু, এসব আমরা জানি৷ তাহলে ১৪২৫ বছর আগের কোনো বিশেষ ঘটনা থেকে বাংলা সালের গুনতি শুরু? এই প্রশ্নটাতে খানিক থমকাতে হয়৷ এর উত্তর পেতে গেলে প্রয়োজন একটু ইতিহাস একটু অঙ্ক৷ ১৫৮৪ খ্রিস্টাব্দে মুঘল সম্রাট আকবর চালু করেন তাঁর নতুন ক্যালেন্ডার তারিখ-ই-ইলাহি, তাঁর নতুন ধর্ম দিন-ই-ইলাহির পাশাপাশি নতুন ক্যালেন্ডার তারিখ-ই-ইলাহি৷ এক্ষেত্রেও আকবর সর্বধর্ম সমন্বয়ের দৃষ্টান্ত রাখলেন ক্যালেন্ডারের শুরুর সাল হিসেবে হজরত মহম্মদের মক্কা থেকে মদিনা যাত্রা অর্থাৎ হিজরি৷ কিন্তু দিনগোনা মুসলমানদের চান্দ্র মাস অনুযায়ী নয়, বরং হিন্দু আর খ্রিস্টানদের সৌর নিয়মে, পারস্যেও (বর্তমান ইরান) অবশ্য তখন সৌর ক্যালেন্ডার চালু ছিল৷ আকবরের নির্দেশে ক্যালেন্ডার তৈরি করেন বিখ্যাত জ্যোতির্বিদ এবং প্রযুক্তিবিদ আমির ফতেউল্লাহ সিরাজি৷ পারস্যের সিরাজ থেকে এসে এই গুণী মানুষটি আকবরের দরবার আলো করেছিলেন বেশ কিছু বছর৷ আকবরের আমলের বেশ কিছু প্রযুক্তিগত উদ্ভাবনের সাথে জড়িয়ে ওস্তাদ ফতেউল্লাহ সিরাজির নাম৷ এসব লিখে গেছেন আবুল ফজল, লিখেছেন অমর্ত্য সেন৷

ক্যালেন্ডারে চান্দ্র বছরের সাথে সৌর বছরের যে প্রয়োজনীয় সংশোধনী সব ফতেউল্লাহ সিরাজি করলেন আকবরের সিংহাসনে বসার সাল থেকে অর্থাৎ ১৫৫৬ খ্রিস্টাব্দ (৯৬২ হিজরি) থেকে৷ চান্দ্র বছর গড়ে ৩৫৪ দিনের আর সৌর বছর ৩৬৫ দিনের ফলে বছর পিছু চান্দ্র ক্যালেন্ডার ১১ দিন এগিয়ে যাবে বা সৌর ক্যালেন্ডার ১১ দিন পিছিয়ে যাবে৷ আকবর সিংহাসনে বসার পর চলে গেছে ৪৬২টা সৌর বছর (২০১৮ - ১৫৫৬ = ৪৬২)৷ বছর পিছু ১১ দিন ধরলে ৪৬২ সৌর বছর চান্দ্র বছরের তুলনায় পিছিয়ে যাবে মোট ৫০৮২ দিন (৪৬২ X ১১ = ৫০৮২) অর্থাৎ ১৩ বছর ১১ মাস ৭ দিন অর্থাৎ প্রায় ১৪ বছর৷ বর্তমানে চলছে ১৪৩৯ হিজরি যা গণনা হয় চান্দ্র নিয়মে৷ এখন ১৪৩৯ থেকে ১৪ বাদ দিলে পাওয়া যায় ১৪২৫ (১৪৩৯ - ১৪ = ১৪২৫)৷ এই অঙ্ক থেকেই পরিষ্কার বঙ্গাব্দেরও সূচনা হজরত মহম্মদের মক্কা থেকে মদিনা যাওয়ার সালকে মনে রেখে পার্থক্য এই যে, এটা চলে সৌর নিয়মে৷ তাই আকবরের সিংহাসনে বসার ৪৬২ বছর পরে, বছরে ১১ দিন করে মোট ১৪ বছর পিছিয়ে পড়েছে চান্দ্র নিয়মে চলা হিজরি ক্যালেন্ডার থেকে৷

১৬০৫ খ্রিস্টাব্দে আকবরের মৃত্যুর কয়েক বছরের মধ্যেই ফিকে হয়ে যায় দিন-ই-ইলাহির রং, উঠে যায় তারিখ-ই-ইলাহিও৷ কিন্তু বঙ্গাব্দ হিসেবে এই উপমহাদেশের বেশ কিছু অংশে আজও বয়ে চলেছে তার দিন৷ ক্যালেন্ডারের ইতিহাসে ধরা থাকে একটা জাতির বা জনগোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক অতীত, বাংলার ক্ষেত্রে যা মনে করিয়ে দিচ্ছে আমাদের এক অন্য ইতিহাস৷ সমস্ত রকম ধর্মীয় এবং সাংস্কৃতিক আদানপ্রদানের মাধ্যমে গড়ে ওঠা এক বহুত্ববাদী সমাজ, ইদানীং যাকে পালটে ফেলার চেষ্টা চলছে আপ্রাণ৷

#PrintEdition #দবরজরয়চধর

বিজ্ঞাপন

MGH
পপুলার
1

জেলায় দ্বিতীয় বইমেলার প্রস্তুতি শুরু

2661

জেলায় দ্বিতীয় বইমেলার প্রস্তুতি শুরু
2

স্থান বদলে শুরু হল মালদা বইমেলা, চলবে ২৪ জানুয়ারি পর্যন্ত

3252

স্থান বদলে শুরু হল মালদা বইমেলা, চলবে ২৪ জানুয়ারি পর্যন্ত
3

মালদায় শুরু করোনা টিকাকরণ, প্রথম টিকা পেলেন কৃষ্ণা

629

মালদায় শুরু করোনা টিকাকরণ, প্রথম টিকা পেলেন কৃষ্ণা
4

অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে মালদায় এল করোনা ভ্যাকসিন

1185

অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে মালদায় এল করোনা ভ্যাকসিন
5

বাসের জন্য নতুন স্টপেজ রথবাড়িতে

5941

বাসের জন্য নতুন স্টপেজ রথবাড়িতে
Earnbounty_300_250_0208.jpg
At the Grocery Shop
টাটকা আপডেট

সাবস্ক্রিপশন

স্বত্ব © ২০২০ আমাদের মালদা

  • Facebook
  • Twitter
  • Instagram
  • YouTube
  • Pinterest
  • RSS