তিস্তা তোর্সা এক্সপ্রেসে বহিরাগতদের তাণ্ডব

তিস্তা তোর্সা এক্সপ্রেসে বহিরাগতদের তাণ্ডব

দিন কয়েক আগেই ট্রেনের কামরা থেকে চুরি যাওয়ার ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছিল শহরে। এবার চলন্ত ট্রেনে বহিরাগতদের তাণ্ডবের ঘটনায় রেলে যাত্রী নিরাপত্তার খামতি আরও একবার চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল সবার৷ শুক্রবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে শিয়ালদহ-কোচবিহারগামী আপ তিস্তা তোর্সা এক্সপ্রেসের সংরক্ষিত কামরায়৷ এই ঘটনায় রেলযাত্রীরা ট্রেনের গার্ডের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন৷ অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে শিলিগুড়ি জিআরপি থানাতেও৷ গোটা ঘটনায় সাধারণ মানুষের মধ্যে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে।

গতকাল আপ তিস্তা তোর্সা এক্সপ্রেস ধরে স্টাফ সিলেকশনের পরীক্ষা দিতে শিলিগুড়ি যাচ্ছিলেন মালদা শহরের পুড়াটুলি সদরঘাটের বাসিন্দা জ্যোতির্ময় হালদার৷ জ্যোতির্ময় মালদা কলেজের ছাত্র৷ একই সঙ্গে পরীক্ষা দিতে যাচ্ছিলেন তাঁর বান্ধবী নন্দিনী ঘোষ৷ নন্দিনীর বাবা তপনকুমার ঘোষও মেয়ের সঙ্গে ছিলেন৷ তাঁরা বহরমপুরের রাধিকানগরের বাসিন্দা৷ তাঁদের তিনজনেরই কামরায় আসন সংরক্ষিত ছিল৷

জ্যোতির্ময় জানান, তাঁর ৭ নম্বর আসনটি সংরক্ষিত ছিল৷ মালদা স্টেশনে ট্রেনে উঠে দেখেন, ওই সিটে ৪ যুবক বসে রয়েছেন৷ তিনি ওই যুবকদের সিট ছেড়ে দিতে বললে তারা এনিয়ে বচসা শুরু করে৷ বেশ কিছুক্ষণ পর তারা সিট ছাড়ে৷ রাত সোওয়া ১০টা নাগাদ ট্রেন মালদা স্টেশন থেকে ছাড়ে৷ ট্রেনটি পৌনে ১১টা নাগাদ ভালুকা স্টেশনে আসতেই ওই যুবকরা তাঁর উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে৷ তাঁকে বাঁচাতে তাঁর বান্ধবী ও তাঁর বাবা এগিয়ে আসেন৷ ততক্ষণে ২০-২৫ জন বহিরাগত কামরায় চলে এসেছে৷ তারা সবাই মিলে তাঁদের সবাইকেই মারধর করে৷ তাঁর বান্ধবীকেও ছাড়েনি তারা৷ সেই সময় তাঁরা টিটি কিংবা রেল পুলিশের দেখা পাননি৷ এরই মধ্যে ট্রেন ভালুকা স্টেশন ছাড়লে তারা ট্রেন থেকে নেমে যায়৷ বাইরে থেকে ইট-পাথর ছুঁড়তে থাকে৷ পাথরের আঘাতে আরেক যাত্রী রবিউল ইসলাম আহত হন৷ তিনি মালদার গাজোলের বাসিন্দা৷ অবশেষে ট্রেন কুমেদপুর স্টেশনে এলে কামরার যাত্রীরা সবাই মিলে ট্রেনের গার্ডের কাছে গিয়ে লিখিত অভিযোগ জানান৷ নন্দিনীর বক্তব্য, বন্ধুকে আক্রান্ত হতে দেখে তিনি এগিয়ে যান৷ তখন বহিরাগত ওই যুবকরা উন্মত্তের মতো আচরণ করেছে৷ তারা তাঁর হাত মুচড়ে দেয়৷ তাঁকেও মারধর করে৷ তা দেখে তাঁর বাবা এগিয়ে এলে তারা তাঁকেও মারধর করে৷

এদিকে বহিরাগতদের তাণ্ডবে আহত যাত্রী রবিউল ইসলামের প্রশ্ন, চলন্ত ট্রেনে যাত্রী নিরাপত্তা কোথায়? ঘটনার সময় তাঁরা একাধিকবার টিটি ও রেল পুলিশের খোঁজ করেছেন৷ চিৎকার করে সাহায্য চেয়েছেন৷ কারোর দেখা পাওয়া যায়নি৷ মালদা স্টেশনে জ্যোতির্ময়ের আসনে ওই যুবকদের দেখেই তিনি ট্রেনের এসকর্ট পার্টিকে জানান৷ কিন্তু তখন তাঁর কথায় এসকর্ট পার্টি কোনো গুরুত্ব দেয়নি৷ তখন তারা গুরুত্ব দিলে এই ঘটনা ঘটত না৷ এসকর্ট পার্টি পয়সা খাওয়া ছাড়া আর কিছু করে না৷ মন্তব্য রবিউল সাহেবের৷

এই ঘটনা নিয়ে ওই কামরায় দায়িত্বপ্রাপ্ত টিটি অরবিন্দ কুমার কোনও মন্তব্য করতে চাননি৷ মন্তব্য করেননি রেল পুলিশের কোনও কর্মীও। ট্রেনটি এনজেপি স্টেশনে পৌঁছলে যাত্রীরা জিআরপি থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন৷

ছবিটি প্রতীকী।

#DigitalDesk #Crime

হেডলাইন

প্রতিবেদন

জুলুমে রাস্তা সাফ হরিশ্চন্দ্রপুরে

দাপটের জন্য এলাকায় জুলুম সিং নামে পরিচিত৷ তাঁর ভয়ে রাস্তায় নোংরা ফেলার জো নেই কারোর। সকাল থেকে সন্ধে ঝাঁটা হাতে এলাকা পরিষ্কার রাখতে দেখা...

বিজ্ঞাপন

ফলো করুন
  • Facebook
  • Instagram
  • Twitter
  • YouTube
  • Pinterest

সব খবর ইনবক্সে!

প্রতিদিন খবরের আপডেট পেতে সাবস্ক্রাইব করুন

Aamader Malda Worldwide, the only media of your hometown and its thoughts. Here you can share and express your views and thoughts and you'll get here the essence of MALDAIYA CULT...

You can reach us via email or phone.  P +91 3512-260260  E response@aamadermalda.in

  • Facebook
  • Twitter
  • YouTube
  • Pinterest
  • Instagram
  • RSS

Copyright © 2020 Aamader Malda. All Rights Reserved.