বিজ্ঞাপন

জাতীয় পতাকা নিয়ে উদাসীনতা!


সারা দেশে গতকাল আয়োজিত হল ৫৯তম প্রজাতন্ত্র দিবস৷ সকালের নির্দিষ্ট সময়ে জাতীয় পতাকা তুললেন প্রধানমন্ত্রী থেকে সমস্ত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী৷ এমনকি জেলাস্তরেও সম্মানের সঙ্গে পালিত হল বিশেষ এই দিনটি৷ সাধারণতন্ত্র দিবস উদযাপনে প্রতি বছরের মতো এবারও বিভিন্ন ক্লাব ও সংগঠন এগিয়ে এসেছে৷ অদ্ভুত হলেও সত্যি, এমন একটি দিনে দুপুর দুটো পর্যন্ত জাতীয় পতাকা তোলা হল না হবিবপুর ব্লক অফিসে৷ অথচ সেই অফিস চত্বরেই বসবাস করেন বিডিও থেকে শুরু করে একাধিক কর্মী৷ সব দেখেশুনে ক্ষোভে ফেটে পড়েন এলাকার মানুষজন৷ বিডিও অফিসে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন তাঁরা৷ এরপরেই হুঁশ ফেরে প্রশাসনের৷ বেলা সোওয়া দুটো নাগাদ উত্তোলন করা হয় জাতীয় পতাকা৷


প্রজাতন্ত্র দিবস উপলক্ষ্যে রাজ্যের প্রতিটি স্কুল, কলেজ, সরকারি কিংবা বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ছুটি থাকলেও জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা বাধ্যতামূলক ছিল৷ সেই মতো প্রতিটি জায়গাতেই সকালে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়৷ কিন্তু বেলা গড়িয়ে গেলেও হবিবপুর ব্লক অফিসে জাতীয় পতাকা উত্তোলিত না হওয়ায় ক্ষোভে ফেটে পড়েন এলাকার বাসিন্দারা৷ দুপুর পৌনে দুটো নাগাদ তাঁরা হাতে পোস্টার নিয়ে বিডিও’র বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে দিতে অফিস চত্বরে ঢোকেন৷ তাঁরা সঙ্গে একটি জাতীয় পতাকাও নিয়ে এসেছিলেন৷ তাঁরাই সরকারি দপ্তরে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করতে চান৷ যদিও তাঁদের নিরস্ত করা হয়৷ কোথাও থেকে খবর পেয়ে ততক্ষণে হাঁফাতে হাঁফাতে সেখানে ছুটে এসেছেন জয়েন্ট বিডিও৷ শেষ পর্যন্ত সোওয়া দুটো নাগাদ জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন তিনি৷

বিক্ষোভকারীদের একজন বিদ্যুৎ গঙ্গোপাধ্যায় বলেন, তাঁরা ছোটো থেকেই দেখে এসেছেন স্বাধীনতা দিবস ও প্রজাতন্ত্র দিবসে বিডিও অফিসে জাতীয় পতাকা তোলা হয়৷ কিন্তু এবার দুপুর ২টো পর্যন্ত জাতীয় পতাকা সেখানে তোলা হয়নি৷ তাঁরা মনে করেন, এই ঘটনা তাঁদের লজ্জা, সমাজের লজ্জা, দেশের লজ্জা৷ তাই তাঁরাই এদিন সরকারি অফিসে জাতীয় পতাকা তুলতে এসেছেন৷

হবিবপুরের বিডিও রেণুকা খাতুন অসুস্থ৷ তিনি জানিয়েছেন, নিজের অসুস্থতার জন্য তিনি এদিন জাতীয় পতাকা উত্তোলনের দায়িত্ব জয়েন্ট বিডিওকে দিয়েছিলেন৷ দুপুর পর্যন্ত কেন জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হল না, তা তিনি খোঁজ নিয়ে দেখছেন৷ এদিকে জয়েন্ট বিডিও তরুণকুমার বর্মণ বলেন, ২৩ জানুয়ারি তিনিই অফিসে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেছিলেন৷ এদিন পতাকা উত্তোলনের দায়িত্বও তাঁর উপর ছিল৷ কিন্তু এদিন সকালে তিনি বুলবুলচণ্ডী চলে যান৷ বুলবুলচণ্ডী স্পোর্টস অ্যাসোসিয়েশন সেখানে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল৷ সেখানেই অংশ নিতে তিনি তাড়াহুড়ো করে বেরিয়ে যান৷ এদিন যে ঘটনা ঘটেছে তার জন্য তিনি ক্ষমাপ্রার্থী৷ দেশপ্রেমিক মানুষজন সহ একজন দায়িত্বপূর্ণ মানুষ ও সরকারি প্রতিনিধি হিসাবে তিনি মার্জনা চাইছেন৷ আগামীতে এমন ভুল যাতে আর না হয় তার দিকে তিনি লক্ষ রাখবেন৷ এদিন নিজের ভুল ধরিয়ে দেওয়ার জন্য তরুণবাবু বিক্ষোভকারী এলাকাবাসীকেও ধন্যবাদ জানান৷

কার ভুলে এমন ঘটনা ঘটেছে, তা হয়তো তদন্তসাপেক্ষ৷ কিন্তু এই ভুলে মালদার মাথায় যে কলঙ্কের কাঁটা বিঁধে গেল, তা কি সহজে মুছে ফেলা যাবে? জেলাশাসক ফোন না ধরায় এই ঘটনায় তাঁর প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি৷ তবে গোটা ঘটনায় ফঁসছে হবিবপুর৷

#Misc #DigitalDesk

4 views

বিজ্ঞাপন

Valentines-day.jpg
পপুলার

737

1

পরাজিত প্রার্থী পেল জয়ীর কেন্দ্রের টিকিট, বিধানসভা বদল জয়ীর

পরাজিত প্রার্থী পেল জয়ীর কেন্দ্রের টিকিট, বিধানসভা বদল জয়ীর

582

2

নিখোঁজ চার কিশোরের সন্ধান পেল পুলিশ

নিখোঁজ চার কিশোরের সন্ধান পেল পুলিশ

611

3

স্কুল ছাত্রীর ঝুলন্ত মৃতদের উদ্ধার, চাঞ্চল্য ইংরেজবাজারে

স্কুল ছাত্রীর ঝুলন্ত মৃতদের উদ্ধার, চাঞ্চল্য ইংরেজবাজারে

1651

4

মালদায় পা রেখেই বিরোধী শূন্য করার হুঙ্কার ইয়াসিনের

মালদায় পা রেখেই বিরোধী শূন্য করার হুঙ্কার ইয়াসিনের

635

5

নেত্রীর আগেই নিজেকে প্রার্থী ঘোষণা সাবিত্রীর

নেত্রীর আগেই নিজেকে প্রার্থী ঘোষণা সাবিত্রীর
Earnbounty_300_250_0208.jpg
At the Grocery Shop
টাটকা আপডেট

সাবস্ক্রিপশন

স্বত্ব © ২০২০ আমাদের মালদা

  • Facebook
  • Twitter
  • Instagram
  • YouTube
  • Pinterest
  • RSS