পাহাড়ে কঠিন দিন আসছে

পাহাড়ে কঠিন দিন আসছে



মিরিক পুরসভায় তৃণমূলের ক্ষমতা দখল সহ বাকি তিনটি পুরসভাতেও মোর্চা বিরোধীদের আসনলাভের ঘটনা ইঙ্গিত দিচ্ছে পাহাড়ের মানুষও পরিবর্তনের পক্ষে।

দার্জিলিং পাহাড় রাজ্যের অন্যতম স্পর্শকাতর জায়গা। বহু স্মৃতি, বহু আবেগ জড়িয়ে রয়েছে এই পার্বত্য এলাকাকে ঘিরে। রাজ্যের এই একমাত্র শৈল অঞ্চল থেকে সমতল নিয়েছে বেশি, দিয়েছে কম। স্বাভাবিকভাবে পাহাড়ের মানুষের মধ্যে ক্ষোভের একটা জায়গা তৈরি হয়েছিল। গত শতকের আটের দশকের গোড়ায় সেই ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ ঘটে সুবাস ঘিসিং-এর হাত ধরে। পাহাড় এরাজ্য থেকেই বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়ে তার আলাদা একটা আস্তিত্ব গড়ার দাবি তুলতে শুরু করে। সেই দাবির তীব্রতা এতটাই ছিল যে, রাজ্যের তৎকালীন সরকারের পাহাড়ের সঙ্গে একাত্নবোধটাই কমে গিয়েছিল। বাস্তবিকই পাহাড় তখন যেন একটা বিচ্ছিন্ন দ্বীপ। ২০১১ সাল পর্যন্ত অর্থাৎ রাজ্যের রাজনৈতিক ক্ষমতা বদল পর্যন্ত পাহাড়ে আলাদা রাজ্যের দাবিদারদের একটা সমান্তরাল প্রশাসন চলেছে। সরকারি প্রতিনিধিরা, শাসকফ্রন্টের নেতারা কেউই প্রায় পাহাড়ে যাননি বেশ কয়েকবছর।

আবহাওয়াটার পরিবর্তন আসে নতুন সরকারের সঙ্গেই। পাহাড়ে সরকারি কাজকর্মের সঙ্গেই শুরু হয় রাজনৈতিক কাজও। শাসকদল তাদের জনভিত্তি তৈরির কাজ শুরু করে। সেই সময় পাহাড়ের রাজা কার্যত বিমল গুরুং, যিনি পাহাড়ের শাসক গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার সুপ্রিমো। আগের বাম সরকারের তীব্র বিরোধিতা করতে গিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের একেবারে গায়ে ঘষাঘষি করেছেন, যা কিনা পরবর্তীকালে তাদের বিপক্ষেই গিয়েছে।

এই প্রেক্ষাপটে এবারই প্রথম পাহাড়ের চার পুরসভার ভোটে অংশ নেয় রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। ইতিমধ্যে পাহাড়ের রাজনৈতিক পরিস্থিতির অনেকটাই পরিবর্তন হয়ে গিয়েছে। মোর্চার বন্ধু থেকে শত্রু হয়ে গিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। মোর্চার দল ভেঙেই নিজেদের ভিত তৈরিও করেছে তৃণমূল। পাহাড়ে গত সাড়ে তিন দশক যেটা সম্ভব হয়নি সেটাও হয়েছে- মোর্চার সঙ্গে টক্কর দেওয়ার মতো জায়গা তৈরি হয়ে গিয়েছে পাহাড়ে। দার্জিলিং, কালিম্পং, কার্সিয়াং এবং মিরিক পুরসভায় ভোটের পর একটা বিষয় পরিষ্কার – পাহাড়ে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার একাধিপত্যের দিন শেষ। মিরিক পুরসভায় তৃণমূলের ক্ষমতা দখল সহ বাকি তিনটি পুরসভাতেও মোর্চা বিরোধীদের আসনলাভের ঘটনা ইঙ্গিত দিচ্ছে পাহাড়ের মানুষও পরিবর্তনের পক্ষে। আসলে গত কয়েকটা দশকের একচেটিয়া আধিপত্যের পর সমতলে যেভাবে ক্ষমতার বদল ঘটেছে সেই একই ঘটনার সাক্ষী রয়েছে পাহাড়ও। বামেদের সঙ্গে রেষারেষির জেরে তৃণমূলের সঙ্গে সখ্যবৃদ্ধির পদক্ষেপ কতটা বিচক্ষণতার পরিচয় ছিল, এখন সেই হিসাব করছেন মোর্চা নেতৃত্ব। কারণ, যেভাবে সমতলে একের পর এক নানাভাবে বিরোধী শূন্য করার কাজ চলছে সরকারি, প্রশাসনিক প্রতিষ্ঠানগুলিতে, পাহাড়ও যে তার ব্যতিক্রম হবে না সেটা এখন বুঝছেন মোর্চা নেতারা।

পাহাড়ে তৃণমূল যত জাঁকিয়ে বসবে ততই মুশকিলে পড়বে মোর্চা-এটাই স্বাভাবিক। সামনেই জিটিএ এর নির্বাচন। মোর্চার পাশাপাশি সেখানে যে তৃণমূল কংগ্রেস এবং ডঃ হরকাবাহাদুর ছেত্রী দলীয় প্রার্থী দেবে তা বলাই বাহুল্য। পাহাড়ের মানুষ যেভাবে পরিবর্তন চাইছেন, তাতে ওই ভোটেও যে তুল্যমূল্য লড়াই হবে তা এখনই বলে দেওয়া চলে। আর সেটা হলে সমস্যা বাড়বে পাহাড়ের মানুষের। কারণ পুরভোটে ধাক্কা খাওয়ার পরই মোর্চা নেতৃত্ব পৃথক গোর্খাল্যান্ড রাজ্যের দাবিকে ফের অল্প হলেও সামনে আনতে শুরু করেছে। জিটিএ ভোটে মোর্চা বিপাকে পড়লে তখন তাদের শেষ হাতিয়ার সেই গোর্খাল্যান্ডের দাবিকেই আরও তীব্রভাবে সামনে নিয়ে আসবে। এখন পাহাড়ের আগের সেই ভীতিপ্রদ আবহটা নেই। কিন্তু পরিবর্তনপন্থীদের চাপ বাড়লে অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে মোর্চাও তার দাঁত, নখ বের যে করবে, তা বোঝার জন্য বড়ো রাজনীতিক হওয়ার প্রয়োজন পড়ে না।


#RamanujMitra #State

বিজ্ঞাপন

হেডলাইন

প্রতিবেদন

রাতভর বিনিদ্র হাট

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সেই ছড়াটি মনে আছে তো? ‘হাট বসেছে শুক্রবারে, বকসিগঞ্জের পদ্মা পাড়ে৷ জিনিসপত্র জুটিয়ে এনে, গ্রামের মানুষ বেচে কেনে’...

বিজ্ঞাপন

ফলো করুন
  • Facebook
  • Instagram
  • Twitter
  • YouTube
  • Pinterest
পপুলার

ছয় হাজার লিটার স্যানিটাইজার তৈরি করল এক স্বনির্ভর গোষ্ঠী

জেলাপ্রশাসনের উদ্যোগে স্যানিটাইজার তৈরির প্রক্রিয়া খতিয়ে দেখলেন জেলাশাসক রাজর্ষি মিত্র। শনিবার দুপুরে ইংরেজবাজার ব্লকের কোতোয়ালি গ্রাম...

সব খবর ইনবক্সে!

প্রতিদিন খবরের আপডেট পেতে সাবস্ক্রাইব করুন

বিজ্ঞাপন

Aamader Malda Worldwide, the only media of your hometown and its thoughts. Here you can share and express your views and thoughts and you'll get here the essence of MALDAIYA CULT...

You can reach us via email or phone.  P +91 3512-260260  E response@aamadermalda.in

  • Facebook
  • Twitter
  • YouTube
  • Pinterest
  • Instagram
  • RSS

Copyright © 2020 Aamader Malda. All Rights Reserved.