মালদা বইমেলায় ১৭০টিরও বেশি প্রকাশনা সংস্থা

হইহই করে শুরু হয়ে গেল মালদাবাসীর শীত উৎসব - বইমেলা৷ বুধবার বিকেলেই তার বর্ণাঢ্য উদ্বোধন হয়েছে৷ উদ্বোধক ছিলেন সাহিত্য অ্যাকাডেমি পুরস্কারপ্রাপ্ত সাহিত্যিক আফসার আমেদ৷ প্রধান অতিথি হিসেবে এসেছিলেন বেলুর মঠের রামকৃষ্ণ মিশন সারদাপীঠের সচিব স্বামী দিব্যানন্দ মহারাজ৷ রাজ্যের দ্বিতীয় বৃহত্তম বইমেলার উদ্বোধন করে আপ্লুত আফসার সাহেব৷



বুধবার দুপুরে শহরের বৃন্দাবনি ময়দান থেকে বিশাল বই মিছিলের সূচনা হয়৷ পা মেলান জেলার প্রশাসনিক কর্তা, জনপ্রতিনিধি, সমাজসেবী, বিদ্বজ্জন সহ হাজার আটেক স্কুল-কলেজের পড়ুয়া৷ বই মিছিলের স্লোগান ছিল, ‘বই পড়, জীবন গড়’৷ মিছিলে ছিল সুদৃশ্য ট্যাবলো৷ মিছিল শেষ হয় বইমেলা চত্বরে৷ সেখানেই মূল গেটের ফিতে কেটে মেলার উদ্বোধন করা হয়৷

এরপর মেলার মূল মঞ্চ, ভগিনী নিবেদিতা মঞ্চের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন আফসার সাহেব৷ সেখানে তখন দৃশ্যতই চাঁদের হাট৷ ছিলেন প্রাক্তন মন্ত্রী সাবিত্রী মিত্র, জেলাশাসক কৌশিক ভট্টাচার্য, পুলিশ সুপার অর্ণব ঘোষ, সাংসদ মৌসম নূর, জনশিক্ষা প্রসার ও গ্রন্থাগার পরিষেবা দপ্তরের অতিরিক্ত সচিব কাজলকুমার বন্দ্যোপাধ্যায়, বিধায়ক তথা পৌরসভার চেয়ারম্যান নীহাররঞ্জন ঘোষ, জেলা পরিষদের সভাধিপতি সরলা মুর্মু, দুই অতিরিক্ত জেলাশাসক আর ভিমলা ও দেবতোষ মণ্ডল সহ আরও অনেকে৷ সেখানেই মেলার স্বাগত ভাষণ দেন বইমেলা কমিটির যুগ্ম সম্পাদক অম্লান ভাদুড়ি৷

মেলার উদ্বোধক আফসার আমেদ বলেন, তিনি শুনেছিলেন, মালদায় বড়ো বইমেলা হয়৷ কিন্তু তার ব্যাপকতা যে এত বেশি, তা এখানে না আসলে বুঝতে পারতেন না৷ বইয়ের জন্য সকাল থেকেই জেলা জুড়ে সাজো সাজো রব দেখে তিনি মুগ্ধ৷ কলকাতা বইমেলার তুলনায় মালদা বইমেলা হয়তো পরিসরে অনেকটাই ছোটো, বাণিজ্যিকভাবেও কলকাতা বইমেলা হয়তো মালদা থেকে অনেকটা এগিয়ে, কিন্তু মালদা বইমেলাকে ঘিরে সাধারণ মানুষের আবেগ একে অন্য মাত্রা দিয়েছে৷ আবেগ আর হৃদয়ের উষ্ণতায় মালদা জেলা বইমেলা কলকাতা থেকে কিছুতেই পিছিয়ে নেই৷ বিশিষ্ট সাহিত্যিকের আরও দাবি, ভার্চুয়াল লাইব্রেরি কখনই বইয়ের বিকল্প হয়ে উঠতে পারে না৷ সভ্যতার অগ্রগতি হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বইয়ের আবিষ্কার হয়৷ কম্পিউটারের পর্দায় চোখ রেখে পড়া, আর বইয়ের পাতা উলটে পড়ার মধ্যে বিস্তর ফারাক৷ বইয়ের পাতায় পাতায় রয়েছে লেখক ও পাঠকের হৃদয়ের উষ্ণতা৷ এই আবেগ আর উষ্ণতাই বইকে চিরন্তন করে রাখবে৷

২৯তম মালদা জেলা বইমেলায় অংশ নিয়েছে ১৭০টিরও বেশি প্রকাশনা সংস্থা৷ এছাড়াও রয়েছে বই বিহীন ৬০টি স্টল৷ মেলা চলবে আগামী ২৪ জানুয়ারি পর্যন্ত৷ প্রতিদিন বিভিন্ন ধরণের অনুষ্ঠানের জন্য তৈরি হয়েছে মূল মঞ্চ ছাড়াও আরও তিনটি মঞ্চ৷ রয়েছে বিকেলের ব্যালকনি৷

ছবিঃ মিসবাহুল হক


#MaldaBookFair

1
রাতে 'কুপিয়ে' খুন হলেন দু’জন, মোতায়েন বিশাল পুলিশবাহিনী

Popular News

816

2
কফিনবন্দি দেহ ফিরল মালদায়, স্যালুট জানিয়ে শেষ শ্রদ্ধা পুলিশের

Popular News

901

3
গঙ্গায় মিশে যেতে পারে ফুলহর, বাজছে বিপদ ঘণ্টা

Popular News

857

4
আত্মীয়ের বাড়িতে এসে গ্রেফতার বাংলাদেশি

Popular News

1334

5
বাংলাদেশে পণ্য পাঠানো বন্ধ করে দিলেন মহদীপুরের এক্সপোর্টার্সরা

Popular News

901

পপুলার

বিজ্ঞাপন

টাটকা আপডেট
 

aamadermalda.in

আমাদের মালদা

সাবস্ক্রিপশন

যোগাযোগ

স্বত্ব © ২০২০ আমাদের মালদা

  • Facebook
  • Twitter
  • Instagram
  • YouTube
  • Pinterest
  • RSS